BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফোনে তিন তালাকে অস্বীকার, মহিলাকে অ্যাসিড ছুড়ল শ্বশুরবাড়ির লোকেরা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 16, 2017 6:32 am|    Updated: September 12, 2020 12:15 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ছ’বছর আগে নিউজিল্যান্ড থেকে ফোনে তিন তালাক দিয়েছিলেন স্ত্রীকে। কিন্তু নাছোড়বান্দা স্ত্রী রেহানা হুসেইন তালাক নিতে অস্বীকার করেন। এবার অ্যাসিড ছুড়ে তাঁকে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ উঠল মাতলুব হুসেইন নামে এক ব্যক্তি ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে। শনিবার ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের পিলভিটে।

[ফের বাতিল ‘পদ্মাবতী’র শুটিং, এবার কারণ দীপিকা]

পুলিশ ইতিমধ্যেই ওই ব্যক্তি-সহ পাঁচ জনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছে। পাশাপাশি আহত রেহানাকে হাসপাতালে ভর্তি করেছে। পুলিশ জানিয়েছে, ‘কোমরের নিচে কিছুটা অংশ পুড়ে গিয়েছে। এখনও মেডিকেল রিপোর্ট আসেনি।’ এর আগে ২০১১ সালে যখন নিউজিল্যান্ড থেকে ফোনে রেহানাকে তিন তালাক দিয়েছিল, তখন রেহানা সেটা মানতে অস্বীকার করে। বদলে আদালতে নিজের দাবিতে মামলাও দায়ের করে। আদালতে এখনও সেই মামলা চলছে। শনিবার শ্বশুরবাড়িতে যাওয়ার পরেই রেহানার উপর অ্যাসিড ছোড়ে স্বামী মাতলুব ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনেরা। এরপরেই স্থানীয় থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়।

[নিজেদেরই বদনাম করছে পাকিস্তান, কটাক্ষ মালালার]

পুলিশের এক আধিকারিক বলেন, ‘১৮ বছর আগে দু’জনের বিয়ে হয়। এরপরেই মাতলুব এবং রেহানা আমেরিকায় চলে যান। সেখান থেকেই সম্পর্কে চিঁড় ধরে। এরপরে ২০১১ সালে দেশে ফিরে আসে মাতলুব। কিন্তু কয়েকদিন পরেই ফের বাইরে চলে যায় সে। চাকরি পেয়ে যাওয়াতেই নিউজিল্যান্ডে চলে যায় সে। সেখান থেকেই স্ত্রীকে তিন তালাক দেয়।’ রেহানার মতে, নিউজিল্যান্ড থেকে ফোনে তাঁকে তিন তালাক দিলেও মানতে চায়নি সে। নিজের অধিকারের দাবিতে আদালতে মামলাও করে। বর্তমানে রেহানা জানিয়েছে, ‘আমি চাই ওরা যেটা করেছে, সেটার জন্য যেন ওদের শাস্তি হয়। ওদের আমি জেলের ভিতরে দেখতে চাই।’

[ভারতকে গরিব দেশ বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় রোষের মুখে Snapchat-এর CEO]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement