BREAKING NEWS

২৭ আষাঢ়  ১৪২৭  রবিবার ১২ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

হোটেলে দু’টো কলা অর্ডার দিয়েছিলেন, দাম জেনে ভিরমি খাওয়ার জোগাড় রাহুল বোসের

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: July 23, 2019 8:23 pm|    Updated: July 23, 2019 8:23 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কে বলে যে ফল স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক নয়? প্রশ্ন ছুঁড়েছেন অভিনেতা রাহুল বোস। তাঁর যাবতীয় রাগ গিয়ে পড়েছে কলার উপর। তা কী এমন ঘটল যার জন্যে রাহুল ফল খাওয়া স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক বলে ঘোষণা করলেন? শুনুন তাহলে।

[আরও পড়ুন: যৌনতা সংক্রান্ত যাবতীয় সামাজিক ট্যাবু ভাঙার গল্প নিয়ে আসছেন সোনাক্ষী]

আসলে রাহুল সম্প্রতি শুটিংয়ের জন্য এক বিলাসবহুল পাঁচতারা হোটেলে ছিলেন দিন কয়েক। ব্যস্ততার জন্য সেই হোটেলেই প্রাতঃরাশ থেকে মধ্যাহ্নভোজ, নৈশভোজ সারছিলেন। একরাত কাটানোর পর সকালে সেই পাঁচতারা হোটেলের জিমে ঢুকে পড়েন শরীরচর্চা সারতে। ডায়েটের নিয়মানুযায়ী সেখান থেকেই প্রাতঃরাশের জন্য দুটো কলা অর্ডার করেন তিনি। আর সেখানেই ঘটে বিপত্তি। প্রাতঃরাশ সারার পর তাঁর টেবিলে যখন বিল আসে, মেটাতে গিয়ে তিনি তো হতবাক। বিল দেখেই চক্ষু চড়ক গাছ হয় অভিনেতার। তা কত টাকা বিল হলে, এমন অবস্থা হতে পারে? আন্দাজ করুন দেখি! না, এ আমার কিংবা আপনার আন্দাজের বাইরে। একজোড়া কলার দাম মেটাতে গিয়ে অভিনেতার বুকের বাঁদিকে খানিক চিনচিনে ব্যথাও উঠেছিল বটে! এবার প্রশ্ন, তা দুটো কলার দাম কত ছিল? ৪৪২ টাকা। এখানেই শেষ নয়, তাঁর সঙ্গে জুড়ে দিন অতিরিক্ত জিএসটি। আর এই গোটা ঘটনায় রাহুল বোস এতটাই হতবাক হয়েছেন যে পুরো ব্যাপারটিকে মজাচ্ছলে শেয়ার করেছেন তাঁর সোশ্যাল সাইটে। সঙ্গে জুড়ে দিয়েছেন একটা ভিডিও। আর তার ক্যাপশনেই অভিনেতা ব্যাঙ্গাত্মকভাবে লিখেছেন, “কে বলেছে ফল শরীরের পক্ষে ক্ষতিকারক নয়? আর এটা বিশ্বাস করার জন্য আপনাকে এই ভিডিওটি দেখতেই হবে।”  

[আরও পড়ুন: দেশজুড়ে গণপিটুনিতে হত্যা নিয়ে সরব নাসিরুদ্দিন, দাঁড়ালেন আক্রান্তদের পরিবারের পাশে]

এক ছবির শুটিংয়ের জন্য রাহুল আসলে রয়েছেন চণ্ডীগড়ের জেডব্লিউ ম্যারিয়টে। আর সেখানেই ঘটেছে এই ঘটনা। সাধারণত, পাঁচতারা হোটেলের কথা শুনলেই খাবার কিংবা মদের দাম হিসেব করলে বুক করার আগেই আমাদের আত্মারাম খাঁচাছাড়া হয়ে যায়। আর রাহুল নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ঘটনা শেয়ার করার পরই তা নজর কেড়েছে নেটিজেনদের। কেউ কেউ তো আবার কমেন্টও করে বসেছেন যে, “স্যর, পরেরবার যখন আপনি যাবেন তখন বানানা-শেকের জন্য আপনার কাছ থেকে একটা আইফোনের সমান দাম চেয়ে বসবে এঁরা!” কেউ আবার প্রশ্ন ছুঁড়েছে, “এটা কি বিদেশ থেকে আমদানি করা বিশেষ মানের কলা ছিল?”

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement