BREAKING NEWS

২৮ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১৪ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

নজির গড়ল বাংলা, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় দেশের মধ্যে প্রথম হরিণঘাটা ব্লক

Published by: Paramita Paul |    Posted: December 27, 2019 1:21 pm|    Updated: December 27, 2019 1:21 pm

An Images

বিপ্লব চন্দ্র দত্ত কৃষ্ণনগর: ফের দেশে নজির গড়ল বাংলা।২০১৮-২০১৯ আর্থিক বছরে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় গ্রামীণ ক্ষেত্রে দেশের মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করেছে নদিয়ার কল্যাণী মহকুমার হরিণঘাটা ব্লক। বরাদ্দ হওয়া বাড়ির অধিকাংশই গ্রাহকদের কাছে পৌঁছে দিতে সক্ষম হয়েছেন এই ব্লকের আধিকারিকরা। ইতিমধ্যেই দিল্লি গিয়ে প্রথম পুরষ্কার ও শংসাপত্র নিয়ে এসেছেন ওই  ব্লকের সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক (BDO) কৃষ্ণগোপাল ধারা। তিনি জানিয়েছেন, “এই পুরস্কার পাওয়ার পর আমাদের দায়িত্ব আরও  বেড়ে গেল। গ্রামীণ এলাকার উন্নয়নে যে সমস্ত প্রকল্প রয়েছে, সেই সব প্রকল্পের সুবিধা মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে আমরা আরও বেশি করে দায়িত্ব নিয়ে কাজ করব। সমস্ত দায়িত্ব আমরা পালন করব, এটা অঙ্গীকার করছি।” 

হরিণঘাটা ব্লক সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০১৮-২০১৯ আর্থিক বছরে এই ব্লকে গ্রামীণ ক্ষেত্রে দারিদ্র সীমার নিচে বসবাসকারী পরিবারগুলির জন্য মোট ১৮২২টি বাড়ি বরাদ্দ করা হয়েছিল। তারমধ্যে হরিণঘাটা ব্লক ওই আর্থিক বছরে মোট ১৮১০টি বাড়ি নির্মাণ করতে পেরেছে। এর ফলে ওই আর্থিক বছরে  প্রধানমন্ত্রী গ্রামীণ আবাস যোজনায় ক্যাটাগরি দুই  বিভাগে  দেশের মধ্যে প্রথম স্থান  অধিকার করে হরিণঘাটা ব্লক।

 

[আরও পড়ুন : দিঘা মোহনার কাছে মাছবোঝাই ট্রলারডুবি, নিখোঁজ মৎস্যজীবী]

গত ১৯  ডিসেম্বর দিল্লিতে ছিল ন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড ডিষ্ট্রিবিউশন অনুষ্ঠান। ওই অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিলেন হরিণঘাটা ব্লকের সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক কৃষ্ণগোপাল ধারা। তিনি পুরস্কার ও শংসাপত্র গ্রহণ করেন।এই কৃতিত্ব উপলক্ষে বৃহস্পতিবার হরিণঘাটার বিডিওর অফিসে ‘উওরন’ নামে একটি  অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। ওই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন রাজ্যের ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প দফতরের রাষ্ট্রমন্ত্রী রত্না ঘোষ কর। উপস্থিত ছিলেন কল্যাণীর মহকুমা শাসক ধীমান  বাড়ই, জেলা পরিষদের সভাধিপতি রিক্তা কুন্ডু,  হরিণঘাটার সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক কৃষ্ণগোপাল ধারা, বিধায়ক নীলিমা নাগ  মল্লিক, জেলা পরিষদের পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ চঞ্চল দেবনাথ,  হরিণঘাটা পুরসভার চেয়ারম্যান মানিক ভট্ট-সহ অনেকেই। সেই অনুষ্ঠানে বিডিও জানিয়েছেন, “আমরা প্রথম স্থান অধিকার করতে পেরেছি । এর ফলে দায়িত্ব আমাদের আরও  বেড়ে গেল।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement