১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৮  রবিবার ১৬ মে ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

চারবার বিয়ের পরও পরকীয়া! শেষে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় স্বামীর হাতে খুন ড্রাগ মাফিয়া

Published by: Arupkanti Bera |    Posted: April 28, 2021 1:10 pm|    Updated: April 28, 2021 1:56 pm

Allegedly an eight-month pregnant 'drug queen' was shot dead by husband in Delhi’s Nizamuddin area । Sangbad Pratidin

সানিয়া, ওয়াসিম।

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বয়স ২৯ বছরের কাছাকাছি। এর মধ্যেই দিল্লির (Delhi) বড় একটা অংশে মাদক চক্রের রানি হয়ে উঠেছিল এক মহিলা। আর এর মধ্যে চার চারটি বিয়েও করে সে। যদিও এবার ভাল করে ঘর বাঁধার আগেই পুলিশে ধরে নিয়ে যায়। কিন্তু ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় জামিনে মুক্তিও পায়। গর্ভে ছিল যমজ সন্তান। ছাড়া পেয়েই মনে হয় কাল হল। চতুর্থ বরের গুলিতে প্রাণ হারাতে হল তাকে। না, কোনও রোমহর্ষক সিনেমার প্লট নয়। খোদ দিল্লির বুকে মঙ্গলবার এমন ঘটনা ঘটে গেল। তবে খুনের ঘটনার পিছনে একাধিক কারণ খুঁজে পাচ্ছে পুলিশ। কোনও সম্ভাবনাই উড়েয় দেওয়া হচ্ছে না।

পুলিশ (Delhi police) সূত্রে জানা গিয়েছে, গুলি চালানোয় অভিযুক্তের নাম ওয়াসিম। বছর খানেক আগে তার সঙ্গে বিয়ে হয় ড্রাগ মাফিয়া সানিয়ার। সানিয়া এর আগে আরও ৩টি বিয়ে করে। কিন্তু কারওর সঙ্গেই সম্পর্ক টেকেনি। প্রথম দুই স্বামী বিচ্ছেদের পর বাংলাদেশে পালিয়ে যায়। তার পর দিল্লি-এনসিআর এলাকার ড্রাগ মাফিয়া শরাফত শেখকে বিয়ে করে সানিয়া। যাকে আবার দিল্লি পুলিশ এনডিপিএস আইনে গ্রেপ্তার করে। এর পর ওয়াসিমকে বিয়ে করে সানিয়া। কিন্তু তার কিছুদিন পরই সানিয়া আবার গ্রেপ্তার হয়।

এখানেই নাকি কাহিনিতে প্রবেশ করে সানিয়ার বোন রেহানা। অভিযোগ ওয়াসিমের সঙ্গে রেহানার বিবাহ বহির্ভুত সম্পর্ক তৈরি হয়। অন্তঃসত্ত্বা সানিয়া জামিনে ছাড়া পেলে ওয়াসিম-রেহানার সম্পর্ক প্রকাশ্যে চলে আসে। যা নিয়ে নিত্যদিন ঝামেলা শুরু হয়। ওয়াসিম নাকি সানিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক ভাঙতে চাইছিল। রেহানাকে নিয়ে ঘর বাঁধার স্বপ্ন দেখছিল ওয়াসিম। সেই কারণেই নাকি পরিকল্পনা করে গুলি করে সানিয়াকে।

[আরও পড়ুন: করোনা রুখতে অবৈধ হোটেল উচ্ছেদে গিয়ে আক্রান্ত পুলিশ, ধুন্ধুমার জলপাইগুড়িতে]

পুলিশ জানিয়েছে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ দিল্লির হজরত নিজামুদ্দিনের ফায়ারিংয়ের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেখে এক মহিলা ও এক যুবক রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। পুলিশ বুঝতে পারে এই মহিলাই ড্রাগ মাফিয়া সানিয়া। আর যুবকটি হল তার বাড়ির কাজের লোক। গুরুতর আহত অবস্থায় বাড়ির ওই কর্মচারীকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। সানিয়াকে বাঁচাতে গিয়ে গুলি খায় সে। সামনের একটি সিসিটিভি ক্যামেরায় সেই দৃশ্য ধরাও পড়ে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, গুলি চালাতে চালাতে এক সময় বন্দুক খালি হয়ে যায়। ফের বন্দুকে গুলি ভরে চালাতে শুরু করে ওয়াসিম। স্ত্রী সানিয়াকে বেশ কয়েকটা গুলি করে। হয়তো সানিয়ার মৃত্যু নিশ্চিত করতে চেয়েছিল ওয়াসিম। পুলিশ সূত্রে আরও জানা গিয়েছে সানিয়াকে গুলি করে ওয়াসিম নিজেই ২টি বন্দুক নিয়ে নিজামুদ্দিন থানায় হাজির হয়। পুলিশকে জানায় সে স্ত্রী সানিয়াকে গুলি করেছে।

[আরও পড়ুন: ভোটের ধাক্কায় ৪৮ ঘণ্টা উত্তর কলকাতায় বন্ধ টেস্টিং ও ভ্যাকসিন সেন্টার, টান টেস্ট কিটেও]

এর পর তদন্তে নেমে পুলিশ অনেকগুলি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে। পুলিশ মনে করছে ওয়াসিমের যেহেতু অপরাধের পূর্ব কোনও রেকর্ড নেই তাই এই পরিকল্পনা তার একার নয়। এর সঙ্গে রেহানার মাথাও কাজ করছিল। আবার এমনও হতে পারে, দিল্লির মাদক চক্রের গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য চেপে দেওয়ার জন্য পরিকল্পনা করে ওয়াসিমকে দিয়ে খুন করানো হল সানিয়াকে। সেই সম্ভাবনা এবং তার পিছনে কারা কারা আছে তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement