৩০ চৈত্র  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

পণের দাবিতে গৃহবধূকে নগ্ন করে মারধরের অভিযোগ, ক্যামেরাবন্দি সেই দৃশ্য

Published by: Arupkanti Bera |    Posted: April 5, 2021 10:39 am|    Updated: April 5, 2021 11:39 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিয়ের পর থেকেই পণের (Dowry) দাবিতে অত্যাচার করা হত। এবার সেই অত্যাচার অন্য মাত্রায় নিয়ে গেলেন বছর চব্বিশের এক মহিলার শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। ওই মহিলাকে নগ্ন করে মারধরের অভিযোগ সামনে এল। সেই ঘটনা নাকি ক্যামেরাবন্দিও করা হয়েছে। ঘটনা জানাজানি হতেই বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যান অভিযুক্তরা। ওড়িশার (Odisha) কেন্দ্রাপাড়া (Kendrapara) জেলার ঘটনা।

স্থানীয় এবং পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, সম্প্রতি কেন্দ্রাপাড়ার কোরুক গ্রামের ওই গৃহবধূর উপর ফের অত্যাচার শুরু হলে প্রতিবেশীরা বাধা দিতে যান। কিন্তু তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোকেরা কোনও কথাই শুনতে রাজি হননি। শেষে খবর যায় ওই গৃহবধূর বাপেরবাড়িতে। মহিলার কাকা এর পর আইনের দ্বারস্থ হন। ভাইঝির শ্বশুরবাড়ির লোকেদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। শেষ পর্যন্ত ওই মহিলাকে শ্বশুরবাড়ির লোকেদের হাত থেকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়।

[আরও পড়ুন: ‘গোয়েন্দা ব্যর্থতা ছিল না’, বিজাপুরে মাওবাদী হামলা নিয়ে দাবি CRPF প্রধানের]

এদিকে অভিযোগ পাওয়ার পর তদন্তে নামে পুলিশ। প্রথমেই নির্যাতিতার বয়ান রেকর্ড করে পুলিশ কিন্তু তাঁর শ্বশুরবাড়িতে পুলিশ পৌঁছে দেখে সেখানে কেউ নেই, সবাই পালাতক। প্রতিবেশীদের সঙ্গে কথা বলে পুলিশ। প্রাথমিক ভাবে অভিযোগের সত্যতা বোঝার চেষ্টা করা হয়। 

পুলিশ অভিযুক্তদের ধরতে বদ্ধপরিকর।ওড়িশা পুলিশ এই মামলায় একটি বিশেষ দল তৈরি করে অভিযুক্তদের ধরার চেষ্টা করছে। শেষ পর্যন্ত পাওয়া খবরে জানা গিয়েছে, অভিযুক্তরা এখনও পুলিশের হাতে ধরা পড়েনি। তবে পুলিশ ভিডিও-সহ অন্যান্য তথ্য প্রমাণ জোগাড় করার চেষ্টা করছে। গোটা ঘটনা ঘিরে ব্যাপক ক্ষোভ ছড়িয়েছে কেন্দ্রাপাড়ার কোরুক গ্রামে। অভিযুক্তদের কড়া শাস্তির দাবি উঠেছে।

[আরও পড়ুন: ফাঁদে ফেলেই কি জওয়ানদের হত্যা করল মাওবাদীরা? বিজাপুর সংঘর্ষ নিয়ে উঠছে প্রশ্ন]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement