৩০ আশ্বিন  ১৪২৬  শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে দেশের জনক বলে টুইট করে বিতর্কে জড়ালেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর স্ত্রী অম্রুতা ফড়ণবিস। মঙ্গলবার দেশজুড়ে মহাধুমধামে মোদির ৬৯ তম জন্মদিন পালন করেন বিজেপি নেতা-কর্মীরা। প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে দেশজুড়ে সেবা সপ্তাহও পালন করছেন তাঁরা। বিজেপির পাশাপাশি গতকাল অন্য রাজনৈতিক দলের নেতারাও মোদিকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে টুইট করেন। এইরকমই একটি টুইটের জন্য বিতর্কে জড়ালেন দেবেন্দ্র ফড়ণবিসের স্ত্রী অম্রুতা।

[আরও পড়ুন: ১৮ অক্টোবরের মধ্যে শেষ করতে হবে অযোধ্যা মামলার শুনানি, নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের]

মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি টুইট করেন, ‘দেশের জনক নরেন্দ্র মোদিজিকে শুভ জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাই। ওনার জীবন আনন্দময় হোক। তিনি সমাজের উন্নতির জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করতে অনুপ্রাণিত করেন আমাদের।’ এই টুইটের সঙ্গে একটি গানের অনুষ্ঠানের ভিডিও পোস্ট করেছেন তিনি। তাতে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর স্ত্রীকে গান গাইতে দেখা যাচ্ছে। আর সামনের চেয়ারে বসে সেই অনুষ্ঠানটি দেখছেন দেবেন্দ্র ফড়ণবিস।

মঙ্গলবার অম্রুতা ফড়ণবিসের পোস্টের পরই বিতর্ক শুরু হয় দেশজুড়ে। তাঁর সমালোচনা করার পাশাপাশি নেটিজেনরা কেউ কেউ প্রশ্ন তোলেন, এতদিন তো মহাত্মা গান্ধীকে জাতির জনক হিসেবে জানতাম। নরেন্দ্র মোদি কবে দেশের জন্ম দিয়েছেন তা তো জানি না।

[আরও পড়ুন: আত্মীয়ের সঙ্গে সম্পর্কে বিধবা মা, ক্ষোভে যুগলকে মূত্রপান করাল দুই ছেলে]

একজন টুইটারাট্টি প্রশ্ন তোলেন, কখন ও কীভাবে প্রধানমন্ত্রী মোদি দেশের জনক হলেন? দেশে বেকারত্বের হার যখন অতীতের সমস্ত পরিসংখ্যানকে টপকে দিয়েছে। অর্থনীতি ক্রমশ ভেঙে পড়ছে। তখন কী এমন ভাল কাজ হল যার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে দেশের জনক বলতে হবে। কেউ কেউ আবার এই টুইটকে চাটুকারিতার জলন্ত উদাহরণ বলে উল্লেখ করেছেন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং