১৬ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  শুক্রবার ৩ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

ট্রেলার মুক্তি পেতেই বিতর্ক, ব্রাহ্মণদের রোষের মুখে আয়ুষ্মানের ‘আর্টিকল ১৫’

Published by: Bishakha Pal |    Posted: June 6, 2019 9:17 am|    Updated: June 6, 2019 11:24 am

‘Article 15’ has earned the ire of the Brahmin community

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ট্রেলার মুক্তির পরেই তোপের মুখে পড়ল আয়ুষ্মান খুরানার নতুন ছবি ‘আর্টিকল ১৫’। ব্রাহ্মণ সম্প্রদায়ের ভাবাবগে আঘাত করার অভিযোগে পরশুরাম সেনার তোপের মুখে পড়েছে ছবিটি। অভিযোগ, ব্রাহ্মণ সম্প্রদায়কে ছবিতে হীনভাবে দেখানো হয়েছে।

অনুভব সিনহার এই ছবি বদায়ুঁ ধর্ষণ মামলার উপর ভিত্তি করে তৈরি হয়েছে। দু’জন দলিত মহিলার ধর্ষণ ও তা নিয়ে পুলিশের ভূমিকার কথা তুলে ধরা হয়েছে ছবিতে। ধর্ষণের এই ঘটনা নিয়ে সেসময় উত্তরপ্রদেশে যে বিতর্ক ও উত্তেজনা হয়েছিল, তাও দেখানো হয়েছে। দলিত মহিলাদের ধর্ষণের ঘটনার তদন্ত যিনি করেছিলেন, ছবিতে আয়ুষ্মান সেই পুলিশ অফিসারের চরিত্রে অভিনয় করেছেন। ট্রেলারে দেখা গিয়েছে, ঘটনার তদন্ত করতে উত্তরপ্রদেশের ওই গ্রামে যান আয়ুষ্মান। সেখানে দলিত মহিলাদের দেহ গাছের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান তিনি। তদন্তে উঠে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। পুলিশ জানতে পারে এই ধর্ষণকাণ্ডে উচ্চ ও নীচ ভেদাভেদ জড়িয়ে রয়েছে। উচ্চবর্ণের হওয়া সত্ত্বেও অপরাধের ক্ষেত্রে সেসব মানেননি আয়ুষ্মান।

[ আরও পড়ুন: প্রকাশ্যে নিরাপত্তারক্ষীকে কষিয়ে চড় সলমনের, ভাইরাল ভিডিও ]

ছবির এই ট্রেলার দেখেই ক্ষুব্ধ হয় পরশুরাম সেনা। অভিযোগ, ব্রাহ্মণদের মধ্যেও উচ্চবর্ণ মহান্তদের উপর প্রশ্নচিহ্ন উঠিয়েছে ছবি। তাদের অপরাধী হিসেবে প্রতিপন্ন করা হয়েছে। যা একেবারেই অনুচিত। পরশুরাম সেনার আরও বক্তব্য, যদি ‘পদ্মাবত’ ছবির বিরোধিতা করতে পারে ঠাকুররা, তাহলে নিজের সম্মান রক্ষার্থে তারাই বা ছবির বিরোধিতা করতে পারবে না কেন? এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় আন্দোলন করার কথাও জানিয়েছে তারা। এও বলেছে, পরিচালক অনুভব সিনহার সঙ্গে তারা যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছে। কিন্তু পরিচালক নাকি ফোন ধরছেন না।

২০১৪ সালে বদায়ুঁর এই ধর্ষণের ঘটনা গোটা দেশে তোলপাড় ফেলে দিয়েছিল। উত্তরপ্রদেশের কুরসিতে তখন ছিলেন অখিলেশ যাদব। পুলিশের তদন্তের পর দেখা যায় অভিযুক্তদের তালিকা বেশ লম্বা। পাপ্পু যাদব, অবধেশ যাদব, উর্বেশ যাদব, ছত্রপাল যাদব ও সর্বেশ যাদবের বিরুদ্ধে ছিল অভিযোগ। এদের মধ্যে আবার ছত্রপাল ও সর্বেশ যাদব পুলিশেরই কর্মী ছিল। অভিযুক্তদের নামের তালিকা প্রকাশ্যে আসার পর পুলিশের বিরুদ্ধে মামলায় মাথা না ঘামানোর অভিযোগ ওঠে। এও অভিযোগ, তৎকালীন যাদব সরকার ও সমাজবাদী পার্টির অঙ্গুলিহেলনেই মামলা থেকে হাত গুটিয়ে নিয়েছিল পুলিশ। শোনা যাচ্ছে, এই গোটা ঘটনাটাই নাকি তুলে ধরা হবে ছবিতে।

[ আরও পড়ুন: দেব ও জিতের ভক্তদের মধ্যে তুমুল হাতাহাতি বসুশ্রীতে, গুরুতর জখম ১ ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে