২২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  সোমবার ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  সোমবার ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চলচ্চিত্র উৎসবের প্রথমদিন অমিতাভ বচ্চনকে পায়নি কলকাতা। শেষদিন সেই অভাব মিটল। সশরীরে অবশ্য এদিনও উপস্থিত থাকতে পারলেন না শাহেনশা। কিন্তু কলকাতাবাসীর উদ্দেশে তিনি একটি ভিডিওবার্তা পাঠিয়েছেন। তবে উৎসবের সমাপ্তি অনুষ্ঠানে শাবানা আজমির উপস্থিতিতে আপ্লুত তিলোত্তমা। শহরের জন্য এদিন মঞ্চ থেকে ভালবাসা ব্যক্ত করলেন পাঁচবার জাতীয় পুরস্কারে সম্মানিত অভিনেত্রী।

চলচ্চিত্র উৎসবের উদ্বোধনের দিনের মতো এদিনও মঞ্চের মধ্যমণি ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শাবানা আজমি ছাড়াও চলচ্চিত্র উৎসবের শেষদিন নজরুল মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন মাধবী মুখোপাধ্যায়, গৌতম ঘোষ, অরিন্দম শীল, শুভশ্রী, আবির চট্টোপাধ্যায়, রঞ্জিত মল্লিকের মতো টলিউডের অনেকে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন শাবানা আজমি। অনুষ্ঠান শেষে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, এই চলচ্চিত্র উৎসবের আমন্ত্রণ পেয়ে তিনি সম্মানিত। এর কৃতিত্ব তিনি দেন মুখ্যমন্ত্রীকে। মুখ্যমন্ত্রী যে পুরস্কার হিসেবে অর্থমূল্য রেখেছেন, তারও প্রশংসা করেন অভিনেত্রী। বলেন, চলচ্চিত্রের উন্নতির জন্যই এটি দরকার। বিভিন্ন সংস্কৃতি ও বৈচিত্রের সঙ্গে পরিচিত হওয়ার জন্য সিনেমা যে সবচেয়ে উপযোগী মাধ্যম, নিজের বক্তব্যে তাও বলেন শাবানা।

[ আরও পড়ুন: বাঁচাতে পারলেন না নওয়াজ, দুর্বল চিত্রনাট্যেই ডুবল ‘মোতিচুর চকনাচুর’ ]

সমগ্র উৎসব সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন হওয়ার জন্য আজ পুলিশ ও প্রশাসনকে ধন্যবাদ দেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজ চক্রবর্তীকে নির্দেশ দেন, পরের বছরের জন্য যেন তিনি ও তাঁর টিম এখন থেকেই ভাবনাচিন্তা শুরু করে। আমন্ত্রিত বিদেশি অতিথিদের এদিন শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী তাঁদের আবার কলকাতায় আসার আমন্ত্রণ জানান। এও বলেন, চলচ্চিত্র উৎসব চলাকালীন যদি তাঁদের কোনও অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয়, তাহলে তিনি নিজে আন্তরিকভাবে ক্ষমাপ্রার্থী। এদিন তিনি জুরিদেরও ধন্যবাদ দেন।

এবছর চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা পরিচালক (ভারতীয় ভাষা) হিসেবে পুরস্কৃত হয়েছেন ইন্দ্রাশিস আচার্য। ‘পার্সেল’ ছবির জন্য হীরালাল সেন মেমোরিয়াল অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন তিনি। সেরা ছবি হিসেবে এই পুরস্কার জিতেছে ‘মাই ঘাট ক্রাইম নং ১০৩-২০০৫’। এই ছবিটি পরিচালনা করেছেন অনন্ত মহাদেবন। সেরা তথ্যচিত্র হিসেবে গোল্ডেন রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার অ্যাওয়ার্ড জিতেছে গৌরব পুরির ‘আবরিগেদ’। শর্টফিল্মের ক্যাটাগরিতে এই পুরস্কার পেয়েছে ‘সামার রহাপসোদি’। এছাড়া ‘দ্য গডেস অ্যান্ড দ্য হিরো’ সেরা ছবি হিসেবে NETPC পুরস্কারে সম্মানিত হয়েছে। ভারতীয় ভাষার ছবি হিসেবে স্পেশ্যাল জুরি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে ‘রান কল্যাণী’। আন্তর্জাতিক বিভাগে স্পেশ্যাল জুরি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে ‘শপিয়া ই এজ’। আন্তজাতিক ছবির প্রতিযোগিতা বিভাগে ‘লা লোরোনা’ পেয়েছে গোল্ডেন রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার অ্যাওয়ার্ড। এই বিভাগেই সেরা পরিচালক হিসেবে গোল্ডেন রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার অ্যাওয়ার্ড জিতে নিয়েছেন নবারভেনে টেস।

[ আরও পড়ুন: অপুর প্রত্যাবর্তন, নস্ট্যালজিয়া উসকে দিয়ে মুক্তি পেল ‘অভিযাত্রিক’-এর ফার্স্টলুক ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং