BREAKING NEWS

১৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ১ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

প্রচারে বেরিয়ে ফের বাধার মুখে দিনহাটার বিজেপি প্রার্থী, উঠল ‘জয় বাংলা’ স্লোগান, তীব্র উত্তেজনা

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: October 19, 2021 1:47 pm|    Updated: October 19, 2021 3:05 pm

WB ByPolls: BJP Candidate of Dinhata faces agitation of local people | Sangbad Pratidin

বিক্রম রায়, কোচবিহার: ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে প্রচারে বেরিয়ে ফের বাধার মুখে দিনহাটার বিজেপি প্রার্থী অশোক মণ্ডল (BJP candidate Ashok Mandal)। বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন নাটাবাড়ির বিধায়ক মিহির গোস্বামী। ঘটনাকে কেন্দ্র করে তীব্র উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়।

৩০ অক্টোবর কোচবিহার জেলার দিনহাটা বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন (West Bengal By-Elections)। তাই পুজো মিটতেই ভোট প্রচারে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন সমস্ত রাজনৈতিক দলের প্রার্থীরা। মঙ্গলবার সকালে কোচবিহারের নয়ারহাটে প্রচারে বেরিয়েছিলেন দিনহাটার বিজেপি প্রার্থী অশোক মণ্ডল। সঙ্গে ছিলেন মিহির গোস্বামী-সহ অন্যান্যরা। অভিযোগ, প্রচারে বেরনোর পরই স্থানীয়দের বিক্ষোভের মুখে পড়েন অশোক মণ্ডল।

[আরও পড়ুন: Weather Update: টানা বৃষ্টিতে রাজ্যের একাধিক জায়গা জলমগ্ন, জলযন্ত্রণায় ক্ষুব্ধ সাধারণ মানুষ]

বিজেপির (BJP) অভিযোগ, বিক্ষোভকারীরা জয় বাংলা স্লোগান তোলেন। ঘটনাকে কেন্দ্র করে তীব্র উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন মিহির গোস্বামী। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বিশাল পুলিশ বাহিনী। তাঁদের দীর্ঘক্ষণের চেষ্টায়  নিয়ন্ত্রণে আসে পরিস্থিতি। বিজেপির অভিযোগ, ঘটনার পিছনে রয়েছে তৃণমূল। নিশীথ প্রামাণিক প্রশ্ন তুলেছেন, যেখানে বিধায়কদেরই এই অবস্থা, সেখানে সাধারণ মানুষ কি আদৌ নিরাপত্তা পাচ্ছেন না। যদিও বাধা দেওয়ার অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বলেই দাবি শাসকদলের। তাদের পালটা দাবি, বিজেপি প্রচারের আলোয় আসতেই এভাবে তৃণমূলের বিরুদ্ধে বাধা দেওয়ার অভিযোগ তুলছে।

উল্লেখ্য, সোমবার বামনহাট এলাকায় বাড়ি-বাড়ি গিয়ে প্রচারের সময় বিক্ষোভের মুখে পড়েছিলেন অশোক মণ্ডল। তাঁদের প্রশ্ন ছিল, “নিশীথ প্রামাণিক কোথায়? যাঁকে ভোট দিয়েছিলাম সেই নিশীথ কোথায়?” পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, ওই ঘটনায় ইতিমধ্যেই সাহেবগঞ্জে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার জেরে অশোক মণ্ডলকে নিরাপত্তা দিতে চেয়েছিল পুলিশ। তবে তিনি তা নিতে রাজি হননি।

 

[আরও পড়ুন: পৈশাচিক! বাংলাদেশের হিংসার ঘটনার বিরুদ্ধে সরব রাজ্যের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলি]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে