BREAKING NEWS

০৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৪ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘বন্ধ ঘরে ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে পোশাক খুলে ফেলাই তো স্বাভাবিক’!

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 13, 2016 6:18 pm|    Updated: December 13, 2016 6:18 pm

CBFC chief Pahlaj Nihalani defends Ranveer Singh's 'butt expose' in Befikre

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গত এক বছরে সিনেপ্রেমী বা নেহাতই সিনেমার হাল-হকিকত নিয়ে যাঁরা খোঁজ খবর রাখেন, তাঁরা আর যাই করে থাকুন না কেন, পহেলাজ নিহালনির নামটির সঙ্গে পরিচিত হয়ে গিয়েছেন। বছরের মাঝামাঝি সময়ে মুক্তি পাওয়া ‘উড়তা পাঞ্জাব’ ছবিটি নিয়ে যে ভয়ানক বিতর্ক মাথাচাড়া দিয়েছিল, সেই বিতর্কের অন্যতম কান্ডারি ছিলেন পহেলাজ নিহালনি। আশাকরি কে পহেলাজ নিহালনি তা আর আলাদা করে মনে করিয়ে দিতে হবে না। সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ফিল্ম সার্টিফিকেশনের চেয়ারম্যান পহেলাজ নিহালনি চলতি বছরে ছবির দৃশ্য ছেঁটে ফেলার মাধ্যমে দর্শকদের মনে একদম পাকাপাকিভাবে জায়গা করে নিয়েছিলেন। প্রথমে ‘উড়তা পাঞ্জাব’ এবং তারপর ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’ ছবিটির দৃশ্য নিয়ে তীব্র বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছিল।

‘উড়তা পাঞ্জাব’ ছবির বহু দৃশ্য এবং ডায়লগ ছেঁটে ফেলার নির্দেশ দিয়েছিলেন নিহালনি। দাবি করেছিলেন, এসবই নাকি অপ্রয়োজনীয় এবং দৃশ্যায়নের অযোগ্য। ‘উড়তা পাঞ্জাব’ ছবিটির পর ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’ নিয়েও বিরক্ত হয়েছেন পহেলাজ। রণবীর এবং ঐশ্বর্যের উষ্ণ দৃশ্য নিয়েও আপত্তি প্রকাশ করেছিলেন তিনি। সেন্সর বোর্ডের তরফ থেকে দায়িত্ব-সহ ছেঁটে দেওয়া হয়েছিল ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’-এর ঘনিষ্ট দৃশ্যগুলি।

কিন্তু এহেন এক ব্যক্তি কিনা আচমকাই নিজের বক্তব্য থেকে সরে এসে রণবীর সিংয়ের অনস্ক্রিন পশ্চাৎদেশ প্রদর্শনকে প্রশংসা করলেন। বললেন রণবীরের সেই উন্মুক্ত দৃশ্য যথাযথ। আর তাঁর এই মন্তব্যের পরই বিতর্কের ঝড় উঠেছে।

সম্প্রতি আদিত্য চোপড়া পরিচালিত ‘বেফিকরে’ ছবিটি মুক্তি পেয়েছে। ছবিতে রণবীর সিংয়ের বিপরীতে বাণী কাপুরকে। অনস্ক্রিন বাণী আর রণবীরের সিজলিং কেমিস্ট্রি যখন দর্শকদের আলোচনার বিষয়বস্তু হয়ে উঠেছে তখনই কিনা পহেলাজ বলে বসলেন এই উষ্ণ দৃশ্য খুবই ভাল এবং রীতিমতো যথাযথ।

প্রশ্ন থেকে যায় তবে ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’ ছবিতে রণবীর-ঐশ্বর্যর ঘনিষ্ট দৃশ্য যথাযথ ছিল না? এই বিষয়ে পহেলাজকে প্রশ্নও করা হয়েছিল। তিনি বলেছেন, “রণবীর আর বাণীর ঘনিষ্ট দৃশ্য এবং চুম্বন দৈর্ঘ্য কম ছিল। শুধু তাই নয়, এই দৃশ্যগুলি ছেঁটে ফেললে ছবিটির পরিবেশনায় সমস্যা দেখা দিত। আর তাই এই দৃশ্য ছাঁটা হয়নি।”
রণবীরের উন্মুক্ত পশ্চাৎদেশের প্রশংসায় নিহালনি আরও বলেছেন, “ছবিতে রণবীর এবং বাণী একটি বন্ধ ঘরে ঘনিষ্ঠ মুহূর্ত উপভোগ করছিলেন। সেই সময়, পোশাক খুলে ফেলা হবে সেটাই তো স্বাভাবিক। পাশাপাশি, রণবীরের অমন অবস্থায় মাত্র কয়েক সেকেন্ডের জন্যই দেখা গিয়েছে।”

খুব স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন ওঠে, তবে কি ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’-এ রণবীর-ঐশ্বর্যের দৃশ্য যথাযথ ছিল না? নাকি ‘উড়তা পাঞ্জাব’-এ একজন রকস্টারের লাগামছাড়া জীবনে গালাগালি দেওয়া কিংবা ভয়ানক উগ্রতা স্বাভাবিক বা যথাযথ নয়?

পহেলাজের এই বক্তব্য আদৌ নিরপেক্ষ নাকি এতেও কোনও ব্যক্তিগত সখ্যতার গল্প রয়েছে তা নিয়ে প্রকাশ্যে কেউ মুখ খুলতে রাজি নয়। যাই হোক, অনার বাকি বলিউডের উষ্ণ দৃশ্যকে যথাযথ মনে হয় কিনা তা দেখা এখন সময়ের অপেক্ষা।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে