২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

গভীর জঙ্গলে তুমুল গুলির লড়াই, চম্পারণে খতম চার মাওবাদী

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: July 10, 2020 12:05 pm|    Updated: July 10, 2020 12:05 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সাতসকালে বিহারের চম্পারণের জঙ্গলে গুলির লড়াই। সশস্ত্র সীমা বলের (SSB) জওয়ানদের গুলিতে খতম চার মাওবাদী। শুক্রবার সকালে এই খবর নিশ্চিত করেছে এসএসবি। পুলিশ ও এসএসবির যৌথবাহিনী অপারেশন চালায় ওই এলাকায়। আরও কিছু মাওবাদী এলাকায় লুকিয়ে রয়েছে বলে খবর। জঙ্গলে চিরুনি তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

এদিন সশস্ত্র সীমা বলের আইজি সঞ্জয় কুমার জানিয়েছেন, বিপুল পরিমাণ আগ্নেয়াস্ত্র ও কার্তুজ উদ্ধার হয়েছে ঘটনাস্থল থেকে। পশ্চিম চম্পারণের বাল্মিকীনগর এলাকায় এদিন গোপন সূত্রে খবর পেয়ে অভিযান চালায় জওয়ানরা। তারপর শুরু হয় গুলির লড়াই। গভীর জঙ্গলের মধ্যে দুই পক্ষই ব্যাপক গুলিবর্ষণ করে। পরে চার মাওবাদী খতম হয় বলে জানিয়েছেন আইজি। ঘটনাস্থল থেকে একে-৫৬, তিনটি স্বয়ংক্রিয় রাইফেল এবং একটি ৩০৩ রাইফেল উদ্ধার হয়েছে।

[আরও পড়ুন: নাটকীয় এনকাউন্টারে খতম ৮ পুলিশকর্মীর হত্যাকারী গ্যাংস্টার বিকাশ দুবে]

প্রসঙ্গত, গত শনিবার ওড়িশায় নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে রাতভর গুলির লড়াই চালানোর পর খতম হয় চার মাওবাদী। ঘটনাটি ঘটেছে কন্ধমাল জেলার টুমুদিবাঁধ এলাকার নিকটবর্তী সিরলা ফরেস্টে। ওড়িশা পুলিশের স্পেশ্যাল অপারেশন গ্রুপ, জেলা ভলান্টিয়ারি ফোর্স ও স্পেশ্যাল কনস্টেবুলারি ইউনিটের যৌথবাহিনী ওই এলাকায় তল্লাশি চালাতে থাকে। সেসময় আচমকা জঙ্গলের আড়াল থেকে তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়তে থাকে মাওবাদীরা। পালটা জবাব দেন যৌথবাহিনীর সদস্যরাও। রাতভর উভয়পক্ষের মধ্যে তুমুল গুলির লড়াই চলে। এরপর রবিবার সকালে ঘটনাস্থল থেকে চার মাওবাদীর মৃতদেহ উদ্ধার করে যৌথবাহিনী।

[আরও পড়ুন: অবশেষে পিছু হটছে ‘ড্রাগন’, পূর্ব লাদাখের তিন এলাকা থেকে সরল চিনা সেনা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement