BREAKING NEWS

১২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  রবিবার ২৯ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘ভবিষ্যতের ভূত’ স্ক্রিনিংয়ের দাবিতে ফের রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ, শামিল তাবড় শিল্পীরা

Published by: Bishakha Pal |    Posted: March 10, 2019 7:03 pm|    Updated: March 10, 2019 7:03 pm

Team Bhobishyoter Bhoot stage protest again

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জট এখনও কাটেনি। তাই সিনেমা হলমুখো এখনও হতে পারেনি ভূতেরা। তাদের হলে ফেরাতে উদ্যোগ নিয়েছেন বাংলার বুদ্ধিজীবীরা। ‘ভবিষ্যতের ভূত’ ছবিটি মুক্তি হওয়ার দিন দুয়েকের মধ্যেই বন্ধ হয়ে যায়। কলকাতার বিভিন্ন হল থেকে তুলে নেওয়া হয় ছবিটি। প্রতিবাদে পথে নামেন পরিচালক অনীক দত্ত-সহ অনেক শিল্পী। কিন্তু সুরাহা হয়নি তাতেও। তাই আবার ছবিটি হলে আনার দাবিতে পথে নামলেন শিল্পীরা। এবার পরিচালকের সঙ্গে হাত মেলালেন টলিপাড়ার বর্ষীয়ান শিল্পীরাও।

রবিবার প্রতিবাদ মিছিল শুরু হয় মধুসূদন মঞ্চ থেকে। সেখানে জমায়েত হয়েছিলেন টলিউডের বহু শিল্পী। ছিলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, অপর্ণা সেন, কল্যাণ রায়, সুজয়প্রসাদ চট্টোপাধ্যায়, বিকাশ ভট্টাচার্য, সমীর আইচ, সোহাগ সেনের মতো শিল্পীরা। সেখানে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় আবেদন করেন, ‘আশা করব জনসাধারণ আমাদের সঙ্গে থাকবে।’ অপর্ণা সেন বলেন, আজ একজনের উপর যা বর্তেছে, পরে সকলের উপর তা বর্তাতে পারে। কারা, কেন ছবিটি বন্ধ করেছে তা প্রশ্ন নয়। বড় প্রশ্ন যে ছবি সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র পেয়েছে তার প্রদর্শন বন্ধ করার অধিকার কারওর নেই। এতে মৌলিক সাংবিধানিক অধিকার, বাক স্বাধীনতার খর্ব করা হয়। তাঁর কথার প্রসঙ্গ টেনে কল্যাণ রায় বলেন, সবার সাবধান হওয়ার দরকার। কারণ চুপ করিয়ে দেওয়া খুব সাংঘাতিক জিনিস। সেটাই হতে চলেছে।

আম্বানিপুত্রর বিয়েতে নেচে মঞ্চ কাঁপালেন শাহরুখ-রণবীররা ]

চিত্রশিল্পী সমীর আইচের প্রতিবাদ ছিল একটু অন্যরকম। তিনি একটি ছবি আঁকেন। ছবিতে দেখা গিয়েছে শকুনের মতো বৃহদাকার এক পাখি একটি আঁকার প্যালেটকে খাচ্ছে। এই ছবিটিই তাঁর প্রতিবাদের ভাষা। এর পর তিনি বলেন, আগের সরকারের সময় পশুখামার বন্ধ হয়েছিল। বর্তমানে যারা সরকারে আছেন তারা অনেক তখন আওয়াজ তুলেছিলেন। কিন্তু এই আন্দোলনে তারা চুপ। চিত্রশিল্পী আরও বলেন, “যেখানে এই ধরনের অন্যায় হবে, আমরা প্রত্যেকে সেখানে প্রতিবাদ জানাব।” এরপরই তিনি পুরনো একটি ঘটনা টেনে আনেন। কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবের সময় মুখ্যমন্ত্রীর মুখ বসানো হোর্ডিং নিয়ে সোচ্চার হয়েছিলেন পরিচালক অনীক দত্ত। সেই প্রসঙ্গ টেনে সমীর আইচ বলেন, অন্য কোনও রাজ্যে তো এই দৃশ্য দেখা যায় না। তাহলে এখানেই বা কেন ওই মুখ সব জায়গায় থাকবে? কেনই বা দৃশ্যদূষণ হবে? তিনি অনীকের পাশে আছেন।

এরপর মধুসূদন মঞ্চ থেকে মিছিল শুরু করেন শিল্পীরা। মিছিলে অনেককে ভুতের মুখোশ পরে হাঁটতে দেখা যায়। তাদের হাতে প্ল্যাকার্ডে লেখা ছিল, ‘মোঁদের ছঁবি কেঁন উঁধাও, জঁবাব চাঁই জঁবাব দাঁও’, ‘আমরা হাঁটব দলে দলে, ছবি ফিরছে না কেন হলে’, ‘আমাকে আমার কথা বলতে দাও ইত্যাদি। মিছিলে হাঁটেন দেবজ্যোতি মিশ্র, সুজয়প্রসাদ চট্টোপাধ্যায়, বাদশা মৈত্র, অনীক দত্ত, দেবলীনা দত্ত, সুমন্ত মুখোপাধ্যায়ের মতো অনেকে।

নতুন ছবির ঘোষণা, এবার বাইকারের ভূমিকায় শাহিদ! ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে