২৪ বৈশাখ  ১৪২৮  শনিবার ৮ মে ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সফর ঘিরে হাসপাতালে হুড়োহুড়ি, বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু প্রাক্তন সেনাকর্মীর

Published by: Arupkanti Bera |    Posted: April 14, 2021 5:32 pm|    Updated: April 14, 2021 5:53 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এক প্রাক্তন সেনা কর্মীর মৃত্যু ঘিরে বিতর্ক তৈরি হল বিহারে। করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভরতি হয়েছিলেন ওই সেনা কর্মী। ওই হাসপাতালেই পরিদর্শনে যান বিহারের স্বাস্থ্যমন্ত্রী। চিকিৎসকরা মন্ত্রীকে নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। তাই চিকিৎসা না পেয়ে ওই সেনা কর্মীর মৃত্যুর অভিযোগ উঠল। যদিও হাসপাতালের তরফে সব অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে।

বিহারের (Bihar) রাজধানী পাটনা থেকে ১২০ কিলোমিটার দূরে লখিসরাইয়ে বাড়ি প্রাক্তন সেনা কর্মী বিনোদ সিংয়ের। করোনা (Coronavirus) আক্রান্ত হয়ে মঙ্গলবার নালন্দা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে যান। কিন্তু সেই সময়ে ওই হাসপাতাল পরিদর্শনে হাজির হন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মঙ্গল পান্ডে। আর মন্ত্রী উপস্থিত হওয়ায় তাঁকে স্বাগত জানাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ফলে চিকিৎসা পরিষেবা শিকেয় ওঠে বলে অভিযোগ। অসুস্থ বিনোদের পরিবারের তরফে বার বার তাঁকে দেখার জন্য চিকিৎসকদের কাছে অনুরোধ করা হয়। কিন্তু কে শোনে কার কথা! মন্ত্রী আগে না রোগী আগে, এই প্রশ্নের মাঝে শেষ পর্যন্ত মারাই যান বিনোদ।

[আরও পড়ুন: বাংলার প্রচার থেকে ফিরেই করোনা আক্রান্ত যোগী আদিত্যনাথ! সংক্রমিত অখিলেশও]

সংবাদ সংস্থা এএনআই, বিনোদের ছেলের বক্তব্য তুলে ধরেছে।বিনোদের ছেলে অভিযোগ করে বলেন, “আমার বাবা করোনা পজিটিভ ছিলেন। বেশ কয়েকটি হাসপাতালে গেলেও তাঁকে ভরতি নেওয়া হয়নি। শেষ পর্যন্ত নালন্দা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ভরতি নিতে রাজি হয়। কিন্তু বাইরে অপেক্ষা করতে বলে। প্রায় দেড় ঘণ্টা বাবা বিনা চিকিৎসায় অপেক্ষা করছিলেন। তার পর এক সময় তাঁর মৃত্যু হয়।”

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মঙ্গল পান্ডেকে বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “ওই রোগীকে বাঁচানোর চেষ্টা করেছিলেন চিকিৎসক এবং চিকিৎসাকর্মীরা। কিন্তু বাঁচানো যায়নি। যে কোনও মৃত্যুই দুঃখজনক।”

[আরও পড়ুন: নববর্ষ কি শুধুই হিন্দুদের? পয়লা বৈশাখের শুভেচ্ছাতেও বিভাজনের চেষ্টা দিলীপের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement