BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

কতটা চ্যালেঞ্জিং ছিল আমাজন অভিযান-এর শুটিং? জানালেন দেব

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: December 10, 2017 9:39 am|    Updated: September 20, 2019 1:23 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আফ্রিকার পর শঙ্করের অভিযান এবার আমাজন-এর জঙ্গলে। পদে পদে বিপদ। শাপদশঙ্কুল অরণ্য। মৃত্যুর হাতছানি। ভয়ের ছায়া পড়ছে প্রতি পদক্ষেপে। সেই চ্যালেঞ্জ অতিক্রম করেই অভিযানে শঙ্কর। এবং অবশেষে সব বিপদ কাটিয়ে ওঠা। বাঙালির অ্যাডভেঞ্চারের নেশাকে উসকে দিতেই আসছে ‘আমাজন অভিযান’। তা সে অভিযানের শুটিং কতটা চ্যালেঞ্জিং ছিল? ভিডিও শেয়ার করে সে কথাই জানালেন নায়ক দেব

হুমকি এখন নয়া সেন্সরশিপ, ‘পদ্মাবতী’ বিতর্কে কটাক্ষ আদালতের ]

চাঁদের পাহাড়-এর অ্যাডভেঞ্চারে মজেননি এমন বাঙালি খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। বছর কয়েক আগে তা উঠে এসেছিল রুপোলি পর্দায়। সৌজন্যে পরিচালক কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায়। বাঙালির অতিপ্রিয় উপন্যাসকে তিনি সিনেমার ভাষায় অনুবাদ করেছিলেন। চ্যালেঞ্জ কম ছিলেন না। নিজের কাঁধেই দায়িত্ব নিয়েছিলেন। নানাবিধ সমালোচনা থাকলেও সে ছবি বাংলা ছবির ইতিহাসে নিঃসন্দেহে এক মাইলফলক। তবে তারপর আরও বড় অভিযানে শামিল পরিচালক। সঙ্গী করে নিয়েছেন শঙ্করকেই। মাথার উপর আছেন বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে এবার পরিচালকের একলা পথ চলা। এবার ফ্যান ফিকশনে উঠে এসেছে শঙ্করের কাহিনি। যা ‘আমাজন অভিযান’। ছবিমুক্তি আসন্নপ্রায়।

বিমানে ‘শ্লীলতাহানি’র শিকার, চোখে জল অভিনেত্রী জায়রা ওয়াসিমের ]

চাঁদের পাহাড়-এ পরিচালক যে চ্যালেঞ্জ নিয়েছিলেন ভাবনায়, তা বাস্তবে ফুটিয়ে তোলার দায়িত্ব বর্তেছিল নায়ক দেবের কাঁধে। শঙ্কর বাঙালির কাছে সত্যিই স্বপ্নের নায়ক। ছবির নায়ক হয়ে সেই ভাবনার নায়ককে বাস্তব করে তোলা চাট্টিখানি কথা নয়। পরীক্ষায় সফল হয়েছিলেন দেব। এবার তাই আমাজন অভিযানের ঝুঁকিও তিনি নিয়েছেন। শুধু ঝুঁকি নিয়েছেন বলা ভুল, ট্রেলারেই ইঙ্গিত মিলেছে, কোন মাত্রায় এ ছবিকে নিয়ে যেতে চেয়েছেন বা পেরেছেন তিনি।

[ ‘পাশে আছি জায়রা’, অভিনেত্রীকে কাঁদতে দেখে সমব্যথী দেশবাসী ]

তবে এ তো গেল ভাবনার কথা। আসলে চিত্রনাট্য থেকে পর্দার দূরত্বের মধ্যে থাকে শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা। সেও আর এক অভিযান। সেখানেও পদে পদে অ্যাডভেঞ্চার। সে সব কথাই ফ্যানদের সঙ্গে ভাগ করে নিলেন দেব। প্রথমদিনের শুটিংয়ের ভিডিও তুলে রেখেছিলেন। এতদিনে তা প্রকাশ্যে আনলেন। তা কী আছে সে ভিডিওতে? দেখলেই আঁচ পাওয়া যায়, কোন পরিস্থিতিতে, কত প্রতিকূলতার মধ্যে চলেছে শুটিং। প্রতি মুহূর্তে বিপদের আশঙ্কা। সাপখোপ-মাকড়সা, গর্ত কিছুই বাকি নেই। একটা ভগ্নপ্রায় কাঠের সাঁকোর উপর দিয়ে যাতায়াত। ইউনিটের সকলকেই তাই সতর্ক থাকতে বলা হয়েছিল। ব্রাজিলের এক জলপ্রপাতের সামনে চলছিল শুটিং। চারিদিকে জঙ্গল। কাছেই আছে গুহা। কল্পনায় বাঙালি এতদিন যা ভেবে এসেছে, তাইই ধরা পড়েছে লেন্সে। নায়ক তাই বলছেন, ‘অ্যাডভেঞ্চার ইন ফুল সুইং’।

‘স্বাধীনতায় হাত দিলে কেজরিকে নিয়ে সিনেমা মুক্তি পেত না’ ]

অ্যাডভেঞ্চারের নেশা যে ইন্ডাস্ট্রিতেও মাতন লাগিয়েছে তাও বলার অপেক্ষা রাখে না। নিঃসন্দেহে এ ছবি বছরের বড় রিলিজ। তাও আবার এরকম একটা বিষয়, যা নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ করতে উদগ্রীব বাঙালি দর্শক। শঙ্করকে অ্যাডভেঞ্চারে মেতে উঠতে দেখার আনন্দ যেমন আছে, তেমনই প্রিয় শঙ্করের কোনওরকম বিচ্যুতিও নিশ্চিত মেনে নেবেন না দর্শক। সুতরাং শুটিংয়েও যেমন ঝুঁকি। সিনেমাতেও। কাহিনিতে পরিচালকের ইশারা শঙ্করকে সব বিপদ পার করে দেবে। আর বাস্তবে? হলফেরত জনতার মন কতটা প্রফুল্ল হবে? উত্তরের জন্য আরও খানিকটা অপেক্ষা করতে হবে। ছবি মুক্তি পাচ্ছে আগামী ২২ ডিসেম্বর। তার আগে দেখে নেওয়া যাক এই ভিডিওটি-

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement