১৩ মাঘ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের গ্রেফতারির প্রতিবাদে উত্তাল রাজ্য

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 4, 2017 2:42 pm|    Updated: January 4, 2017 3:06 pm

Violent protests erupt in Bengal over Sudip Banerjee’s arrest

স্টাফ রিপোর্টার: তৃণমূল সাংসদ তাপস পালের পর, লোকসভার পরিষদীয় দলনেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় গ্রেফতার হওয়ার পরই উত্তপ্ত রাজ্য-রাজনীতি৷ বুধবার থেকেই রাজ্যজুড়ে তৃণমূলের বিক্ষোভ শুরু হয়৷ শুধু শহরে নয়, জেলায় জেলায় ছড়িয়ে পড়েছে বিক্ষোভের আগুন৷ সকাল থেকেই চলছে জাতীয় সড়ক অবরোধ, মিটিং-মিছিল-পথসভা৷ প্রায় সব প্রতিবাদেরই লক্ষ্য সিবিআই ও কেন্দ্র৷ সংসদেও প্রতিবাদ-বিক্ষোভ দেখান তৃণমূলের সাংসদরা৷ কলকাতায় এদিন রাজ্যপালের কাছে স্মারকলিপি জমা দেন তৃণমূলের মন্ত্রী-বিধায়করা৷ সুজিত বসুর নেতৃত্বে বিক্ষোভ চলে সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সেও৷ রাজ্য জুড়ে তৃণমূল কর্মী-সমর্থকদের বিক্ষোভে বিপর্যস্ত ট্রেন ও যানচলাচল৷ হাওড়া ও শিয়ালদহ ডিভিশনের বিভিন্ন্ স্টেশনে রেল অবরোধ করা হয়৷ বিপাকে পড়েন নিত্যযাত্রীরা৷ কলকাতার পাশাপাশি জেলাতেও পথ অবরোধের জেরে যানজট সৃষ্টি হয়৷

tmc

তৃণমূলের লোকসভার নেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় গ্রেফতার হতেই মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকেই রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখান তৃণমূলের কর্মীরা৷

tmc_1

বিধায়ক অখিল গিরি বুধবার সাত সকালেই দলীয় কর্মীদের নিয়ে চলে যান ভুবনেশ্বরে সিবিআই দফতরের সামনে৷ সেখানে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা৷ ভোর থেকেই উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের প্রায় সব বিধানসভা কেন্দ্রে সাংসদদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে রাস্তায় নেমেছে তৃণমূল নেতৃত্ব৷ ২ ও ৬০ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করেন তৃণমূলের কর্মীরা৷ রাস্তার উপর গাড়ির টায়ার পোড়ানো হয়৷ সিবিআই ও কেন্দ্রের বিরু‌দ্ধে স্লোগান তোলে তৃণমূল নেতৃত্ব৷

এদিন সন্ধ্যায় বিধায়ক নয়না বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে বউবাজারে মিছিল করার কথা৷ কলকাতার ধর্মতলায় কয়েক হাজার দলীয় কর্মীদের নিয়ে প্রতিবাদ মিছিল করেন রাজ্যের বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়৷ চেতলায় প্রতিবাদ মিছিল করেন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম৷ বরো চেয়ারম্যান বৈশ্বানর চট্টোপাধ্যায় গোলপার্কে, পরেশ পাল কাঁকুড়গাছিতে বিক্ষোভ দেখান৷ হাজরায় বিক্ষোভ মিছিল হয়৷ বেলা ১২টা নাগাদ দলের একাধিক বিধায়ক-মন্ত্রীদের নিয়ে রাজভবনে যান পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷ ছিলেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়, শোভন চট্টোপাধ্যায়, ফিরহাদ হাকিম, অরূপ বিশ্বাস, নির্মল ঘোষ, তাপস রায়, শশী পাঁজা প্রমুখ৷ সিবিআইয়ের ভূমিকা নিয়ে রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর কাছে অভিযোগ জানায় তৃণমূলের পরিষদীয় দল৷ পার্থবাবু বলেন, “রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়কে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ বাবুল সুপ্রিয়কে গ্রেফতার করতে হবে, এই দাবি রাজ্যপালের কাছে জানিয়েছি৷ সেইসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো ভাঙারও অভিযোগ  জানিয়েছি৷ যা গণতন্ত্রের পক্ষে অশুভ ইঙ্গিত৷” এদিন গিরিশ পার্ক, ধর্মতলা, ভবানীপুর, মহম্মদ আলি পার্ক-সহ শহর কলকাতার পাশাপাশি দুর্গাপুর, অণ্ডাল, দাঁতন, ক্যানিং, বর্ধমান, বারাসত, বোলপুর, পুরুলিয়া, শিলিগুড়ির একাধিক জায়গায় সকাল থেকে রাস্তায় নামেন তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা৷ একাধিক জায়গায় পথ অবরোধ করা হয়৷ পোস্টার, ব্যানার হাতে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরু‌দ্ধে সরব হয় তৃণমূল নেতৃত্ব৷

ওড়িশা সংলগ্ন দিঘা বর্ডারে পথ অবরোধ করেন তৃণমূল সমর্থকরা৷ যার জেরে পণ্যবাহী গাড়ি আটকে পড়ে৷ বেলা ১২টা নাগাদ নিউ আলিপুরদুয়ার স্টেশন অবরোধ করেন তৃণমূলের কর্মীরা৷ যার জেরে ডাউন তিস্তা-তোর্সা এক্সপ্রেস আটকে পড়ে৷ সকাল ১০টা নাগাদ বাগবাজার চক্ররেলে, ১১টা নাগাদ গড়িয়া স্টেশনে অবরোধ করেন তৃণমূলের কর্মীরা৷ সাড়ে ১১টা নাগাদ সিঙ্গুরে আপ-ডাউন শাখায় অবরোধ করা হয়৷ কাঁকুড়গাছি রেলব্রিজে অবরোধ করেন বিধায়ক পরেশ পাল৷ বেলা ১টা নাগাদ সিজিও কমপ্লেক্স ঘেরাও করেন তৃণমূলের কয়েক হাজার নেতা-কর্মী৷ পুরুলিয়া ও কোচবিহারে পার্টি অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ তৃণমূলের বিরু‌দ্ধে করেছে বিজেপি৷ বিকেলে শহর, শহরতলিতে একাধিক কর্মসূচি নিয়েছে তৃণমূল৷ দিল্লিতে গান্ধীমূর্তির সামনেও প্রতিবাদ-বিক্ষোভে শামিল হন তৃণমূলের লোকসভা ও রাজ্যসভার সাংসদরা৷

অন্যদিকে, তৃণমূল নেত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য মঙ্গলবার রাতে আনন্দপুর থানায় সিবিআইয়ের বিরুদ্ধে একটি এফআইআর দায়ের করেন৷ একইসঙ্গে, বিধায়ক নয়না বন্দ্যোপাধ্যায়ও সিবিআইয়ের বিরুদ্ধে মামলা করার হুমকি দিয়েছেন৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে