BREAKING NEWS

১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  রবিবার ২৯ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

হাথরাস মামলার তদন্ত হবে এলাহাবাদ হাই কোর্টের নজরদারিতেই, নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

Published by: Paramita Paul |    Posted: October 27, 2020 1:38 pm|    Updated: October 27, 2020 3:26 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হাথরাস গণধর্ষণ কাণ্ডের সিবিআই তদন্তের উপর নজর রাখবে এলাহাবাদ হাই কোর্ট (Allahabad High Court)। মঙ্গলবার এই নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ। সিবিআইকে তদন্তের স্টেটাস রিপোর্ট হাই কোর্টে জমা করতে হবে। এমনকী, নির্যাতিতার পরিবারের নিরাপত্তার বিষয়টিও দেখবে হাই কোর্ট।

উত্তরপ্রদেশের হাথরাসে (Hathras Gangrape) দলিত তরুণীর গণধর্ষণ মামলায় আদালতের নজরদারিতে সিবিআই তদন্তের দাবি উঠেছিল। সেই দাবি জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছিলেন এক সমাজকর্মী সত্যেন দুবে। এদিন বোবদের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চে সেই আবেদনের শুনানি হয়। 

[আরও পড়ুন : ৯ সন্তান নিয়ে লালুকে খোঁচা নীতীশের! ‘প্রধানমন্ত্রীরও তো ৬-৭ ভাইবোন’, জবাব তেজস্বীর]

এদিন বিচারপতিরা তাঁদের রায়ে বলেছেন, সিবিআই তদন্তের গতিপ্রকৃতি খতিয়ে দেখবে এলাহাবাদ হাই কোর্ট। নির্যাতিতার পরিবার ও মামলার সাক্ষীদের নিরাপত্তার দিকেও নজর রাখবে হাই কোর্ট। সেখানেই তদন্তের স্টেটাস রিপোর্ট জমা করতে হবে সিবিআইকে। প্রসঙ্গত, তরুণীর শেষকৃত্য নিয়ে স্বতঃপ্রণোদিত মামলা করেছে হাই কোর্ট। তারও শুনানি চলছে।  হাথরাস গণধর্ষণ মামলার শুনানি উত্তরপ্রদেশের বাইরে করার আরজি জানিয়েছিলেন মহিলা আইনজীবীরা। এ বিষয়ে শীর্ষ আদালতের মত, “আগে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা তদন্ত শেষ করুক। তারপর তো সেই পথ খোলা থাকছেই।”

গত ১৪ সেপ্টেম্বর হাথরাসের গ্রামে এক দলিত তরুণীকে ধর্ষণ করে চারজন। দু’সপ্তাহ লড়াইয়ের পর মৃত্যু হয় তাঁর। উত্তরপ্রদেশ পুলিশের বিরুদ্ধে জোর করে দেহ দাহ করার অভিযোগ ওঠে। হাথরাস কাণ্ডে সিবিআই তদন্ত নয়, বিচারবিভাগীয় তদন্তের আবেদন জানিয়েছিল বিরোধীরা।  সুপ্রিম কোর্টে জমা দেওয়া হলফনামায় আদালতকে সিবিআই তদন্তে নজর রাখার আরজি জানাল উত্তরপ্রদেশ সরকারও। উত্তরপ্রদেশ প্রশাসনের তরফে সুপ্রিম কোর্টের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে যাতে সিবিআই তদন্তের উপর সুপ্রিম কোর্ট নজর রাখে। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা ১৫ দিনের মধ্যে যাতে উত্তরপ্রদেশ প্রশাসনের কাছে তদন্তের রিপোর্ট জমা দেয়, সেই আবেদনও করা হয়েছিল। 

[আরও পড়ুন : পুলিশের থেকে ১২ লাখ টাকা ছিনিয়ে পালাল বিজেপি কর্মীরা! চাঞ্চল্যকর অভিযোগ তেলেঙ্গানায়]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement