২৯ ভাদ্র  ১৪২৬  সোমবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ২০১৭ সালের শেষে মুক্তি পেয়েছিল ‘টাইগার জিন্দা হ্যায়’। তারপর কেটে গিয়েছে বেশ কয়েকটা দিন। কিন্তু সেই ছবির প্রমোশনকে ঘিরে বিতর্কের অবসান হয়নি এখনও।

দিল্লি কমিশনের একজন উচ্চপদস্থ অফিসার একটি টেলিভিশন শোতে দেখেছিলেন, ‘টাইগার জিন্দা হ্যায়’ ছবির প্রমোশনে এসে সলমন সেখানে একটি ধর্মবিরোধী জোকস বলেছিলেন এবং সেটা শুনে হেসেছিলেন অভিনেত্রী ক্যাটরিনা কাইফ। আর এই দেখে ওনার মনে হয়েছিল মনে মনে ধর্মবিরোধী মনোভাব পোষণ করেন সলমন, ক্যাটরিনা এবং ওই ছবির অন্যান্য কলাকুশলীরা। তাই বৃহস্পতিবার দিল্লি কোর্টে তাঁদের বিরুদ্ধে তিনি মামলা দায়ের করেন এবং কোর্ট থেকে জানানো হয়েছে আগামী ২৭ তারিখ এই মামলার শুনানি হবে দিল্লির পাটিয়ালা হাউস কোর্টে।

[স্বামীর জন্মদিনে প্রেমবর্ষণ, করণের জন্য কী করলেন বিপাশা?]

যদিও এই ঘটনাটি যখন ঘটেছিল তখন রাজস্থানে এই ছবিটি নিয়ে তীব্র নিন্দা করেছিলেন রাজস্থানের জনগণ। তাঁরা ছবি মুক্তির দিন ছবির পোস্টার পুড়িয়েছিলেন সেখানকার একটি নামী হলের সামনে। তারপরেও প্রতিবাদ থামেনি। বারংবার ছবিটির মুক্তি নিয়ে অনেক ঝামেলার মুখোমুখি পড়তে হয়েছে রাজস্থানে। এমনকি শিল্পা শেট্টি এই বিষয়ে নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে ক্ষমা পর্যন্ত চেয়েছিলেন।

 

কিন্তু তাই বলে ছবি মুক্তির এতদিন পরে আবার যে সেই বিষয়টি এভাবে সকলের সামনে উঠে আসবে তা বোধহয় কল্পনাই করতে পারেননি স্বয়ং সলমনও। ছবিটি মুক্তির পর বক্স অফিসে হইচই ফেলে দিয়েছিল। এমনকি ২০১৭ সালের ব্যবসার নিরিখে এই ছবিটি যা ব্যবসা করেছিল তা সত্যিই চমকপ্রদ। কিন্তু সব কিছুর পরও এই ঝামেলা দেখে সলমন জানিয়েছেন, ‘আমি কারওর আবেগকে আঘাত দিতে কোনও কিছু বলিনি। সেটা আমি প্রমাণ করার সবরকম চেষ্টা করব।’

[এবার ওয়েব সিরিজে ভাগ্য পরীক্ষা করতে চলেছেন সইফ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং