BREAKING NEWS

১০  আশ্বিন  ১৪২৯  শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘ওঝা’র নিদানের জের, পরিচারিকাকে নগ্ন করে বেধড়ক মারধর মালকিনের

Published by: Kishore Ghosh |    Posted: August 15, 2022 4:55 pm|    Updated: August 15, 2022 7:46 pm

A Delhi Family Strips, Assaults Domestic Help After Occultist's Theft Charge | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল  ডেস্ক: চুরির অপরাধে পরিচারিকাকে নগ্ন করে মারধরের অভিযোগ উঠল বাড়ির মালকিনের বিরুদ্ধে। এমনকী মহিলাকে ঘরবন্দি করে রাখা হয়। ওই পরিচারিকাই যে চুরি করেছেন, সেই নিদান দেয় ‘ওঝা’। খোদ রাজধানী শহর দিল্লিতে (Delhi) ঘটেছে এই ঘটনা। এদিকে অত্যাচার সয্য করতে না পেরে বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন ওই মহিলা গৃহকর্মী। এরপরেই ঘটনা প্রকাশ্যে আসে। অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা দায়ের করে তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ৪৩ বছরের নির্যাতিতা মহিলা গত দু’বছর ধরে সতবারি এলাকার বিলাসবহুল খামারবাড়ি আনসাল ভিলায় থাকতেন। সেখানেই পরিচারিকার কাজ করতেন। ১০ মাস আগে খামার বাড়িতে একটি চুরি হয়। চোর ধরা পড়েনি । এরমধ্যে গত ৯ আগস্ট চোর খুঁজতে বাড়িতে এক ওঝাকে ডাকেন মালকিন। প্রচুর রীতি রেওয়াজের পর ওই ওঝা নিদান দেন, পরিচারিকাই চোর। এরপরেই শুরু হয় অকথ্য অত্যাচার।

[আরও পড়ুন: লালকেল্লাকে রাজনীতির মঞ্চ বানিয়েছেন, পরিবারতন্ত্র নিয়ে মোদির খোঁচার পালটা দিল কংগ্রেস]

ওঝার নিদান অনুযায়ী নির্যাতিতা-সহ সব গৃহকর্মীকে প্রথমে চাল ও চুন খাওযানো হয়। যার মুখ লাল হয়ে যাবে সে চোর। ওই মহিলার মুখ লাল হয়ে যায়। এরপরেই শুরু হয় ভয়ংকর অত্যাচার। প্রথমে একচোট মারধর করা হয়। এরপর অন্য গৃহকর্মীদের সামনে নগ্ন করে মারধর করা হয়। এমনকী তাঁকে পরের ২৪ ঘণ্টা ওই অবস্থায় গৃহবন্দি করে রাখা হয়। পাশাপাশি চলতে থাকে মারধর।

পরদিন ১০ আগস্ট সকালে নিজের পোশাক ফেরত চান মহিলা। পোশাক পেলে তা নিয়ে শৌচালয়ে যান। সেখানেই শৌচালয়ে রাখা ইঁদুর মারা বিষ খান তিনি। মালকিন প্রথমে বিষয়টি টের পানননি। মহিলার অবস্থা অতিরিক্ত খারাপ হলে বিষ খাওয়ার বিষয়টি জানাজানি হয়। এরপর তাঁকে দ্রুত স্থানীয় হাসপাতালে ভরতি করা হয়।

[আরও পড়ুন: মহাকাশে ‘জয় হে’, মাটি থেকে ৩০ কিলোমিটার উঁচুতে উড়ল তেরঙ্গা]

নির্যাতিতাকে হাসপাতাল ভরতি করার পরেই গোটা ঘটনা প্রকাশ্যে আসে। পুলিশে অভিযোগ দায়ের হয়। ১১ আগস্ট মালিক পক্ষের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। তবে এখনও অবধি কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে