৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘ওয়ান নেশন ওয়ান রেশন কার্ড’, পরিযায়ীদের জন্য মুক্তহস্ত নির্মলা

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: May 14, 2020 4:56 pm|    Updated: May 14, 2020 5:16 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ‘আত্মনির্ভর ভারত’ প্যাকাজের রূপরেখার দিকে অধীর আগ্রহে তাকিয়ে দেশ। প্রথম দিনের বিস্তারিত ঘোষণায় সেই অর্থে আশা পূরণ করতে পারেননি অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। অর্থনীতিকে চাগিয়ে তুলতে একগুচ্ছ ঘোষণা করা হলেও কর্মসংস্থান, অর্থের জোগান বা পরিযায়ী শ্রমিকদের হাতে সরাসরি টাকা তুলে দেওয়ার বিষয়ে কিছুই ঘোষণা হয়নি। তবে বৃহস্পতিবার ২০ লক্ষ কোটি টাকা প্যাকজের দ্বিতীয় বাক্স খুলেই পরিযায়ী শ্রমিক, হকার, ক্ষুদ্র চাষী ও কর্মসংস্থানের জন্য একগুচ্ছ পদক্ষেপ ঘোষণা করলেন নির্মলা।

অর্থনীতিকে চাগিয়ে তুলতে এদিন ৯টি পদক্ষেপ ঘোষণা করেন নির্মলা সীতারমণ। এর মধ্যে পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য ৩টি, হকার-ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও স্বনির্ভরদের জন্য একটি করে, ক্ষুদ্র চাষীদের জন্য ২টি ও আবাসনের জন্য ১টি করে পদক্ষেপ ঘোষণা করেন অর্থমন্ত্রী। তিনি জানান, ইতিমধ্যে ৩ কোটি চাষীদের স্বল্প সুদে ৪ লক্ষ কোটি টাকার ঋণ দেওয়া হয়েছে। কৃষি ঋণের ক্ষেত্রে ১ মার্চ পর্যন্ত ‘interest subvention’ (ছাড়) ও ‘prompt repayment incentive’ এর সুবিধা ৩১ মার্চ ২০২১ পর্যন্ত বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। ২৫ হাজার পর্যন্ত ঋণ নেওয়া যাবে এমন ২৫ লক্ষ কিষান ক্রেডিট কার্ড দেওয়া হয়েছে। পরিযায়ীদের জন্য রাজ্যগুলিকে ১১ হাজার কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে। পরিযায়ী শ্রমিকদের থাকা ও দিনে তিনবার খাওয়ার ব্যবস্থা করেছে কেন্দ্র। স্টেট ডিজাস্টার রেসপন্স ফান্ড ব্যবহার করে পরিযায়ী শ্রমিকদের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করার জন্য রাজ্যগুলিকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

পরিযায়ী শ্রমিকদের কথা মাথায় রেখে দেশজুড়ে ন্যূনতম মজুরির সুবিধা দেওয়া হবে। আগেই ১৮২ থেকে ন্যূনতম মজুরি বেড়ে ২০২ টাকা করা হয়েছে। ৮ কোটি পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য যাঁদের রেশন কার্ড নেই তাঁদের প্রতি ব্যক্তি ৫ কেজি চাল ও পরিবার পিছু ১ কেজি ডাল বিনামূল্যে দেওয়া হবে। পরিযায়ী শ্রমিকদর চিহ্নিত করবে রাজ্য। পাশাপাশি, অর্থমন্ত্রী ঘোষণা করেন, আগস্ট থেকে গোটা দেশে প্রযোজ্য একটি রেশন কার্ড ইস্যু করা হবে। এর ফলে দেশের যে কোনও প্রান্ত থেকে মজদুররা রেশন তুলতে পারবেন। প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় পরিযায়ী শ্রমিক ও শহুরে গরিবদের জন্য সাধ্যের মধ্যে ভাড়া দেওয়ার জন্য আবাসন বানানোর জন্য PPP মডেলের কথাও বলেন নির্মলা।

এদিন, হকারদের ঋণ দিতে ৫ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দের ঘোষণা করেন অর্থমন্ত্রী। এতে ১০ হাজার পর্যন্ত ঋণ পেতে পারেন হকাররা। এর ফলে উপকৃত হবে ৫০ লক্ষ হকার। আবাসন ক্ষেত্রকে চাঙ্গা করতে ৭০ হাজার কোটি টাকার যোজনার কথাও জানান নির্মলা। ৬ থেকে ১৮ লক্ষ পর্যন্ত বার্ষিক আয় হলে মিলবে সুযোগ।  

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement