BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

২৪ ঘণ্টায় কলকাতায় করোনাজয়ী ৩০০ জন, রাজ্যে বাড়ছে সুস্থ হওয়ার সংখ্যা

Published by: Sulaya Singha |    Posted: June 20, 2020 8:01 pm|    Updated: June 20, 2020 8:12 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন করে করোনা আক্রান্ত ৪৪১ জন। এই সংখ্যাটা নিঃসন্দেহে উদ্বেগজনক। তবে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে পারেন, সুস্থতার হার দেখে। একদিনে করোনার বিরুদ্ধে জয়ী ৫৬২ জন।

চিকিৎসকরা প্রথম থেকেই বলে আসছেন, এই ভাইরাসের সংক্রমিত করার ক্ষমতা অনেকটাই বেশি। তবে এতে মৃত্যুর হার তুলনামূলক কম। তাই করোনার (coronavirus) জন্য আতঙ্কিত না হয়ে সুরক্ষিত থাকারই পরামর্শ দিয়েছেন তাঁরা। সেই সঙ্গে বারবার তুলে ধরা হয়েছে তাঁদের উদাহরণ, যাঁরা করোনার মতো মহামারীকে হারিয়ে জীবনের নয়া ছন্দে ফিরেছেন। স্বাস্থ্যদপ্তরের পরিসংখ্যানও কিন্তু বঙ্গবাসীকে আশার আলোই দেখাচ্ছে। এদিন রাজ্যের মোট আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ১৩ হাজার পার করলেও অ্যাকটিভ কেস কিন্তু অর্ধেকেরও কম।

[আরও পড়ুন: করোনাতঙ্কে ছুঁয়েও দেখল না কেউ, রাস্তায় পড়ে কাতরালেন দুর্ঘটনায় জখম ব্যক্তি]

শনিবার রাজ্যের স্বাস্থ্যদপ্তরের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৪১ জন আক্রান্ত হওয়ায় রাজ্যে মোট সংক্রমিতের সংখ্যা ১৩ হাজার ৫৩১ জন। একদিনে অ্যাকটিভ কেস কমেছে ১৩২টি। বর্তমানে রাজ্যে মোট করোনা অ্যাকটিভ ৫,১২৬ জন। আর পরিসংখ্যান অনুযায়ী, আক্রান্তের তুলনায় এদিন সুস্থ হওয়ার সংখ্যা অনেকটাই বেশি। একদিনে করোনামুক্ত ৫৬২ জন। ফলে রাজ্যে এখনও পর্যন্ত ৭,৮৬৫ জন সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন। সুস্থতার হার ৫৮.১২ শতাংশ। এদিকে, গত দুদিন ধরে কলকাতার ছবিটা উদ্বেগজনক থাকলেও শনিবার কলকাতাবাসীও সাময়িক স্বস্তি পেতেই পারেন। কারণ একদিনে এ শহরে ৩০০জন করোনাকে হার মানালেন। সেখানে একদিনে আক্রান্ত ১২৭ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনার বলি ১১ জন। যাঁর মধ্যে কলকাতায় মৃত্যু হয়েছে একজনের। স্বাস্থ্যদপ্তর নয়া তথ্য বলছে, এখনও পর্যন্ত রাজ্যে মোট ৫৪০ জন COVID-19 রোগীর মৃত্যু হয়েছে। করোনা মোকাবিলায় উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়েছে নমুনা পরীক্ষাও। গত ২৪ ঘণ্টাতেই রাজ্যে ১০ হাজার ৩৩০ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে বলে জানাল স্বাস্থ্যদপ্তর। বাংলায় এখনও পর্যন্ত ৩ লক্ষ ৯০ হাজার ৯৪২ জনের স্যাম্পেল টেস্ট হয়েছে।

[আরও পড়ুন: সরকারি প্রকল্পের ফলকই ঘরের সিঁড়ি! মেদিনীপুরবাসীর কীর্তিতে নাজেহাল প্রশাসন]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement