BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

দিল্লির হিংসায় উসকানিদাতাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নয় কেন? মোদিকে প্রশ্ন কঙ্গনার

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: August 22, 2020 2:21 pm|    Updated: August 22, 2020 2:22 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শুক্রবার টুইটারে অফিশিয়ালি পা রেখেই নতুন ভারত গড়ার ডাক দিয়েছিলেন কঙ্গনা রানাউত (Kangana Ranaut)। আর তার ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই এবার উত্তর-পূর্ব দিল্লি হিংসায় অন্যতম অভিযুক্ত তাহির হোসেনের কঠোরতম শাস্তির দাবি করলেন অভিনেত্রী।

প্রসঙ্গত, সিএএ-বিরোধী বিক্ষোভের সময় উত্তর-পূর্ব দিল্লি হিংসায় বড়সড় নাম তাহির হোসেন (Tahir
Hussain)। উপরন্তু ইন্টেলিজেন্স ব্যুরোর কর্মী অঙ্কিত শর্মা হত্যাকাণ্ডতেও তাহিরকে অন্যতম অভিযুক্ত হিসেবে গন্য করেছে দিল্লি পুলিশ। শনিবারই দিল্লি আদালতের তরফে জানানো হয়েছে যে, হিন্দু-মুসলিম সাম্প্রদায়িক হিংসায় যথেষ্ট মদত ছিল তাহিরের। তার বিরুদ্ধে যথেষ্ট প্রমাণও রয়েছে। ২৮ আগস্ট, আগামী শুনানির দিন সব অভিযুক্তকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আজ দিল্লি আদালতে সেই মামলার শুনানি উপলক্ষেই পুরনো ইস্যুকে হাতিয়ার করে আপ কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে গর্জে উঠলেন কঙ্গনা।

অভিনেত্রীর মন্তব্য, “বলিউড গ্যাংয়ের মতো এই ক্যান্ডেল মার্চ গ্যাং, অ্যান্টি সিএএ গ্যাং এরকম একাধিক গ্যাং রয়েছে, যারা কিনা দিল্লিতে দাঙ্গার সময় মদত যুগিয়েছিল। যার জেরে শত শত হিন্দু ও মুসলিমদের মৃত্যু হয়েছে।” “হিন্দু-মুসলিম সাম্প্রদায়িক হিংসার উসকানি দেওয়ার অভিযোগে এদের জন্যে কি ফৌজদারি আইনে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হবে না?”, টুইটারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে মেনশন করে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছেন কঙ্গনা। উল্লেখ্য, এর আগে তাহিরের পাশে দাঁড়িয়ে আইনি বিপাকে পড়তে হয়ছিল জাভেহ আখতারকে। আর তার রেশে ধরেই যে ‘বলিউডি গ্যাং’ বলে কটাক্ষ কঙ্গনার, তা বোধহয় আর আলাদা করে বলার প্রয়োজন পড়ে না!

[আরও পড়ুন: দরজার লক ভাঙতেই চাবিওয়ালাকে চলে যেতে বলেন সিদ্ধার্থ পিঠানি, সুশান্ত ইস্যুতে নয়া তথ্য]

প্রসঙ্গত, এবছরের ফেব্রুয়ারি মাসে দিল্লিতে গোষ্ঠী সংঘর্ষের সময়ে তাহিরের নাম প্রকাশ্যে আসে। পুলিশের তদন্ত রিপোর্টে বলা হয়েছে, নিজের বাড়ির ছাদে পাথর, কাঁচের বোতল, পেট্রল, অ্যাসিড মজুত করেছিল তাহির। তাঁর এক সাগরেদ খালিদ সইফি রাস্তায় বিক্ষোভ দেখানোর জন্য লোক জড়ো করেছিল। খালিদ সইফি, ইসরাত জাহানরা শাহিনবাগের আদলে খুরেজি এলাকাতে বিক্ষোভ সমাবেশ শুরু করে। পুলিশের দাবি, জিজ্ঞাসাবাদের সময়ে তাহির স্বীকার করেছে, ৪ ফেব্রুয়ারি খালিদের সঙ্গে দেখা করে সংঘর্ষের ছক কষেছিল সে। ঠিক হয়েছিল, সিএএ-বিরোধী বিক্ষোভকারীদের উসকে দিয়ে দিল্লিতে গোলমাল বাঁধানো হবে। উপরন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্পের সফরের সময়ে বড় কোনও ঘটনা ঘটিয়ে সরকারকে চাপে ফেলার পরিকল্পনাও নাকি ছিল তাঁদের। আজ দিল্লি আদালতে সেই মামলার শুনানির পরই তাদের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত।

[আরও পড়ুন: ‘আমার অ্যাজেন্ডা একটাই, রাষ্ট্রবাদ!’, নতুন ভারত গড়ার ডাক দিলেন কঙ্গনা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement