২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

ড্রাগ পাচারকারীদের আশ্রয়দাতা পর্দার ‘পিএম নরেন্দ্র মোদি’! বিবেক ওবেরয়ের বাড়িতে তল্লাশি পুলিশের

Published by: Paramita Paul |    Posted: October 15, 2020 3:26 pm|    Updated: October 15, 2020 6:07 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কন্নড় ফিল্ম ইন্ড্রাস্ট্রিতে ড্রাগ সরবরাহে অভিযুক্ত লুকিয়ে রয়েছে বলিউড অভিনেতা বিবেক ওবেরয়ের (Vivek Oberoi) বাড়িতে! এই অভিযোগে বৃহস্পতিবার দুপুরে তাঁর মুম্বইয়ের বাড়িতে হানা দিল কর্ণাটক পুলিশ। দীর্ঘক্ষণ তল্লাশি চালায় তাঁরা। তবে অভিযুক্তের সন্ধান মেলেনি। বিবেক ওবেরয় অভিনীত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বায়োপিক রূপালি পর্দায় দ্বিতীয়বার মুক্তি পাওয়ার মুখে ফের বিতর্কে জড়ালেন এ বলিউড অভিনেতা।

কন্নড় সিনেমার দুনিয়ায় স্যান্ডলউড ড্রাগ পাচার নিয়ে তোলপাড় চলছে। ইতিমধ্যে এ চক্রে যুক্ত থাকার অভিযোগে নামী গায়িকা ও অভিনেতা-সহ ১৫ জন গ্রেপ্তারও হয়েছে। কন্নড় সেলেবদের কাছে ড্রাগ পৌঁছে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে কর্ণাটকের প্রাক্তন মন্ত্রী জীবরাজ আলভার ছেলে আদিত্য আলভার বিরুদ্ধে। তিনি আবার সম্পর্কে বিবেক ওবেরয়ের শ্যালক। অভিযোগ ওঠার পর থেকেই আদিত্য বেপাত্তা। তাঁর খোঁজে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে তল্লাশি চালিয়েছে পুলিশ কিন্তু হদিশ মেলেনি। লিউড অভিনেতার বাড়িতে সে লুকিয়ে রয়েছে বলে গোপন খবর পায় কর্ণাটকের পুলিশ। সেই খবরের উপর ভিত্তি করে এদিন দুপুরে তাঁর বাড়িতে চড়াও হয়। যদিও জামাইবাবুর বাড়ি থেকে শ্যালকের হদিশ মেলেনি।

[আরও পড়ুন : তানিষ্কের ‘বিতর্কিত’ বিজ্ঞাপনের বাস্তবায়ন! মুসলমান পরিবারে হিন্দু পুত্রবধূর সাধের আয়োজন]

বেঙ্গালুরু পুলিশের যুগ্ম কমিশনার সন্দীপ পাটিল জানান, “আদিত্য আলভা পলাতক। বিবেক ওবেরয় তাঁর আত্মীয়। আমরা খবর পেয়েছিলাম, আদিত্য এখানে আত্মগোপন করে আছে। তাই কোর্টের অর্ডার নিয়েই আমাদের অপরাধ দমন শাখার সদস্যরা মুম্বই গিয়েছে।”

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির বায়োপিক দ্বিতীয়বার বিভিন্ন হলে মুক্তি পেয়েছে। তাতে প্রধানমন্ত্রীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন বিবেক। এর আগে এই সিনেমার প্রযোজকের বিরুদ্ধেও মাদক নেওয়ার অভিযোগ ওঠে। মাদক কাণ্ডে বলিউডেও তোলপাড় চলছে। এমন পরিস্থিতিতে ড্রাগ পাচারে অভিযু্ক্ত শ্যালকের খোঁজে অভিনেতার বাড়িতে পুলিশি হানা, তাঁকে যে বিপাকে ফেলবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

[আরও পড়ুন : সুশান্ত মামলার তদন্ত শেষ! শীঘ্রই আদালতে রিপোর্ট জমা দিতে পারে সিবিআই]

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement