BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

চিনের সঙ্গে সংঘাতের আবহেই আমজনতার জন্য সিয়াচেনের দরজা খুলল ভারতীয় সেনা

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: July 27, 2020 1:30 pm|    Updated: July 27, 2020 1:30 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল দেশ: এভারেস্ট, অন্নপূর্ণা, সান্দাকফু, কাঞ্চনজঙ্ঘা– পাকদণ্ডি পেরিয়ে পৌঁছে গিয়েছেন তো পাহাড়চূড়ায়? দুর্গম পর্বতের টানে কতবারই তো ঝুঁকি নিয়েছেন। এবার আপনার অ্যাডভেঞ্চারের জন্য খুলে যাচ্ছে নতুন এক দরজা। চিনের সঙ্গে সংঘর্ষের আবহেই আমজনতার জন্য সিয়াচেনের দরজা খুলে দিল ভারতীয় সেনা। এবার দরাজ হাতে বিশ্বের উচ্চতম যুদ্ধক্ষেত্রে সেনার বেস ক্যাম্প ও লাদাখের কুমার পোস্টে অ্যাডভেঞ্চারের জন্য পারমিট দিচ্ছে সেনাবাহিনী।

[আরও পড়ুন: ‘করোনা ছড়িয়ে ভারতীয়দের হত্যা করো’, জেহাদিদের বার্তা ISIS’র]

সাধারণ মানুষের জন্য সিয়াচেন ভ্রমণের পথ খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল গত বছরের অক্টোবর মাসেই। গতবছরই সেই কথা ঘোষণা করেছিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। কিন্তু প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় (LAC) চিনের সঙ্গে সংঘর্ষের আবহে এই সিদ্ধান্তে স্থির থেকে পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে সিয়াচেনের পথ। সিয়াচেনের বেস ক্যাম্প থেকে কুমার পোস্ট পর্যন্ত এবার থেকে যেতে পারবেন সাধারণ পর্যটকরা। এতদিন যা ছিল সেনাবাহিনীর জন্য সংরক্ষিত অঞ্চল। এবার এই রাস্তায় সেনাবাহিনীর পাশাপাশি বিশেষ অনুমতিপত্র নিয়ে যে কেউ যেতে পারবেন। তাঁদের সেই ছাড়পত্র দেওয়া হবে। তবে লালফৌজের সঙ্গে সংঘাতের আবহে সেনা মোতায়েন থাকায় জনপ্রিয় শিয়ক-চুশুল বা প্যাংগং লেক-চুশুল পথে পর্যটকদের যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়নি। বিশ্লেষকদের মতে, এতদিন পর্যন্ত চিন সীমান্তে ফরওয়ার্ড এলাকায় অবস্থিত গ্রামগুলিতে সাধারণের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা ছিল। কিন্তু এবার সেই নীতি পালটাতে চলেছে কেন্দ্র। তাই সাধারণ মানুষের সফরের পথ খুলে দেওয়া হয়েছে।

পৃথিবীর উচ্চতম ও শীতলতম যুদ্ধক্ষেত্র এই সিয়াচেন হিমবাহ অঞ্চল। একদিকে পাকিস্তান, আরেকদিকে চিন নিয়ে সিয়াচেনের অবস্থান ভারতের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এর আবহাওয়া এতটাই প্রতিকূল যে সেখানে জীবনযাপন কার্যত অসম্ভব। একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত সিয়াচেনে সীমান্তের প্রহরীদের রাখা হত। কারগিল যুদ্ধের সময়ে সেনার অনুপস্থিতির সুযোগ নিয়েই ঢুকে পড়েছিল পাকিস্তান সেনা। পরের ঘটনা সকলেরই জানা। সাধারণ তাপমাত্রাই এখানে মাইনাস চল্লিশ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি। শীতল, রুক্ষ পাহাড়ি আবহাওয়ায় ৭২ঘণ্টা একটানা থাকা মানেই জীবনের খুব বড় একটা প্রতিকূলতা কাটিয়ে ওঠা। ভারতীয় সেনাবাহিনীকেও সিয়াচেনে এমন স্বল্প সময়ের জন্য অদলবদল করে রাখা হয়। তো তেমনই এক দুর্গমের চেয়েও দুর্গমতর স্থান আপনাকে স্বাগত জানাচ্ছে।

কীভাবে যাবেন সিয়েচেনে? বেসক্যাম্প থেকে কুমার পোস্ট প্রায় ৪০০০ ফুট খাড়াই পথ। কুমার পোস্টের অবস্থান ১৫০০০ ফুটেরও উপরে। বেসক্যাম্প পরতাপুর থেকে যেতে হয় কুমার পোস্ট। এই পর্যন্ত আপনার যাত্রাপথ। প্রতি বছর সেনাবাহিনী বেসক্যাম্প থেকে কুমার পোস্ট পর্যন্ত অভিযানের আয়োজন করে থাকে। এবার থেকে তাঁদের সঙ্গে আপনিও শামিল হতে পারেন। তবে আবহাওয়ার সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেওয়ার জন্য কিন্তু খুব সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া দরকার। মাইনাস ৪০ ডিগ্রিতে কী ধরনের খাবার সঙ্গে রাখতে পারেন, তার সম্যক ধারণা থাকা চাই।

[আরও পড়ুন: ফের কথার খেলাপ চিনের, লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় ১৪টি কামান বসাল লালফৌজ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement