৫ আশ্বিন  ১৪২৫  শনিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  |  পুজোর বাকি আর ২৪ দিন

মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও পুজো ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৫ আশ্বিন  ১৪২৫  শনিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 

BREAKING NEWS

শম্পালী মৌলিক: “আমার ৩২ বছরের লালন করা স্বপ্ন অবেশেষে সত্যি হল। কোনওদিন কি ভেবেছিলাম যে, সত্যি ওঁর সঙ্গে দেখা হবে!” – এখনও যেন ঘোর কাটছে না সঞ্জীব শ্রীবাস্তবের। পোশাকি নাম এটাই বটে। তবে গোটা দেশ তাঁকে চেনে ডান্সিং আঙ্কল বলে। গুরু গোবিন্দার ডান্সে দিওয়ানা তিনি সেই কবে থেকেই। তবে সামনাসামনি কখনও দেখা হয়নি। দেখা হওয়ার সুযোগই হয়নি। তাতে অবশ্য একলব্যের কিছু যায় আসে না। তিনি শুধু গুরুকে দেখেছেন পর্দার এপার থেকে। আর নিজের ছন্দে মিশিয়ে নিয়েছেন হিরো নং ওয়ানের নাচের স্টাইল। ঘরোয়া অনুষ্ঠানে বরাবরই সে নাচ দেখিয়ে মাত করতেন। দিনকয়েক আগে সেরকমই একটি ভিডিও ভাইরাল হতেই নজর পড়ে গুরুর। তারপরই দু’জনের দেখা হল। গোবিন্দার সঙ্গে দেখা হতে উচ্ছ্বসিত ‘ডান্সিং আঙ্কল’ সঞ্জীব শ্রীবাস্তব।

[  শাহরুখ-সলমন ম্যাজিকে মুগ্ধ করল ‘জিরো’র নয়া টিজার ]

মাধুরী দীক্ষিতের শো ডান্সিং দিওয়ানে-তেই দেখা হল দু’জনের। সোশ্যাল মিডিয়ায় জনপ্রিয় হওয়ার পরই তাঁকে ডাক পাঠান মাধুরী। এটা এমন একটা শো, যেখানে যে কেউ নাচের দক্ষতা দেখাতে পারেন। সঞ্জীবদের মতো প্রতিভাকে তুলে ধরতেই ‘ধক ধক গার্ল’-এর এই উদ্যোগ। যেদিন সঞ্জীবকে ডাকা হয়, সেদিন শো-তে উপস্থিত ছিলেন খোদ গোবিন্দাও। সে কথা তাঁকে আগে থেকে জানানোও হয়েছিল। সেই অপ্রত্যাশিত মুহূর্তের কথা জানিয়ে সঞ্জীব বলছেন, “কালার্স থেকে ফোন পেয়ে আমি তো অবাক। গোবিন্দার সঙ্গে দেখা হবে আর আমি আসব না! তখনই আসার কথা পাকা করে দিয়েছিলাম।”

[  মুক্তির আগেই বিপাকে ‘সঞ্জু’, বিশেষ দৃশ্য নিয়ে অভিযোগ দায়ের সেন্সর বোর্ডে ]

মঞ্চে শুধু তাঁদের দেখাই হয়নি, গোবিন্দার সঙ্গে নাচারও সুযোগ পেয়েছেন ভোপালের ভাবা ইনস্টিটিউটের এই ইলেকট্রনিক্সের অধ্যাপক। এর আগেও স্বয়ং গুরুর মুখ থেকে এসেছে প্রশংসা। ভাইরাল ভিডিও দেখেই গোবিন্দা তাঁর প্রশস্তি করেছিলেন। বলেছিলেন, অন্তত হাফ ডজন হিরো তাঁর নাচের স্টেপ নকল করেছেন। কিন্তু সঞ্জীব যে স্বতঃস্ফূর্ততায় এ কাজ করেছেন তার জবাব নেই। নাচের ছন্দে সঞ্জীবের যে আনন্দের উচ্ছ্বাস তাই-ই মন্ত্রমুগ্ধ করেছিল গোবিন্দাকে। এদিন তাই একলব্যকে পেয়ে একবারে বুকে জড়িয়ে ধরলেন দ্রোণাচার্য। আর সঞ্জীব তখন গুরুর পা ছুঁতে ব্যস্ত। সে এক অভূতপূর্ব মুহূর্তের জন্ম। তবে তার থেকেও অপূর্ব মুহূর্তের সৃষ্টি হয়, যখন গুরু শিষ্য মঞ্চে একে অন্যের সঙ্গে পা মেলালেন। সে মুহূর্ত ভুলতে সঞ্জীব হয়তো কোনওদিনই ভুলতে পারবেন না। “হ্যাঁ, ওঁকে মিট করে দারুণ লাগল। আমার ৩২ বছরের ইচ্ছেপূরণ হল। এটার জন্যই তো বসে ছিলাম। আমি গোবিন্দার বিরাট ফ্যান। সেম স্টেজ শেয়ার করা আমার কাছে স্বপ্নের মতোই। ওই ভিডিওটিতে আমি যেটা করেছিলাম, সেটা নাচের প্রতি আমার প্যাশন থেকেই করা। ‘ডান্স দিওয়ানে’ আমার কাছে যেন আশীর্বাদ হয়ে এল।”, বলছেন ডান্সিং আঙ্কল।  শো শেষে একটি টুইটও করেছেন সঞ্জীব। গোবিন্দার সঙ্গে তোলা ছবি পোস্ট করে সেখানেও লিখেছেন, জীবন ধন্য হল। এত খুশির মুহূর্ত তাঁর জীবনে আগে কখনও আসেনি। ভগবানকে এই অপূর্ব দানের জন্য ধন্যবাদও জানিয়েছেন তিনি।

ভিডিও যে এরকম ভাইরাল হয়ে যাবে সে বিষয়ে আগে থেকে আঁচ করতে পারেননি। গোয়ালিয়রে শ্যালকের সংগীতে নিজের খুশিতে নেচেছিলেন। বাকিটা যেন খোয়াবনামা। অনেকটা যেন গোবিন্দার সিনেমাতেই ঠিক যেমন হয়, তেমনটাই।

 

 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং