৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

স্টাফ রিপোর্টার: ঘাসফুল বনাম পদ্মফুলের সংঘাতের আবহ এবার টলিউডে। শনিবার টালিগঞ্জ স্টুডিও পাড়াতে নিজেদের সংগঠনের পথচলার কথা ঘোষণা করল গেরুয়া শিবির। জানিয়ে দিল, বাংলা চলচ্চিত্র শিল্পের সঙ্গে জড়িত টেকনিশিয়ান ও কলাকুশলীদের বিভিন্ন দাবিদাওয়া ও সমস্যার সমাধানে রাস্তায় নেমে লড়াই করতেই বঙ্গীয় চলচ্চিত্র পরিষদের সৃষ্টি। তাদের লক্ষ্য, রাজ্যের শাসক দলের দাদাগিরি থেকে টলিউডের শিল্পী ও কলাকুশলীদের রক্ষা করা। 

[ আরও পড়ুন: আস্তাকুঁড়ের মাঝে পড়ে শিশু, ভাইরাল ভিডিও দেখে দত্তক নিচ্ছেন বলিউড পরিচালক]

কলকাতা প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এই সাংবাদিক সম্মেলনে সরাসরি বিজেপির চিহ্ন না থাকলেও দেখা গিয়েছে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের শ্রমিক সংগঠন ভারতীয় মজদুর সংঘের প্রতীক সম্বলিত ব্যানার। মঞ্চে দেখা গিয়েছে ভারতীয় মজদুর সংঘের প্রাক্তন রাজ্য সম্পাদক শংকর দাস, টলিউডে সংঘ নিয়ন্ত্রিত কলাকুশলীদের সংগঠন ‘কলকাতা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিজ ওয়ার্কার্স অ্যাসোসিয়েশন’-এর সাধারণ সম্পাদক টুলটুল রায়, রাজ্য বিজেপির অন্যতম সহ সভাপতি বিশ্বপ্রিয় রায়চৌধুরি, সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি শঙ্কুদেব পন্ডার মতো মুখদের। হাজির ছিলেন বিশিষ্ট প্রবীণ অভিনেতা বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়, পরিচালক মিলন ভৌমিক, অভিনেতা প্রদীপ ধর-সহ টলিউড পাড়ার বহু মুখ। নতুন সংগঠনের সভাপতি হয়েছেন বিশ্বপ্রিয়বাবু। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক টুলটুলদেবী ও শঙ্কুদেব।

[ আরও পড়ুন: কথায়, সুরে ‘কাটমানি’ প্রতিবাদ তৃণমূল ঘনিষ্ঠ নচিকেতার]

সূ্ত্রের খবর, রাজ্য রাজনীতিতে বিজেপির প্রতিপত্তি বৃদ্ধি পাওয়ার প্রভাব পড়ছিল টালিগঞ্জের স্টুডিও পাড়াতেও। কিন্তু সমস্যা দাঁড়িয়েছিল বিজেপি প্রভাবিত একাধিক সংগঠন মাথা তোলায়। প্রত্যেকেই নিজেদেরকে ‘বিজেপি অনুমোদিত’ বলে দাবি করায় ধন্দে পড়ছিলেন টলিউডের লোকজন। সেকারণে সব সংগঠনকে মিলিয়ে একটি ছাতার তলায় নিয়ে আসার উদ্যোগ নেয় সংঘ নেতৃত্ব। তার ফলশ্রুতিই এই বঙ্গীয় চলচ্চিত্র পরিষদ। সাংবাদিক সম্মেলনে শঙ্কুদেব পন্ডার অভিযোগ, টালিগঞ্জ স্টুডিও পাড়া আজ চালাচ্ছে রাজ্যের শাসক দলের মদতপুষ্ট একটি গোষ্ঠী বা সিন্ডিকেট। এই সিন্ডিকেটের অঙ্গুলিহেলনে টলিউডের এক থেকে দেড় হাজার কলাকুশলী ও টেকনিশিয়ান দীর্ঘদিন বকেয়া টাকা পাচ্ছেন না।  শঙ্কুদেবের হুমকি, “সাত দিনের মধ্যে এই বকেয়া না মেটানো হলে ইমপার অফিসের সামনে অনশন শুরু হবে। ধর্মতলায় ভুখা মিছিলও হবে। রাস্তায় নেমে আন্দোলন শুরু হবে।” অভিনেতা বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের বক্তব্য, টালিগঞ্জে শিল্পী ও কলাকুশলীরা সমস্যার মধ্যে রয়েছেন। সেই সমস্যা মেটাতেই তিনি পরিষদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং