BREAKING NEWS

২৩ শ্রাবণ  ১৪২৭  রবিবার ৯ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

সিনেমায় হস্তমৈথুন নিয়ে নেটদুনিয়ায় কটাক্ষ স্বরাকে, কী উত্তর অভিনেত্রীর?

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 3, 2018 5:58 pm|    Updated: June 3, 2018 5:58 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বলিপাড়ার কাচের দেওয়াল ভাঙছে৷ ছেলেদের বন্ধুতা নিয়ে একাধিক ছবি হয়েছে৷ ‘দিল চাহতা হ্যায়’ বা ‘জিন্দেগি না মিলেগি দোবারা’-র মতো ছবি সকলের ভাল লেগেছে৷ কিন্তু সে তুলনায় মহিলাদের বন্ধুত্বের কথা তেমনভাবে উঠে আসে কি? ছক ভেঙে সেই কাজটিই করেছে ‘বীরে দি ওয়েডিং’৷ মেয়েদের নিজস্ব জগত প্রকাশ্যে এসেছে বড়পর্দায়৷ এবং যথারীতি সমালোচনাও শুরু হয়েছে৷ আপাতত নেটদুনিয়ার টার্গেটে অভিনেত্রী স্বরা ভাস্কর৷

[  ডান্সিং আঙ্কল-এর নাচ দেখে মুগ্ধ গোবিন্দা, কী বললেন তিনি? ]

তা কী করেছেন তিনি? সিনেমায় তাঁর চরিত্রের হস্তমৈথুন দৃশ্য নিয়ে এখন জোর আলোচনা৷ দেখা যাচ্ছে, চরিত্রটি চরম সুখের জন্য ভাইব্রেটর ব্যবহার করছে৷ মেয়েদের নিজস্ব পৃথিবীতে এ তো অস্বাভাবিক কিছু ঘটনা নয়৷ কিন্তু তাতেও সমালোচনা বন্ধ থাকেনি৷ এক ব্যক্তি স্বরাকে টুইটে জানিয়েছেন, তিনি তাঁর ঠাকুমাকে নিয়ে ছবিটি দেখতে গিয়েছিলেন৷ দৃশ্যটি আসামাত্র বিড়ম্বনায় পড়েন বর্ষীয়ান মহিলা৷ পরে বেরিয়ে তিনি জানান, একজন ভারতীয় হিসেবে তিনি লজ্জিত৷ এরপরই নানা সমালোচনার আক্রমণ ধেয়ে আসে অভিনেত্রীর দিকে৷ এর আগে স্বরাকে নিয়ে কিছু কটাক্ষও হয়েছে৷ কেউ কেউ বলেছেন, এই প্রথম স্বরাকে কোনও ধনী মহিলার চরিত্রে দেখা গেল৷ কিন্তু সে তো নিরামিষ রসিকতা৷ সব ছাপিয়ে আলোচনার বিষয় হয়ে ওঠে স্বরার হস্তমৈথুনের দৃশ্যটি৷ কেউ কেউ এর বিরুদ্ধে চলে যান৷ প্রশ্ন তোলেন, এরকম একটা দৃশ্য থাকার কি প্রয়োজনীয়তা? পালটা যুক্তি দেখিয়ে কেউ কেউ বলেন, এরকম গোঁড়া সংস্কারী মনোভাব নিয়ে এ ছবি দেখতে যাওয়ারই বা দরকারটা কী?

নেটিজেনদের তপ্ত বাক্যবিনিময়ের মধ্যেই জবাব দেন স্বরা৷ তাঁর সাফ কথা, পেড ট্রোল বা পয়সা দিয়ে স্পনসর করে এই যে কটাক্ষের রেওয়াজ চালু হয়েছে তাতে তিনি বেশ মজাই পাচ্ছেন৷ কারণ এর ফলে তাঁর টাইমলাইনে নানা মজার প্রতিক্রিয়া আসছে৷ তবে সেই সঙ্গে তাঁর কটাক্ষ, যাঁরা ট্রোল করার জন্য পয়সা খরচ করছেন, তাঁরা অন্তত বানান ঠিক লেখার জন্যও পয়সা খরচ করে একটা ‘স্পেল চেক’ বানাক৷

সমালোচনা, কটাক্ষ যাই হোক না কেন, ‘বীরে দ্য ওয়েডিং’-কে কিন্তু অস্বীকার করা যায় না৷ মুক্তির সঙ্গে সঙ্গেই একশ্রেণির দর্শকের মন জয় করেছে ছবিটি৷ কেন মহিলাদের নিজস্ব পৃথিবীকে অন্তরালে রাখতে হবে? যখন চারিদিকে সমানাধিকার নিয়ে এত কথা, তখন মহিলামহলের উপর যদি আলো পড়ে তবে মন্দ কী! দর্শকদের এই প্রশংসাতেই এগিয়ে চলেছে করিনা-স্বরা-সোনমের ছবিটি৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement