২২  শ্রাবণ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ৯ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

হাসপাতালে যাওয়ার পথে প্রসব যন্ত্রণা, হকারদের তৎপরতায় স্টেশনেই জন্মাল শিশু

Published by: Tanumoy Ghosal |    Posted: August 26, 2018 6:15 pm|    Updated: August 26, 2018 6:15 pm

Woman delivers baby on  Sonarpur railway station, health department orders investigation

ছবি: বিশ্বজিৎ নস্কর

দেবব্রত মণ্ডল, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: নিখরচায় চিকিৎসাই শুধু নয়, বাড়ি থেকে ‘নিশ্চয়যান’-এ চাপিয়ে গর্ভবতী মহিলাদের হাসপাতালে আনার ব্যবস্থা করেছে সরকার৷ কিন্তু, ঘটনা হল, হাসপাতালে যাওয়ার পথে সোনারপুর স্টেশনে সন্তানের জন্ম দিলেন এক মহিলা৷ ফিল্মি কায়দায় স্টেশনে কাপড় টাঙিয়ে প্রসবের ব্যবস্থা করলেন হকাররাই৷ মা ও শিশু দু’জনেই এখন ভরতি সুভাষগ্রাম হাসপাতালে৷ ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্যদপ্তর৷

[ তিন মাসের শিশুকে ট্রেনে ফেলে গেল মা, উদ্ধার করল জিআরপি]

মহিলার নাম কৃষ্ণা নস্কর৷ বাড়ি সোনারপুরের তেঘরিয়ায়৷ স্বামী রাজু নস্কর পেশায় রিকশাচালক৷ অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন কৃষ্ণা৷ প্রসবের আর বেশি দেরি ছিল না৷ পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, তাঁকে সুভাষগ্রাম হাসপাতালে ভরতি করার পরামর্শ দিয়েছিলেন চিকিৎসকরা৷ শনিবার সন্ধ্যায় ট্রেন ধরার জন্য স্ত্রীকে নিয়ে সোনারপুর স্টেশনে গিয়েছিলেন রাজু৷ কিন্তু ট্রেনে আর উঠতে পারেননি তাঁরা৷ স্টেশনে পৌঁছতেই ওই গৃহবধূর প্রসব যন্ত্রণা শুরু হয়৷ পরিস্থিতি এতটাই খারাপ ছিল যে, সোনারপুর স্টেশনেই সন্তান প্রসব করেন ওই গৃহবধূ৷ স্ত্রীর অবস্থা দেখে যখন দিশেহারা অবস্থা রাজুর, তখন এগিয়ে আসেন স্টেশনের হকাররা৷ ভিড় জমে যায় নিত্যযাত্রীদেরও৷ স্টেশনের একটি অংশে কাপড় টাঙিয়ে ঘিরে ফেলা হয়৷ শারীরিক অবস্থা কিছুটা স্থিতিশীল হলে, মা ও সদ্যোজাতকে নিয়ে যাওয়া হয় সুভাষগ্রাম হাসপাতালে৷ দু’জনেই সুস্থ আছে বলে জানা গিয়েছে৷

প্রসূতিকে দ্রুত হাসপাতালে আনার জন্য ‘নিশ্চয়যান’ চালু করা হয়েছে৷ এমনকী, প্রসবের পর মা ও শিশুকে গাড়ি করে বাড়িতেও পৌঁছে দেওয়া হয়৷ ভাড়া তো লাগেই না, উলটে প্রসূতির পরিবারকে নগদ টাকা দেয় সরকার৷ তাহলে কলকাতা শহরের উপকণ্ঠে সোনারপুরে এমন ঘটনা ঘটল কী করে? এ বিষয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্যদপ্তর৷  

[দরিদ্রদের জন্য ‘ভগবানের দোকান’ খুললেন দেবলীনা-তথাগত]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে