৫ ফাল্গুন  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সারমেয়রা প্রভুভক্ত হিসেবেই পরিচিত। কিন্তু রাস্তার কুকুর? খিদের জ্বালায় তারা যে কতটা ভয়ংকর হয়ে উঠতে পারে, তারই প্রমাণ মিলল এবার। মায়ের চোখের সামনে রাস্তার কুকুররা ছিঁড়ে খেল শিশুকে। শুক্রবার এমনই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে ভোপালের আওয়াধপুরি এলাকায়।

সঞ্জু নামের বছর ছয়েকের শিশুটির বাড়ি শিব সংগ্রাম নগরে। বাড়ি থেকে মাত্র ৩০০ মিটার দূরে একটি মাঠে খেলা করছিল সে। আর সেখানেই ঘটে এই নৃশংস ঘটনা। কয়েকটি রাস্তার কুকুর ঘিরে ধরে সঞ্জুকে। তারপরই তার উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। আকস্মিক ঘটনা দেখে চমকে গিয়ে সন্তানকে বাঁচাতে ছুটে যান মা। ছেলেকে সারমেয়দের হাত থেকে রক্ষা করতে আপ্রাণ চেষ্টা করেন। কিন্তু তাদের হিংস্র আক্রমণের কাছে শেষমেশ ব্যর্থ হন।

[আরও পড়ুন: বুদ্ধপূর্ণিমায় রাজ্যে আইএস হানার আশঙ্কা, সতর্কবার্তা গোয়েন্দাদের]

গত মাসেই আরেক সন্তানের মা হয়েছেন ওই মহিলা। অস্ত্রোপচার হওয়ায় এখনও শরীর সম্পূর্ণ সুস্থ নয়। বাড়িতে শুয়েই বিশ্রাম নিচ্ছিলেন তিনি। ঠিক এমন সময় তাঁর স্বামী বাড়ি ফিরে ছেলের খোঁজ করেন। তখনই বাইরে বেরিয়ে মহিলা দেখেন তাঁর ছেলেকে ঘিরে রয়েছে বেশ কয়েকটি কুকুর। সঙ্গে সঙ্গে সাহায্য চেয়ে চিৎকার জুড়ে দেন তিনি। আর্তনাদ শুনে ছুটে আসেন প্রতিবেশীরা। কিন্তু মাঠে গিয়ে দেখেন পড়ে রয়েছে সঞ্জুর অসাড় দেহ। শিশুকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। গোটা ঘটনায় ক্ষুব্ধ এলাকার বাসিন্দারা। তাঁদের অভিযোগ, দিনের পর দিন পথকুকুরের পরিমাণ বেড়েই চলেছে। কিন্তু পুরসভা কোনও পদক্ষেপ করেনি। ভোপালের মেয়র অলোক শর্মা বলেন, “নিঃসন্দেহে এটি অত্যন্ত দুঃখের ঘটনা। আমরা রাস্তার কুকুর নিয়ন্ত্রণের যথেষ্ট চেষ্টা করছি। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ এবং পশু সুরক্ষা সংস্থার নিয়মাবলী সে পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে। নিয়মে বদল আনার জন্য দ্রুত আবেদন জানাব।” উল্লেখ্য, গতবছর নিজের বাড়ির সামনে রাস্তার কুকুরদের হামলার মুখে পড়তে হয়েছিল মেয়রকেও। গুরুতর আহত হয়েছিলেন তিনি। শুক্রবার সারমেয়র হানায় সন্তান হারিয়ে শোকস্তব্ধ সঞ্জুর পরিবার।

[আরও পড়ুন: যদুবাবুর বাজারে বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ড, পুড়ে ছাই প্রসিদ্ধ ভুজিয়ার দোকান]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং