BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

গোমূত্রর উপরে কেন ১৮% জিএসটি, প্রতিবাদে সরব বাবা রামদেব

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 17, 2018 11:12 am|    Updated: January 17, 2018 11:12 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশের রিটেল মার্কেটে বিদেশি বিনিয়োগের বিরোধিতায় সরব বাবা রামদেব। জানালেন, বিদেশি বিনিয়োগের ফলে দেশের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ক্ষেত্রে উন্নতির সম্ভাবনা থাকলেও, ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ অবস্থান থেকে কেন্দ্রের সরে আসা উচিত নয়। পাশাপাশি কেন্দ্রের কাছে তাঁর আবেদন, গোমূত্রর উপর থেকে জিএসটি অবিলম্বে কমানো হোক। বর্তমানে গোমূত্রর উপর ১৮% জিএসটি লাগু রয়েছে। বাবা রামদেবের যুক্তি, পতঞ্জলির নানা ওষুধ ও মেঝে পরিষ্কারের পণ্যে গোমূত্র ব্যবহার করা হয়। তাই গোমূত্রর উপর থেকে জিএসটি কমানোর দাবি জানিয়েছেন তিনি।

[প্রতিরক্ষামন্ত্রী সুখোইয়ে সওয়ার হলেও ঢাকা পড়ছে না বায়ুসেনার করুণ অবস্থা]

দাবির তালিকা এখানেই শেষ নয়। বুধবার কেন্দ্রকে টিভি চ্যানেলের উপর ধার্য চড়া ট্যাক্সের প্রতিবাদেও একহাত নিয়েছেন ‘পতঞ্জলি’র প্রতিষ্ঠাতা। রামদেবের দাবি, ধর্মীয় টিভি চ্যানেল, যেমন আস্থা, অরিহন্ত ও বৈদিক-চ্যানেলের জন্য এক থেকে দেড় লক্ষ টাকা করে চাইছে কেন্দ্র। বলছেন, ‘কেন্দ্র আমাদের প্রত্যেকের কাছ থেকে এক বা দেড় লক্ষ টাকা করে চাইছে। আমার আবেদন, সাধু ও সন্তদের উপর কর বসাবেন না দয়া করে। আমরা ধর্মীয় মানুষ। আপনারা যদি দেশকে ভালবাসেন, ধর্মীয় কথা শুনতে চান, তাহলে দয়া করে কর মকুব করুন। একজন বাবা কোথা থেকে এত টাকা পাবেন?’ তাঁর অভিযোগ, কেন্দ্রীয় সরকার আস্থা ও বৈদিক চ্যানেলের জন্য সবমিলিয়ে ৩২ কোটি দাবি করছে। এটা লজ্জাজনক বলে মন্তব্য করেছেন এই যোগগুরু।

[কীভাবে ঘুড়ি ওড়াতে হয়, নেতানিয়াহুকে শেখালেন মোদি]

নয়াদিল্লিতে ‘আস্থা’ মোবাইল অ্যাপ লঞ্চ করতে এসে এই কথা বলেন বাবা রামদেব। এই অ্যাপের মাধ্যমে আস্থা বা বৈদিক-এর মতো চ্যানেলের লাইভ স্ট্রিমিং দেখা যাবে মোবাইলেই। যোগগুরুর দাবি, দেশে এরকম আগে হয়নি। তামিল, তেলুগু, কন্নড়, মালয়ালম, ওড়িয়া ও বাংলাতে দেখা যাবে বিভিন্ন আধ্যাত্মিক শো। এই অ্যাপেই খোঁজ মিলবে বাবা রামদেবের আসন্ন যোগা ক্যাম্পের, যেগুলি ‘ডাব’ করে বিভিন্ন ভাষাভাষীর দর্শকদের দেখানো হবে। সবমিলিয়ে সময়টা ভালই যাচ্ছে বাবা রামদেবের। তাঁর আয়ুর্বেদিক ব্র্যান্ড পতঞ্জলির ব্যবসা আগামী বছরেই দেশের বৃহত্তম কনজিউমার গুডস সংস্থা ‘হিন্দুস্তান ইউনিলিভার’কে টপকে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। ৮০ বছরেরও পুরনো ওই সংস্থার বার্ষিক বিক্রিবাট্টার পরিমাণ ৩৪,৪৮৭ কোটি টাকা। আর পতঞ্জলির ক্ষেত্রে সংখ্যাটা ১০, ৫৬১ কোটি টাকা। বাজার বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আসন্ন বছরে দুই সংস্থার মধ্যেই বিক্রি বাড়ানোর জোর টক্কর দেখা যাবে।

[দেশ জুড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় নজরদারি চালানোর ইঙ্গিত সেনাপ্রধান রাওয়াতের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement