BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

যোধপুরেই খতম করব, সলমনকে খুনের হুমকি জেলবন্দি গ্যাংস্টারের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 6, 2018 8:57 am|    Updated: January 6, 2018 8:57 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সলমন খানকে খুনের হুমকি দিল পাঞ্জাবের এক কুখ্যাত গ্যাংস্টার। শুক্রবার একটি খুনের মামলায় যোধপুর আদালতে তোলা হয় পাঞ্জাবের কুখ্যাত গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোইকে। আদালত চত্বরে দাঁড়িয়েই সলমন খানের বিরুদ্ধে খুনের হুমকি দেয় এই গ্যাংস্টার। জানিয়ে দেয়, যোধপুরেই খতম করা হবে সলমন খানকে। আর তার জন্য জেল থেকে পালাতেও সে প্রস্তুত। এমকি পুলিশের জাল ছিঁড়ে বেরনো যে তার বাঁ হাতের কারসাজি সে ব্যাপারেও স্পষ্ট ইঙ্গিত দিয়েছে লরেন্স। তবে এই মুহূর্তে জেল পালানোর ইচ্ছা তার নেই বলেও জানিয়েছে।

[সারাগারি যুদ্ধের ভুলে যাওয়া কাহিনি তুলে ধরছেন ‘কেসরি’ অক্ষয়]

গ্যাংস্টারের হুমকিতে অবশ্য বিশেষ উদ্বিগ্ন নন সলমন। এই নিয়ে এখনও পর্যন্ত তিনি পুলিশ প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছেন বলেও খবরও মেলেনি। চাননি বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থাও। পুলিশ অবশ্য বিষয়টিকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়েই দেখছে। তবে এখনও পর্যন্ত এই হুমকির কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত হতে পারেনি পুলিশ। প্রাথমিক অনুমান, সলমন খানের কৃষ্ণসার হরিণ হত্যার কারণেই এই হুমকি। কারণ রাজস্থানের বিষ্ণোই সম্প্রদায়ের মানুষ কৃষ্ণসার হরিণকে পুজো করে। তাদের আরাধ্য প্রাণীকে হত্যার অপরাধে আদালতের তোয়াক্কা না করে নিজেই বলিউড স্টারের ‘প্রাণদণ্ড’ ঘোষণা করেছে লরেন্স।

[‘শুভ নববর্ষ’-এ টলিউডে কামব্যাক করতে চলেছেন অভিনেতা বিক্রম]

পুলিশের বিচারে লরেন্স কোনও সাধারণ অপরাধী নয়। পাঞ্জাবে তার দুষ্কৃতী বাহিনী রীতিমতো কুখ্যাত। সাধারণ মানুষ তাদের ভয় পায়। মূলত ব্যবসায়ী ও বিত্তশালী ব্যক্তিদের ভয় দেখিয়ে টাকা তোলা বিষ্ণোই-গোষ্ঠীর অন্যতম কাজ। যোধপুরের এক ব্যবসায়ীকে হত্যা করার অভিযোগে বর্তমানে সে জেলে বন্দি। ওই মামলাতেই শুক্রবার তাকে যোধপুরের একটি আদালতে পেশ করা হয়। শুনানি শেষে বেরিয়ে যাওয়ার সময় আদালত চত্বরে দাঁড়িয়েই বজরঙ্গি ভাইজানের বিরুদ্ধে সে হুমকি দিতে থাকে।

[সেন্সরের কোপে এবার ইন্দ্রাশিসের ‘পিউপা’, মুক্তি বিশ বাঁও জলে]

যোধপুর পুলিশ জানিয়েছে, বিষয়টিকে তারা যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে দেখছে। এই বিষয়ে লরেন্সের বিরুদ্ধে ফের অভিযোগ দায়ের করা হবে। সলমন খানকে বিশেষ নিরাপত্তা দেওয়ার বিষয়েও ভাবনা চিন্তা শুরু করেছে পুলিশ কর্তারা। এমনকী জেলে লরেন্সের পাহাড়ার ব্যবস্থা আরও দৃঢ় করার জন্যও শুরু তোড়জোড়। কোনও ভাবেই যেন পুলিশের চোখে ধুলো দিয়ে সে জেল থেকে বেরতে না পারে তার জন্য সতর্ক রয়েছে জেল রক্ষীরাও। প্রশ্ন উঠেছে, কোন জোরে আদালত চত্বরে দাঁড়িয়ে এত বড় হুমকি দিল খুনের আসামী লরেন্স বিষ্ণোই। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement