×

৪ ফাল্গুন  ১৪২৫  রবিবার ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চেনা মানুষের অচেনা দিকের সঙ্গে পরিচিত হওয়া সবসময় সুখকর নয়। #MeToo আন্দোলন প্রসঙ্গে বললেন মাধুরী দীক্ষিত। জানালেন, অলোকনাথ, সৌমিক সেনের মতো মানুষের সঙ্গে নিকট সম্পর্কই ছিল তাঁর। কিন্তু, #MeToo আন্দোলনের জেরে তাঁদের অজানা দিক জানার পর বেশ অস্বস্তিই হয়েছিল অভিনেত্রীর।

বিয়ের প্রশ্নে মেজাজ হারালেন আলিয়া, কিন্তু কেন?

এক সাংবাদিক বৈঠকে তাঁকে #MeToo আন্দোলন ও তাতে জড়িয়ে পড়া একসময়ের সহকর্মী অলোকনাথ এবং পরিচালক সৌমিক সেনের বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়। সেখানেই মাধুরী জানান, অলোকনাথের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে জেনে হতভম্ব হয়ে গিয়েছিলেন তিনি। ‘হাম আপকে হ্যায় কৌন’, ‘জামাইরাজা’-সহ বহু হিট ছবিতে মাধুরীর সঙ্গে অভিনয় করেছেন অলোকনাথ। সব ক্ষেত্রেই মাধুরীর গুরুজনের ভূমিকায় দেখা গিয়েছে তাঁকে। তাঁর সঙ্গে মাধুরীর কাজের সম্পর্কও ছিল রীতিমতো ভাল। সেই অলোকনাথের নামেই #MeToo অভিযোগের কথা জেনে প্রথমে বিশ্বাস করতে পারেননি মাধুরী। ঠিক ততটাই বিস্মিত হয়েছিলেন #MeToo আন্দোলনে পরিচালক সৌমিক সেনের নাম ওঠায়। মাধুরীর সাম্প্রতিক হিট ছবি ‘গুলাব গ্যাং’-এর পরিচালক সৌমিক। মাধুরী বলেন, “ব্যাপারটা শকিং। কারণ প্রথমেই মনে হবে। এঁদের তুমি চেনো কিন্তু, এভাবে চেনো না। মনে হবে যে লোকটাকে তুমি চিনতে আর যার সম্পর্কে খবরে পড়ছ সেই দু’জন আলাদা মানুষ।”

এবার পর্দায় গোয়েন্দাগিরি করবেন সলমন! তুঙ্গে চর্চা

প্রসঙ্গত, অলোকনাথের বিরুদ্ধে #MeToo অভিযোগ এনেছিলেন চিত্রনাট্যকার ও পরিচালক বিনতা নন্দা ও অভিনেত্রী সন্ধ্যা মৃদুল। সৌমিক সেনের বিরুদ্ধে #MeToo অভিযোগ দায়ের করেন তিনজন মহিলা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং