BREAKING NEWS

৭ মাঘ  ১৪২৮  শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

বিদেশি গানের সুর নকল ‘মিঠে আলো’য়! ক্ষুব্ধ সংগীত পরিচালকরা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 30, 2017 11:28 am|    Updated: August 7, 2021 1:12 pm

Atif Aslam’s first Bengali song ‘Mithe Alo’ copycat version of Jesse & Joy

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  সুর কি কম পড়িয়াছে! নইলে বিদেশি ব্যান্ডের গানের সুর কেন এমন হুবহু উড়ে এসে জুড়ে বসল বাংলা ছবির গানে! সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে ‘ককপিট’ ছবির গান ‘মিঠে আলো’। আর তারপর থেকেই ইন্ডাস্ট্রিতে ঘুরছে এই প্রশ্ন।

বাংলা ছবির গানের গৌরবের ইতিহাস তো কম নেই’। স্বর্ণযুগের কথা নয় তুলেই রাখা গেল। কিন্তু এই সেদিনও জাতীয় মঞ্চে বাংলার সুরকে সেরার স্বীকৃতি এনে দিয়েছেন কবীর সুমন। রূপঙ্কর বাগচী থেকে ইমন চক্রবর্তীরা তাঁদের গায়নে বাংলার জয়পতাকা উড়িয়েছেন। আর অনুপম রায়ের লেখনি ছিনিয়ে এনেছে জাতীয় স্বীকৃতি। বাংলা গানের এই সোনার দৌড়ে তাহলে কেন বিদেশি সুরের  হানাদারি? ‘মিঠে আলো’ গানটিতে কান পাতলেই শোনা  যাচ্ছে মেক্সিকান পপ তারকা Jesse and Joyএর  জনপ্রিয় গান ‘Corre’-এর সুর। সাদৃশ্য এতটাই প্রকট যে তা বুঝতে বিন্দুমাত্র অসুবিধা হচ্ছে না। ‘ককপিট’-এর এই ‘মিঠে আলো’ গানেই বাংলায় ডেবিউ করেছেন আতিফ আসলাম। তা নিয়ে উচ্ছ্বাসের শেষ নেই নানামহলে। গানটির জন্য সংগীত পরিচালক অরিন্দম চট্টোপাধ্যায়ও ইতিমধ্যেই সকলের প্রশংসা কুড়িয়েছেন। ইউটিউবে কয়েক লক্ষ দর্শক দেখে ফেলেছেন এই গান। কিন্তু সুরটাই যে চেনা চেনা ঠেকছে, বলছেন একাধিক সংগীতপ্রেমী। হ্যাঁ ঠিকই। ‘মিঠে আলো’র সুরটি যে মেক্সিকান পপ তারকা Jesse and Joyএর  জনপ্রিয় গান ‘Corre’ থেকে পুরোপুরি নকল তা নিয়ে কোনও সংশয় নেই।

এই সেই গান:

[বিতর্কের জেরেই কি ‘ককপিট’-এর টিজার থেকে সরানো হল প্রসেনজিৎকে?]

আতিফ একজন আন্তর্জাতিক তারকা। এ কীর্তিতে তাঁর কাছেই বা কী বার্তা পৌঁছাল? এ ধরনের কাজকে কি আদৌ প্রশ্রয় দেবে বাংলার বর্তমান সংগীত পরিচালকরা? ব্যাপারটা নিয়ে বেশ বিরক্তির সুর অনুপম রায়ের গলায়। সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল-কে তিনি জানান, “আমি কখনওই এই নকল করার বিষয়টিকে সমর্থন করি না। সেটা গান, ছবি, লেখা যাই হোক না কেন। যদিও আজকাল বহু লোকই সবক্ষেত্রে নকল করছে। কিন্তু এগুলো কখনই সমর্থনযোগ্য নয়। আমার মনে হয় এটা দর্শক বা শ্রোতাকে ঠকানো।আখেরে সেটা বাংলা গানেরই ক্ষতি।” অন্যদিকে ইন্দ্রদীপ দাশগুপ্ত মনে করেন, “বাংলায় আগেও প্রচুর কাজ হয়েছে যেখানে অন্য গান থেকে অল্পবিস্তর অনুপ্রাণিত হয়ে সুর করা হয়েছে। এমনকী আমি নিজেও অন্য গানের সুরে অনুপ্রাণিত হয়ে তা ব্যবহার করেছি আমার গানের প্রথম দু’লাইনে। সেরকম কাজ হয়েই থাকে। কিন্তু একটা গোটা গান পুরোটাই অন্য কেউ  হুবহু নকল করছে, তা দুঃখজনক। এটা শুধু বাংলা গানের জন্যই নয়, এটা যে করেছে তার কেরিয়ারের জন্যও খারাপ।”

[ভাঙড়ে অনুষ্কা-পরমব্রতর ছবির সেটে দুর্ঘটনা, বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত ১]

তবে এটাই প্রথম নয়, এর আগেও অরিন্দমের সুর করা জনপ্রিয় কয়েকটি গানের বিরুদ্ধে বিদেশি গান থেকে নকলের অভিযোগ উঠেছিল। আমেরিকান ব্যান্ড ‘Dirty Money’ র জনপ্রিয় গান ‘Coming Home’ এর সুরের সঙ্গে তাঁর তৈরি ‘শুধু তোমারই জন্য’ ছবির গান ‘এগিয়ে দে’-র মিল চোখে পড়ার মতো। গত বছর পুজোয় ‘গ্যাংস্টার’ ছবির দুটো গানের সুরেও লেগেছিল নকলের ছোঁয়া। ‘তোমাকে চাই’ গানটির সুরের মিল পাওয়া যায় ‘আজহার’ ছবির ‘ইতনি সি বাত হ্যায়’ গানটির সঙ্গে, আর অন্যদিকে ‘ঠিক এমনভাবে’ গানটি নকল করা হয়েছিল ইটালিয়ান পিয়ানোবাদক  Ludovico Einaudi-র সোলো পিয়ানো ট্র্যাক I Giorni থেকে। এবারও সেই বিদেশি গানেরই শরণাপন্ন হয়েছেন অরিন্দম, মিঠে আলো-র সুর অন্তত সে কথাই জানাচ্ছে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে