৭ ফাল্গুন  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বাঙালির বারো মাসে তেরো পার্বন। যার মধ্যে শ্রেষ্ঠ উৎসব অবশ্যই দুর্গাপুজো। প্রতিবছরই দুর্গাপুজোয় পালটে যায় এ শহরের ছবিটা। থিমের রমরমা থেকে আলোকোজ্জ্বল কার্নিভাল, সবকিছুরই সাক্ষী থাকে কলকাতা। কিন্তু দুর্গাপুজো শেষ মানেই তো আর উৎসবে ইতি নয়। তারপরই যে কালীপুজো। উৎসবপ্রেমী বাঙালি সবেতেই গা ভাসাতে তৈরি থাকে। বারাসত-অশোকনগরে ধুমধাম করে হয় কালীপুজো। কিন্তু তিলোত্তমাই বা কম যায় কোথায়। থিমে নয়া চমক দিয়ে এবার সে কথাই  বুঝিয়ে দিল গিরিশ পার্ক ফাইভ স্টার স্পোর্টিং ক্লাব।

[কালীপুজোয় বাজার কাঁপাচ্ছে ব্যাটারিচালিত মোমবাতি]

এবছর ৫৯ বছরে পা দিল এই পুজো। সাবেকিয়ানা থেকে বেরিয়ে এবার শিল্পী প্রশান্ত পালের হাত ধরে থিমের আঙিনায় প্রবেশ করেছে এই পুজো। থিমের নাম ‘অন্তর্যামী- ভক্তিতেই মুক্তি’। বর্তমানে থিমের চাকচিক্যে কোথাও যেন হারিয়ে যাচ্ছে ভারতের সংস্কৃতি। পুজোর আসল ভক্তি ভাবই সেখানে অনুপস্থিত। আর সেই ভাবনা থেকেই এবার এই থিম। যেখানে মা কালীর বিভিন্ন শক্তির রূপ ধরা পড়ছে মণ্ডপজুড়ে। দশমহাবিদ্যাই এই মণ্ডপের মূল আকর্ষণ। যেখানে পা রাখতেই মনে হবে কালীর পীঠস্থান এসে পৌঁছে গিয়েছেন। দর্শনার্থীরা একদিকে যেমন থিমের পুজো দেখার স্বাদ উপভোগ করতে পারবেন, ঠিক তেমনই প্রতিমায় সাবেকিয়ানা আনবে ভক্তি। কালীপুজো আলোর উৎসব। তাই দীপাবলি উদযাপনে মণ্ডপে প্রচুর প্রদীপ ব্যবহার করেছেন শিল্পী। প্রতিবারের মতো এবারও ধনঞ্জয় রুদ্র পালের হাতেই এখানে তৈরি হয়েছে প্রতিমা। সাবেকিয়ানা ও থিমের সংমিশ্রণে তৈরি এই রঙিন মণ্ডপ দর্শনার্থীদের নজর কাড়বেই, আশা শিল্পী ও উদ্যোক্তাদের।

[শুধু সবরীমালাই নয়, শহরের এই কালীপুজোতেও ‘ব্রাত্য’ মহিলারা]

আজ, শুক্রবার মণ্ডপের উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মহালয়ার আগে থেকেই যেমন দুর্গাপুজো শুরু হয়ে গিয়েছিল, ঠিক তেমনই দীপাবলির আগেই শুরু কালীপুজো। ভিড় এড়াতে আগে-ভাগেই দর্শনার্থীরা হাজির হয়ে যেতে পারেন এই মণ্ডপে।

 

 

ছবি: অমিত ঘোষ

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং