BREAKING NEWS

১৭  আষাঢ়  ১৪২৯  শনিবার ২ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

মন্ত্রকের হস্তক্ষেপে চলচিত্র উৎসব থেকে বাদ সিনেমা, জুরি প্রধানের পদ ছাড়লেন সুজয়

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: November 14, 2017 7:14 am|    Updated: November 14, 2017 7:19 am

IFFI: jury chief Sujoy Ghosh resigns after IB ministry drops 2 films

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গোয়ার ইন্ট্যারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল অফ ইন্ডিয়া থেকে সম্প্রতি বাদ পড়েছে দুটি ছবি। অভিযোগ, জুরিদের মনোনীত হওয়া সত্ত্বেও তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের সিদ্ধান্তেই বাদ পড়েছে ছবি দুটি। ঠিক তারপরই জুরি প্রধানের পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিলেন পরিচালক সুজয় ঘোষ। যদিও এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য তিনি করতে চাননি।

নাম ‘ন্যুড’, অজুহাতে গোয়া চলচিত্র উৎসব থেকে বাদ সিনেমা ]

৪৮ তম চলচ্চিত্র উৎসবের জন্য ছবি নির্বাচনের পর্ব চলছিল। ১৩ জন জুরির একটি প্যানেল দায়িত্বে ছিল ছবি নির্বাচনের। জানা যাচ্ছে, নির্বাচন পর্ব শেষে দুটি ছবি বাদ দেওয়া হয়। একটি মালায়ালাম ছবি ‘এস দুর্গা’। অন্যটি মারাঠি ছবি ‘ন্যুড’। প্রেমিকা-প্রেমিকাকে এই সমাজে কোন কোন পরিস্থির মুখে পড়তে হয়, প্রথম ছবিটি তুলে ধরেছিল সে বাস্তবকে। অপর ছবিটির উপপাদ্য ছিল একজন নগ্ন মডেলের লড়াই-যন্ত্রণা। শেষেরটি নাকি শুধু নামের কারণেই বাদ পড়েছে বলেও শোনা গিয়েছিল। অথচ জুরিদের পছন্দই ছিল ছবি দুটি। দুটি ছবিই বিভিন্ন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে স্বীকৃতি পেয়েছে। তারপরেও কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের সিদ্ধান্তেই ছবিগুটি বাদ পড়ে। সূত্রের খবর, এখান থেকেই অসন্তোষের সৃষ্টি। যদি কেন্দ্রীয় মন্ত্রকই ছবি নির্বাচনে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়, তাহলে জুরিদের থাকার কোনও মানে হয় না। আর জুরিরা যদি ছবি নির্বাচন করেন, তারপরে মন্ত্রকের হস্তক্ষেপও বাঞ্ছনীয় নয়। এই টানাপোড়েনে চাপা অসন্তোষ ছিল। সেই আবহেই জুরি প্রধানের পদ থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন সুজয়। জুরিদের নির্বাচনের উপর মন্ত্রকের সিদ্ধান্ত চেপে বসলে, জুরি প্রধান পদটিই কার্যত অযৌক্তিক হয়ে পড়ে। ফলে সরে দাঁড়ানোই যুক্তিযুক্ত মনে করেছেন সুজয়। যদিও তিনি নিজে এ বিষয়ে একটি শব্দও বলেননি। কেন এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তা জানানি। কিন্তু ঘটনা পরম্পরায় স্পষ্ট, নিজের প্রতিবাদ জানাতেই তাঁর এহেন সিদ্ধান্ত।

[ শরীর ছাপিয়ে প্রেমের ‘তৃষ্ণা’, সন্ধান মিলবে চলচ্চিত্র উৎসবেই ]

জুরি বোর্ডের অপর সদস্য অপূর্ব আসরানি অবশ্য প্রকাশ্যেই সরব হয়েছিলেন। টুইট করে তিনি জানিয়েছিলেন ‘সেক্সি দুর্গা’ ও ‘ন্যুড’- দুটি ছবিই সমসময়ের প্রতিচ্ছবি। এই সময়ে মেয়েদের অবস্থানকেই তুলে ধরছে। ছবি দুটির বাদ পড়া যে তিনি কোনওভাবেই মেনে নিতে পারেননি তা টুইটে স্পষ্ট ছিল। জুরি বোর্ডে ছিলেন নিশিকান্ত কামাত, গোপি দেশাই, নিখিল আডবানির মতো চিত্রনাট্যকার ও পরিচালকরা। তাঁদের নির্বাচন সত্ত্বেও ছবি বাদ পড়া দুর্ভাগ্যজনক। জুরিদের মধ্যে যে এ নিয়ে ক্ষোভ ছিল, সুজয়ের পদক্ষেপেই তা স্পষ্ট হল।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে