BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

কর্ণি সেনার হুমকি, জয়পুর সাহিত্য উৎসব এড়ালেন প্রসূন

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 27, 2018 9:13 am|    Updated: January 27, 2018 9:13 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ছবি মুক্তি পেয়েছে। চুলচেরা বিশ্লেষণও হয়ে গিয়েছে। ‘পদ্মাবত’ যাঁর যেমনই লাগুক সিনেমাটি যাঁরা দেখে ফেলেছেন সকলেরই একটিই মত, এ ছবিতে কোনওভাবেই রাজপুত গরিমা একেবারেই ক্ষুন্ন করা হয়নি। তবুও দেশের একাধিক জায়গায় কর্ণি সেনার তাণ্ডব অব্যাহত। সেনার রোষানল থেকে রেহাই পেলেন না সেন্ট্রাল ব্যুরো অফ ফিল্ম সার্টিফিকেশনের (CBFC) প্রধান প্রসূন জোশীও। ছবিকে শংসাপত্র দেওয়ার অপরাধে তাঁকে জয়পুরে না ঢুকতে দেওয়ার হুমকি দিয়েছে স্বঘোষিত সংগঠনটি। হুমকির জেরে শেষ পর্যন্ত জয়পুর সাহিত্য উৎসব (JLF) অংশই নিলেন না সেন্সর প্রধান।

[‘পদ্মাবত’ দেখানোয় প্রেক্ষাগৃহে বোমাবাজি, আতঙ্ক কর্নাটকের বেলাগাভিতে]

এ রাজ্যে নির্বিঘ্নেই চলছে সঞ্জয় লীলা বনশালির ছবি। কিন্তু মধ্যপ্রদেশ, হরিয়ানা ও রাজস্থানে প্রেক্ষাগৃহের মালিকরা জানিয়ে দিয়েছেন তাঁরা ছবি প্রদর্শিত করবেন না। এর একমাত্র কারণ কর্ণি সেনার তাণ্ডব। পথ অবরোধ থেকে শুরু করে প্রেক্ষাগৃহে ভাঙচুর, আগুন কিছুই বাদ নেই। এমতাবস্থায় রবিবার জয়পুর সাহিত্যমেলায় অংশগ্রহণ করার কথা ছিল প্রসূন জোশীর। ‘ম্যায় অউর বোহ: কনভারসেশন উইথ মাইসেলফ’ নামক আলোচনায় অংশ নেওয়ার কথা ছিল তাঁর। কিন্তু কর্ণি সেনা জানায়, যে প্রসূন ‘পদ্মাবত’কে ছাড়পত্র দিয়েছেন তাঁর বুলি শুনতে চান না তাঁরা। জয়পুরে প্রসূনকে বলতে দেওয়া হবে না বলেও হুমকি দেওয়া হয়।

[কৌশিকের ‘দৃষ্টিকোণ’-এ কেমন প্রসেনজিৎ? এল ফার্স্ট লুক]

এরপরই জেএলএফ কর্তৃপক্ষকে মেল মারফত প্রসূন জানান, তিনি এবার জয়পুরে যাবেন না। কারণ তিনি চান না কেবল তাঁর জন্য একটা সাংস্কৃতিক মেলা বিঘ্নিত হোক। সেখানে দেশ-বিদেশের অন্যান্য সম্মানীয় অতিথিরাও আসবেন। আসবেন এমন শ্রোতা-দর্শক যাঁরা সংস্কৃতির মূল্য বোঝেন। তাঁদের সামনে কোনও অপ্রীতিকর পরিস্থিতি তৈরি হোক তা তিনি চান না। নিজের বার্তায় প্রসূন এও জানান যে, তিনি কেবল নিরপেক্ষভাবে নিজের দায়িত্ব পালন করেছেন মাত্র। আর বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়েই সে কাজ করেছেন। কিন্তু সিবিএফসি প্রধানের এ বার্তা কর্ণি সেনার কানে পৌঁছায়নি। সম্প্রতি সেনার সুখদেব সিং গোগামেডি নামে এক নেতা প্রসূনের পদত্যাগ পর্যন্ত দাবি করেছেন। লাগাতার এই হুমকির জেরেই এবার জয়পুর যাওয়া থেকে বিরত রইলেন সিবিএফসি প্রধান। তবে তাঁর মতে, এ সমস্যার সমাধান আলোচনার মাধ্যমেই হতে পারত।

[প্রয়াত শম্ভু ভট্টাচার্য, চলে গেলেন উত্তম সময়ের আরও এক মহীরুহ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement