২৬  শ্রাবণ  ১৪২৯  সোমবার ১৫ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

নিরপেক্ষ ভোটের আবেদন, নির্বাচন শেষে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হতে চলেছেন মমতা

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 24, 2021 1:44 pm|    Updated: April 24, 2021 5:00 pm

WB Elections: Mamata Banerjee will move to Supreme Court after election to appeal for transparent polling | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিজেপির কথায় চলছে নির্বাচন কমিশন (Election Commission)। বঙ্গে আট দফা ভোটের মাঝে বারবার এই অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। তবে শনিবার বোলপুরে সাংবাদিক বৈঠক থেকে তিনি আরও বড় পদক্ষেপের কথা ঘোষণা করলেন তিনি। জানালেন, ভোট শেষ হয়ে গেলে সুপ্রিম কোর্টে যাবেন। নিরপেক্ষ ও স্বচ্ছভাবে ভোট করানোর আবেদন জানাবেন। এ প্রসঙ্গে তাঁর মন্তব্য, ”আমরা ২০১৬ সালেও সহ্য করেছি। এবারও দেখছি। এই ভোট হয়ে যাওয়ার পর আমরা দেশের সর্বোচ্চ আদালতে যাব। কমিশন যাতে নিরপেক্ষভাবে ভোট করায়, তার আবেদন জানাব। আমরা একটু বেশি মাথা নত করে ফেলেছি, একটু বেশি সম্মান দিয়ে ফেলেছি।”

কমিশনের নির্দেশে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ হওয়ায় এই মুহূর্তে বড় রাজনৈতিক সভা-সমিতি বাতিল, রোড শো কিংবা মিছিলও হবে না। করোনার জেরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই আগের সব জনসভা বাতিল করে দিয়েছিলেন। তাই শনিবার বোলপুরের গীতাঞ্জলি স্টেডিয়াম থেকে তিনি সাংবাদিক বৈঠক করেন। সেখান থেকেই জানান, রাজ্যে ভোটপর্ব মিটে গেলে কমিশনের বিরুদ্ধে তিনি সুপ্রিম কোর্টে যাবেন।

[আরও পড়ুন: শেষকৃত্যের আগে নড়ে উঠল বৃদ্ধার হাত! অলৌকিক কাণ্ডে তোলপাড় তারাপীঠ]

এদিন বোলপুরের (Bolpur) মঞ্চে শারীরিক দূরত্ববিধি মেনে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন মাত্র ৪ জন। ছিলেন অনুব্রত মণ্ডলও। তাঁকে ভোটের সময় নজরবন্দি করা নিয়েও কমিশনকে তোপ দেগেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর মতে, এটি বেআইনি কাজ। এদিন তিনি উপ নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈনের সঙ্গে জেলা পুলিশ আধিকারিকদের একাংশের কথোপকথনের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট প্রকাশ্যে আনেন। সাংবাদিকদের সামনে সেই তথ্য এনে নির্বাচন কমিশন কীভাবে পক্ষাপাতমূলক কাজ করছে, তাও একবার বোঝানোর চেষ্টা করেন। তাঁর অভিযোগ, প্রত্যেক দফা ভোটের আগে তৃণমূলের দাপুটে নেতা ঘনিষ্ঠদের নজরবন্দি কিংবা আটক করা নিয়ে তাঁদের কথোপকথন ভাইরাল হয়েছে অভিযোগ করেন তৃণমূল। এ নিয়ে পুলিশ মহলের একাংশের উপরও প্রচ্ছন্ন অসন্তোষ প্রকাশ করলেন তিনি। তবে রাজনৈতিক মহলের একাংশের ধারণা, এই হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ফাঁস করে আসলে তৃণমূল নেত্রী বিজেপির উপর পালটা চাপ দিয়ে রাখলেন। যা আগামী ২ দফার ভোটে বেশ ফ্যাক্টর হতে পারে বলে মত তাঁদের।

[আরও পড়ুন: রাজ্যের অষ্টম দফার ভোটে কোটিপতি প্রার্থীর সংখ্যা ৫৫, সবচেয়ে বেশি কোন দলের?]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে