BREAKING NEWS

২৫ বৈশাখ  ১৪২৮  রবিবার ৯ মে ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

Coronavirus: কোভিড মোকাবিলায় বড় পদক্ষেপ রাজ্যের, তৈরি হচ্ছে আরও বেশ কয়েকটি অক্সিজেন প্লান্ট

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 26, 2021 6:30 pm|    Updated: April 26, 2021 8:06 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

মলয় কুণ্ডু: অক্সিজেন (Oxygen) উৎপাদন, সরবরাহ, আমদানি সবই স্বাভাবিক বাংলায়। তা সত্ত্বেও কোভিড মোকাবিলায় উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বড়সড় পদক্ষেপ নিল রাজ্য সরকার। রাজ্যে আরও ৯৩টি অক্সিজেন প্লান্ট তৈরি করতে চেয়ে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে কেন্দ্রের কাছে। এর মধ্যে ৫টি প্লান্ট তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। শিগগিরই আরও ৩টির কাজ শুরু হবে বলে সূত্রের খবর। এই মুহূর্তে রাজ্যের ১১২টি কোভিড হাসপাতালে অক্সিজেন সরবরাহ করা হচ্ছে পাইপলাইনের মাধ্যমে। নতুন যে হাসপাতালগুলিতে কোভিড চিকিৎসার পরিকাঠামো গড়ে তোলা হবে, সেখানেও বেশিরভাগ পাইপলাইনেই সরবরাহ করা হবে বলে খবর। প্রয়োজনে কয়েকটি হাসপাতালে সিলিন্ডারের মাধ্যমে তা সরবরাহ করা হবে।

দেশজুড়ে করোনার (Coronavirus) দ্বিতীয় ধাক্কায় এই মুহূর্তে চিকিৎসার জন্য অক্সিজেনের সংকট তীব্র। সেই সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে কেন্দ্র একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে জরুরি ভিত্তিতে। এবার রাজ্য সরকারও গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি পদক্ষেপ নিল। সূত্রের খবর, এই মুহূর্তে বাংলায় প্রতিদিন ৪৯৭ মেট্রিক টন অক্সিজেন উৎপাদিত হয়। এছাড়া ৩৮০ মেট্রিক টন বাইরে থেকে আসে। দিনে খরচ হয় ২২৩ মেট্রিক টন। ফলে বেশ খানিকটা উদ্বৃত্তই থেকে যায়। তাই ছোট ছোট স্তরে অর্থাৎ হাসপাতাল-নার্সিংহোমে অক্সিজেনের কোনও অভাব এই মুহূর্তে নেই। ভবিষ্যতেও তা যাতে না হয়, তার আগাম প্রস্তুতি হিসেবেই নতুন করে অক্সিজেন প্লান্ট তৈরির পরিকল্পনা করা হয়েছে। এছাড়া গোটা বিষয়টি কড়া নজরে রাখবে টাস্ক ফোর্স।

[আরও পড়ুন: ‘তৃণমূলের দালালি করছ?’, হুঁশিয়ারি দিয়ে পাণ্ডবেশ্বরে দলীয় কর্মীকে মারধর কেন্দ্রীয় বাহিনীর

এছাড়া সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগে রাজ্যে আরও ২০ হাজার কোভিড বেড বাড়ানো হচ্ছে। রাজ্য স্বাস্থ্যদপ্তর সূত্রে খবর, এসএসকেএম, মেডিকা, আরএন টেগোর হাসপাতাল বাড়ানো হচ্ছে শয্যা। রামকৃষ্ণ মিশন ও ভারত সেবাশ্রমের হাসপাতালগুলিকেও শয্যা বাড়ানোর অনুরোধ করা হয়েছে রাজ্যের তরফে। সোমবার বারাকপুরের রামকৃষ্ণ বিবেকানন্দ মিশনের তরফে কোভিড চিকিৎসার জন্য ৫ লক্ষ টাকা দান করা হয়েছে রাজ্যের তহবিলে। শুধুমাত্র বেসরকারি উদ্যোগেই প্রায় ৭০০০ কোভিড বেড বাড়ছে। বেশ কয়েকটি সেফ হাউস চালু হচ্ছে। গীতাঞ্জলি স্টেডিয়াম, কিশোর ভারতী স্টেডিয়াম, মেট্রোপলিটান ক্লাব, উত্তীর্ণ সেফ হাউসের পরিকাঠামো গড়ে তোলা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: নজরে শেষ দফার ৩৫ আসনের নির্বাচনী লড়াই, কী বলছে গ্রাউন্ড রিপোর্ট?]

করোনা রোগীদের মৃত্যু হলে শেষকৃত্যের ধাপার মাঠ এবং নিমতলা শ্মশান ব্যবহার করার পাশাপাশি পুরসভার আবেদন, বাড়িতে কারও মৃত্যু হলে তা খবর পাঠাতে হবে। তবেই বাড়ি থেকে দেহ উদ্ধার করে পুরসভার তরফে শেষকৃত্যের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানা গিয়েছে কলকাতা পুরসভার তরফে।  সোমবার নির্বাচন থাকলেও কমিশনের বিশেষ অনুমতি নিয়ে এদিন কোভিড সংক্রান্ত একটি বৈঠক করেছেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement