১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  বুধবার ৩০ নভেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

মুসলিম আর খ্রিস্টানের ছেলে ব্রাহ্মণ কী করে? রাহুলকে ‘অশালীন’ প্রশ্ন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: March 11, 2019 8:53 pm|    Updated: March 12, 2019 1:19 pm

Ananth Hegde slams Rahul Gandhi

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীকে ব্যক্তিগত আক্রমণ বিজেপি নেতার। একই সঙ্গে খেললেন ধর্মীয় মেরুকরণের তাস। এবার বক্তা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা কর্ণাটকের বিতর্কিত বিজেপি নেতা অনন্ত কুমার হেগড়ে। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর বংশ পরিচয় নিয়েই প্রশ্ন তুলে দিলেন তিনি। তাঁর প্রশ্ন, মুসলিম বাবা এবং খ্রিষ্টান মায়ের ছেলে হয়ে রাহুল গান্ধী ব্রাহ্মণ কী করে হয়?

[রাহুল গান্ধীর ‘জাত’ নিয়ে প্রশ্ন তুললেন বিজেপির মুখপাত্র সম্বিত]

কংগ্রেস সভাপতির ধর্ম, বা গোত্র নিয়ে আলোচনা অবশ্য রাজনীতিতে নতুন কিছু নয়। বিজেপি নেতারা একাধিকবার কংগ্রেস সভাপতির ধর্ম নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। আবার কংগ্রেস নেতারাও, রাহুলকে পৈতেধারী ব্রাহ্মণ হিসেবে বর্ণনা করেছেন। এবার হেগড়ে রাহুলের পাশাপাশি তাঁর বাবা রাজীব গান্ধীর ধর্ম নিয়েও প্রশ্ন তুলে দিলেন। কর্ণাটকের একটি সভায় সার্জিক্যাল স্ট্রাইক ইস্যুতে কংগ্রেস সভাপতিকে কাঠগড়ায় তুলতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বললেন, “যখন গোটা বিশ্ব সার্জিক্যাল স্ট্রাইককে বৈধতা দিয়েছে তখন ওরা প্রমাণ চায়। যে মুসলিম ব্যক্তির বাবা মুসলমান, মা খ্রিস্টান সে নিজেকে পৈতেধারী ব্রাহ্মণ হিসেবে দাবি করে। ওর কাছে কী কোনও প্রমাণ আছে যে ও হিন্দু?” অনন্তকুমার হেগড়ের এই প্রশ্ন শুনে রীতিমতো রেগে আগুন স্থানীয় কংগ্রেস নেতারা। কর্ণাটক প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি দীনেশ গুণ্ডুরাওয়ের অভিযোগ, “কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনন্ত কুমার আরও একবার লজ্জাজনক, অশালীন এবং সাম্প্রদায়িক মন্তব্য করলেন। বারবার তাঁর এই ধরনের মন্তব্য বুঝিয়ে দিচ্ছে, নরেন্দ্র মোদি এবং অমিত শাহ-র আশীর্বাদের হাত তাঁর মাথায় রয়েছে।”

[মোদি নন, প্রধানমন্ত্রী পদে রাহুলকেই পছন্দ মুসলিম ও তফসিলিদের]

রাহুল গান্ধীর গোত্র নিয়ে এর আগে প্রশ্ন তুলেছেন বিজেপির একাধিক প্রশ্ন। সম্প্রতি মধ্যপ্রদেশে পুজো দিতে গিয়ে নিজের গোত্র জানিয়েছেন রাহুল। সেই মন্দিরের ব্রাহ্মণ রাহুলের হয়ে তাঁর গোত্রটি প্রকাশ করেন। তাঁর দাবি, “রাহুলের গোত্র দত্তাত্রেয় এবং উনি কাশ্মীরী ব্রাহ্মণ। এর আগে এই মন্দিরে পুজো দিয়েছেন মতিলাল নেহরু, জওহরলাল নেহরু, সঞ্জয় গাঁধী, মানেকা গাঁধী। সবার পুজো দেওয়ার নথিই আমাদের কাছে আছে। সেই সব নথিও একই কথা বলছে। ঘাটে পুজো দেওয়ার সময় রাহুল নিজেও আমাকে এই ধর্মীয় পরিচয়ই দিয়েছেন। দত্তাত্রেয় গোত্রের মানুষ কউল সম্প্রদায়ের হয়, আর কউলরা কাশ্মীরী ব্রাহ্মণ।”

 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে