BREAKING NEWS

০৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  বুধবার ২৫ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

নেতাজি হয়ে বাংলায় ঢুকতে চেয়েছিল ভণ্ড রাম রহিম

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 31, 2017 1:37 pm|    Updated: October 1, 2019 5:11 pm

OMG! Ram Rahim Singh had plans to enter Bengali film industry!

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এখন গারদে। তাও নাটকের শেষ নেই। মাত্র কয়েকদিনেই ধর্ষক বাবা রাম রহিমের জ্বালায় তিতিবিরক্ত কারারক্ষীরা। আবার জেলের বাইরে এসি গাড়িতে ধরনায় বসে বাবার পালিত কন্যা হানিপ্রীত। দাবি, বাবার সঙ্গে থাকতে দিতে হবে তাঁকেও। কারণ বাবার ব্যথা নাকি একমাত্র তিনিই সারাতে পারেন। শোনা গিয়েছে, ধর্ষণের সাজা থেকে বাঁচতে নিজেকে নপুংসক বলে দাবি করেছিল ভণ্ড বাবা। এদিকে আবার বাবার বিলাসবহুল বাড়ি থেকে আপত্তিকর ভিডিও ও মুঠো মুঠো কন্ডোম বাজেয়াপ্ত করেছেন গোয়েন্দারা। বাবাজির কাণ্ডকারখানার শেষ নেই। এবার ফাঁস হল নয়া তথ্য। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের দাবি, বাংলা ছবি তৈরি করতে চেয়েছিল গুরমিত রাম রহিম সিং ইনসান। কাকে নিয়ে তার সিনেমা তৈরির পরিকল্পনা ছিল জানেন? নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু।

Netaji-PM

হ্যাঁ, ঠিকই পড়ছেন। জানা গিয়েছে, বলিউডে তার এমএসজি সিরিজ না চলায় আঞ্চলিক সিনেমা তৈরির পরিকল্পনা ছিল রাম রহিমের। আর তার নজর ছিল টলিউডের দিকেই। ঐতিহাসিক কাহিনি নিয়ে সিনেমা করতে চেয়েছিল সে। এই কারণেই নেতাজির চরিত্রকে বেছেছিল। ঠিক হয়েছিল, ছবির সহ-পরিচালক হবে হানিপ্রীত। নভেম্বরে কলকাতায় আসার কথা ছিল বাবা ও তার দলবলের। ছবির বিভিন্ন চরিত্রের জন্য টলিউডের অনেক শিল্পীর নামও নাকি বাছা হয়েছিল। তালিকায় একাধিক অভিনেত্রীর নামও ছিল। যাঁদের মোটা টাকার অফার দেওয়ার কথা ভাবা হয়েছিল।

[মহিলা ঘটিত অপরাধে শীর্ষে বিজেপির নেতারা, সমীক্ষায় অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির]

১৫ আগস্টই বাবার নতুন ছবি ‘এমএসজি অনলাইন গুরুকুল’ মোশন পোস্টার বেরিয়েছিল। সেই সিনেমার পাশাপাশিই নেতাজির জীবনকাহিনি নিয়ে বাংলা ছবি তৈরির পরিকল্পনা ছিল রাম রহিমের। এর জন্য শহরের এসে বসু পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলার ইচ্ছেও ছিল তার। কেন নেতাজি অন্তর্ধানের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন? স্বাধীনতার পর তিনি ফিরে এলেই বা কী হত? তাই নাকি সিনেমায় তুলে ধরার কথা ছিল রাম রহিমের। কিন্তু তা আর সম্ভব হল না। কারণ পৃথক দু’টি ধর্ষণের মামলায় ২০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের সাজা হয়েছে ডেরা সাচা প্রধানের। তাই এখন তার ঠিকানা গারদের ওপারেই।

[ফসল বাঁচাতে স্কুলে বন্দি গরুর পাল, পড়াশোনা লাটে যোগীর রাজ্যের স্কুলে]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে