১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

রক্তাক্ত স্মৃতি অতীত, পূর্বপুরুষের টানে ফের মুম্বইয়ে পা রাখল মোশে

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 16, 2018 9:01 am|    Updated: January 16, 2018 9:01 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ন’বছর আগের বিভীষিকা মা-বাবাকে হারিয়ে ফের মুম্বই এল মোশে হোলৎসবার্গ। নরিম্যান হাউসের সেই ভয়াবহ হামলার সময় প্রায় কিছুই বুঝতে পারেনি দু’বছরের শিশু। ন্যানি স্যান্ড্রা স্যামুয়েল বুকে আগলে শিশু মোশের প্রাণ বাঁচান সেদিন। তবে সন্ত্রাসবাদীদের গুলিতে প্রাণ হারান তার বাবা গাবি ও রিভকা হোলৎসবার্গ।

মঙ্গলবার, দাদু রাবি হোলৎসবার্গ ন্যাখম্যানের সঙ্গে মুম্বই বিমানবন্দরে পা রাখে মোশে। তাঁদের নিরাপত্তার জন্য এদিন সেখানে মোতায়েন ছিল ইজরায়েল ও ভারতের প্রায় ১০০ জন কমান্ডো। বিমানবন্দরে পা দিয়ে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন রাবি হোলৎসবার্গ। ছেলে-বৌমাকে হারানোর স্মৃতি ফের চাগাড় দিয়ে তোলে বেদনা। তবে এবারে অনেকটাই আশাবাদী তিনি। সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ঈশ্বরকে ধন্যবাদ মোশে ফের মুম্বই ফিরতে পেরেছে। এখন মুম্বই অনেকটাই সুরক্ষিত। জানা গিয়েছে, মুম্বইয়ের তাজমহল হোটেলে রয়েছে মোশে ও তার পরিবার।

নরিম্যান হাউসের ডিরেক্টর রাবি ইজরায়েল কজলভসকি জানান, আগামী বৃহস্পতিবার ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে সেখানে আসবে মোশে। ২৬/১১ হামলায় নিহতদের শ্রদ্ধা জানিয়ে একটি স্মৃতি-প্রকল্প উদ্বোধন করবে সে। সেখানে তার মা-বাবার জন্য একটি বিশেষ কক্ষ থাকবে। এই সফর ঘিরে সবার মনেই আবেগ ও আনন্দের তুফান বইছে।

গতবছরের জুলাই মাসে ইজরায়েল সফরে যান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেখানে মোশে ও তার পরিবারের সঙ্গে দেখা করে তাঁদের আমন্ত্রণ জানান তিনি। উল্লেখ্য, ২০০৮ সালের ২৬ নভেম্বর জঙ্গিদের গুলিতে রক্তাক্ত হয় মুম্বই। সেই অভিশপ্ত রাতে নরিম্যান হাউসে জঙ্গিদের গুলিতে ঝাঁঝরা হয়ে প্রাণ হারান মোশের মা-বাবা। ঘটনার সাত বছর আগে তাঁরা ভারতে এসেছিলেন। সেদিন খুদে মোশে বুঝতে পারেনি কী ঘটে গিয়েছে। তবে আজ তাঁর কাছে ছবিটা অনেকেটাই পরিষ্কার।

[রাষ্ট্রসংঘে একটা ভোট ভারতের সঙ্গে সুসম্পর্কে চিড় ধরাবে না, আশ্বাস নেতানিয়াহুর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement