১১ বৈশাখ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৫ এপ্রিল ২০১৯ 

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও #IPL12 ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

বাড়ি কোচবিহার। হিন্দি সিরিয়ালের সুপারস্টার। বলিউডে আজকে তাঁর নায়কের তালিকায় অক্ষয়-আমির-রণবীর কাপুর। মৌনী রায়। সামনে অহনা ভট্টাচার্য

কোচবিহার থেকে মুম্বই, ভায়া দিল্লি। জার্নিটা কেমন?
মৌনী: অবিশ্বাস্য! কোচবিহার, দিল্লি আর মুম্বই আমার কাছে তিনটে আলাদা জীবনের মতো। আমার পাশে থাকার জন্য আমি সব সময় পরিবার আর বন্ধুদের কাছে কৃতজ্ঞ থাকব। আজ পর্যন্ত যা কাজ করেছি, তাতে আমি খুব খুশি। রোজ সকালে খুশি মনে ঘুম থেকে উঠি, এটাই আমার সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি।

দশ বছর টেলিভিশনের পর বলিউড। ছবি না টিভি, কোনটায় আপনি বেশি স্বচ্ছন্দ?
মৌনী: দুটোই খুব ভাল লাগে। ফিল্ম হোক বা টিভি, আমার কাছে স্ক্রিপ্ট আর চরিত্র সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

ছবিতে কাজের চাপ বেশি থাকে?
মৌনী: না না। প্রতি মাসে দু’তিন দিন ছুটি পাই। ফিল্মে কাজের সময়টা একটু ফ্লেক্সিবল। টিভিতে শুধু কাজ, কাজ আর কাজ।

তার মানে ছবিতে কাজ করে আপনি বেশি খুশি?
মৌনী: আমি টিভিতে অখুশি ছিলাম না। টেলিভিশন আমার বাড়ি। দশ বছর কাজ করেছি টিভিতে। ভাল ভাল কাজ পেয়েছি আর কাজটা উপভোগ করেছি। ফিল্মেও করছি। সবে তো বছর দেড়েক হল ছবি করছি। এত তাড়াতাড়ি মন্তব্য করা যায় না।

টেলিভিশন অভিনেত্রীদের যেটা খেয়াল রাখতে হয় না, কিন্তু বলিউড নায়িকাদের সচেতন থাকতেই হয়, সেটা হল ‘এয়ারপোর্ট লুক’। এয়ারপোর্টে কী পরবেন সেটা কি এখন আপনি নিজেই ঠিক করেন?
মৌনী: আমি এ সব নিয়ে স্ট্রেস নিই না। কোথায় কী পরব সেটা আমার স্টাইলিস্ট ঠিক করে। ওরা যা দেয়, পরে ফেলি। অ্যাওয়ার্ড ফাংশনে কী পরব সেটা নিয়ে ভাবনাচিন্তা করতে হয়। কিন্তু এয়ারপোর্টে কী পরব সেটা নিয়ে মাথা ঘামাব কেন? আমার জীবনে আরও অনেক স্ট্রেস রয়েছে। তাই এসব নিয়ে ভেবে সময় নষ্ট করতে চাই না।

[ আরও পড়ুন: হুমায়ূন আহমেদের কাছে বিশেষভাবে ঋণী জয়া আহসান, কেন? ]

‘ব্রহ্মাস্ত্র’-য় অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা কেমন?
মৌনী: স্বপ্ন সত্যি হওয়ার মতো অভিজ্ঞতা! ওঁর সঙ্গে কাজ করার সুযোগ যে পেয়েছি, তাতেই আমি খুব খুশি।

‘ব্রহ্মাস্ত্র’-য় কাজ করার সুবাদে আপনি এবং পরিচালক অয়ন মুখোপাধ্যায় বেশ ভাল বন্ধু হয়েছেন। ওঁর সঙ্গে কাজ করতে কেমন লাগছে?
মৌনী: হি ইজ আ লিটল পিস অফ মাই হার্ট। আই লা-আ-আ-আ-আ-ভ হিম। অয়ন অসাধারণ একজন মানুষ। ব্রিলিয়ান্ট পরিচালক। ‘ব্রহ্মাস্ত্র’-র জন্য যে পরিমাণ সময় এবং পরিশ্রম করছে, দেখে শেখার মতো। আমি চাই ছবিটা যেন ব্লকবাস্টার হয়।

আপনার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে বেশ লেখালেখি হয়। কারও সঙ্গে নাম জড়ালে বা সম্পর্ক নিয়ে গুজব ছড়ালে রেগে যান?
মৌনী: মোটেই না। আমার কিচ্ছু এসে যায় না। এ ধরনের খবরকে আমি জাস্ট পাত্তা দিই না।

বাংলা ছবিতে কাজ করেন না কেন?
মৌনী: অফার পেলে তো করব! বাংলা ছবির অফারই পাই না। সবাই আমাকে এটা জিজ্ঞেস করে। বাংলা ছবিতে কাজ করতে আমি খুব ইচ্ছুক। আসলে আমি কোনও দিন কলকাতায় থাকিনি। তাই হয়তো…

টিভিতে ভাল অফার পেলে ফিরবেন?
মৌনী: ফেরার প্রশ্ন আসছে কেন? আমি তো টেলিভিশনেরই লোক। তবে এই মূহূর্তে হাতে একদম সময় নেই। এপ্রিলে ‘মেড ইন চায়না’-র বাকি শুটিং শুরু হবে। মে-জুনে ‘বোলে চুড়িয়াঁ’-র শুটিং। এক বছর ধরে চলবে, এমন কোনও টিভি শোতে এখন কাজ করতে পারব না।

এর পর কী ধরনের ছবিতে কাজ করতে চান?
মৌনী: একটা ভারতীয় ব্রডওয়ে মিউজিক্যাল ছবিতে কাজ করতে চাই, যেখানে নাচ করার ভাল সুযোগ পাব, বিশেষত কত্থক।

[ আরও পড়ুন: পয়লা বৈশাখে স্পেশ্যাল বৈশাখী মেনু, পাত সাজান ইলিশে ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং