২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ত্রাণ চাইতেই বাঙালিদের গালিগালাজের অভিযোগ বিজেপির মন্ত্রীর বিরুদ্ধে, ক্ষোভে ফুঁসছে অসম

Published by: Paramita Paul |    Posted: July 18, 2020 11:02 am|    Updated: August 21, 2020 1:47 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বন্যায় ভাসছে অসম। সেখানে সময়মতো ত্রাণ মিলছে না বলে অভিযোগ উঠছে। এদিকে হাতের কাছে মন্ত্রীকে পেয়ে সেই অভিযোগই জানিয়েছিলেন রঙ্গিয়া এলাকার এক বাঙালি মহিলা। ত্রাণ তো দূরে থাক, অভিযোগর বদলে কপালে জুটল অসমের সেচ মন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা ভবেশ কলিতার (Bhabesh Kalita) গালিগালাজ। অভিযোগ, বাঙালি জাতিকে ‘খচ্চর’ বলে  গালিগালাজ করেছেন ওই মন্ত্রী। এরপরই অসম জুড়ে তীব্র ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। যদিও এ বিষয়ে ওই মন্ত্রীর কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

বানভাসি অসম। এমন পরিস্থিতি বন্যায় বিধ্বস্ত নিজের নির্বাচনী এলাকা রঙ্গিয়া পরিদর্শনে গিয়েছিলেন ভবেশ। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম সূত্রে খবর, রঙ্গিয়াতে বন্যার জেরে বহু মানুষ জাতীয় সড়কে আশ্রয় নিয়েছেন। সেই এলাকা পরিদর্শনের সময় এক মহিলা মন্ত্রীর কাছে পর্যাপ্ত ত্রাণ পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করেন। চাল, ডাল পেলেও শিশুর জন্য খাবার পাননি বলে মন্ত্রীর কাছে অভিযোগ করেছিলেন তিনি। সেই সময় মন্ত্রী নাকি বলেন, ‘বাঙালি খচ্চর জাতি’। বিষয়টি সামনে আসতেই অসমের বাঙালিদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। উঠেছে সমালোচনার ঝড়ও।

[আরও পড়ুন : বানভাসি অসমে মৃত বেড়ে ১০৪, ক্ষতিগ্রস্ত ৩০ লক্ষের বেশি]

সরব হয়েছে অসম বাঙালি যুব ছাত্র ফেডারেশনও। সংগঠনের প্রশ্ন, বাঙালির ভোটে নির্বাচিত হয়ে তিনি জাতি বিদ্বেষী অশ্লীল ভাষা প্রয়োগ করেন কোন সাহসে? একইসঙ্গে মন্ত্রীকে হুঁশিয়ারি দিয়ে সংগঠনটির দাবি, ২০২১-এর নির্বাচনে উত্তর পেয়ে যাবেন ওই মন্ত্রী। এত বিক্ষোভের মাঝেও আশ্চর্যজনকভাবে চুপ অসমের সেচমন্ত্রী। প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালে অসমের রঙ্গিয়া বিধানসভা থেকে জয়ী হয়েছিলেন ভবেশ কলিতা। রাজ্যের সেচ ও শিক্ষা দপ্তরের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিভাগের দায়িত্বে তিনি রয়েছেন।

[আরও পড়ুন : মনমোহন জমানায় রেকর্ড হারে গরিবি কমেছে ভারতে, অক্সফোর্ডের গবেষণায় মিলল তথ্য]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement