৪ কার্তিক  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২২ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নরেশ আগরওয়ালকে দলে নিয়ে এখন ঘোর অস্বস্তিতে বিজেপি। সমাজবাদী পার্টি রাজ্যসভা নির্বাচনে তাঁকে টিকিট না দেওয়ায় দল ছাড়েন নরেশ। জয়া বচ্চনকে প্রার্থী করায় নাচ-গান করা মহিলা বলে বিদ্রুপ করেন। নরেশের কু-কথার প্রতিবাদ এসেছে বিজেপির অন্দর থেকে। সুষমা স্বরাজ থেকে স্মৃতি ইরানি। মুখ খুলেছিলেন দুই গুরুত্বপূর্ণ মুখ। সংসদেও এই নিয়ে ঝড় উঠেছে।

সোমবার সপার এই ওজনদার নেতাকে কার্যত জামাই আদর করে বিজেপিত নেওয়া হয়েছিল। খোদ রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল বিজেপিতে বরণ করে নিয়েছিলেন অখিলেশ ঘনিষ্ঠ নেতা নরেশ আগরওয়ালকে। গেরুয়া শিবিরে অভিষেকের দিনে বেফাঁস মন্তব্য করে বসেন নরেশ। জানিয়ে দেন অখিলেশ তাঁকে রাজ্যসভার ভোটে প্রার্থী না করায় দল ছেড়েছেন। আর তাঁর বদলে অখিলেশরা টিকিট দিয়েছেন জয়া বচ্চনকে। জয়ার নাম না করে নরেশ বলেন, সিনেমায় নাচ-গান করা এক মহিলার সঙ্গে তাঁর তুলনা করাটা খুবই বেমানান। এটা খুব যন্ত্রণাদায়ক। এমন মন্তব্যের পরই বিরোধীদের পাশাপাশি বিজেপির অন্দর থেকে শুরু হয় সমালোচনা। সঙ্গে ড্যামেজ কন্ট্রোলে। বিদেশমন্ত্রী তথা বিজেপির প্রথম সারির নেত্রী সুষমা স্বরাজ টুইটারে নরেশকে নিশানা করেন। সুষমা লেখেন, নরেশজিকে বিজেপিতে স্বাগত। তবে জয়া বচ্চন সম্পর্কে তাঁর এই মন্তব্য একেবারেই ঠিক হয়নি। কোনওভাবে তা মেনে নেওয়া যায় না। কড়া প্রতিক্রিয়া জানান স্মৃতি ইরানিও। তবে নরেশের নাম না করে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী টুইটারে লেখেন, মহিলাদের সঙ্গে নানা অছিলায় অসম্মান করার প্রবণতা চলছে। এটা বন্ধ হওয়া দরকার।

[‘কুলভূষণের সঙ্গে পাকিস্তানে যোগ্য আচরণ’, সপা সাংসদের মন্তব্যে শোরগোল]

মঙ্গলবার নরেশের এই বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে সংসদের দুই কক্ষে তুমুল হট্টগোল হয়। কংগ্রেস, সমাজবাদী পার্টি-সহ একাধিক বিরোধী দল রাজ্যসভায় বিক্ষোভ দেখায়। তাঁকে বিজেপি থেকে বহিষ্কারের দাবি ওঠে। তবে নিন্দার ঝড় উঠলেও মচকাননি সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া এই নেতা। নরেশ আগরওয়াল ভুল স্বীকার করলেও ক্ষমা চাইতে রাজি হননি। বিজেপি নেতৃত্ব অবশ্য এই ঘটনায় কুলুপ এঁটেছে। নরেশ আগরওয়াল এর আগে একাধিক বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন। কুলভূষণ যাদবকে সন্ত্রাসবাদী বলেছিলেন, এমনকী নরেন্দ্র মোদির জাত নিয়ে তিনি কু-কথা বলেছিলেন। তারপরও তাঁকে দলে নিয়েছে বিজেপি। মহাজোটের অঙ্ক ঘুলিয়ে দেওয়ার কৌশলে নরেশ আগরওয়াল ও তাঁর ছেলের জন্য গেরুয়া শিবিরের দরজা খুলে দেওয়া হয়। প্রথম দিনে নরেশ বুঝিয়ে দিলেন দল পালটালেও, তিনি বদলাননি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং