BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বুধবার ২ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘আমার সঙ্গে অস্পৃশ্যের মতো আচরণ করেছে’, বিরোধীদের যাত্রাভঙ্গ করেই বিস্ফোরক ওয়েইসি

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: November 11, 2020 9:25 am|    Updated: November 11, 2020 9:25 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রথমবার বিধানসভা নির্বাচনে লড়েই ৫টি আসন। ২৪৩টির মধ্যে মাত্র ২০টি আসনে লড়েই প্রায় ১.২৫ শতাংশ ভোট। বিহারের ভোটগণনায় একপ্রকার অবিশ্বাস্য ফলাফল হায়দরাবাদের সাংসদ আসাদউদ্দিন ওয়েইসির (Asaduddin Owaisi) দল এআইএমএইএমের। অথচ, গোটা দেশের বিরোধী শিবির তাঁর দলের উপরই লাগিয়ে দিয়েছে ‘ভোট কাটোয়া’র তকমা। কংগ্রেসের অভিযোগ, বিজেপির বি টিম হিসেবে কাজ করছেন ওয়েইসি। যাবতীয় অভিযোগের মধ্যে এবার তথাকথিত বড় দলগুলিকে পালটা তোপ দাগলেন ওয়েইসি। নিজের দলের সাফল্যের দিনে তিনি খেললেন ‘ভিকটিম কার্ড’।

বিহারের সীমাঞ্চল এলাকায় ২৪ আসনে মুসলিম জনসংখ্যা ৪০-৭০ শতাংশ। এই আসনগুলি চিরাচারিতভাবে কংগ্রেস (Congress) আরজেডির দখলে যায়। কিন্তু এবার এই ২৪ আসনের মধ্যে ১৫টি বের করে নিয়েছে এনডিএ। এর একটা বড় কারণ হলেন ওয়েইসি। তাঁর দলের ভোট কাটাকাটি সুবিধা দিয়েছে গেরুয়া শিবিরকে। যদিও ওয়েইসি দাবি করলেন, বিহারে তিনি ভোট কাটোয়া হয়ে থাকতে চাননি। বিজেপিকে হারানোই তাঁর দলের লক্ষ্য ছিল। জোট করে নির্বাচন লড়ার জন্য সব বড় দলের সঙ্গেই যোগাযোগ করেছিলেন। কিন্তু তথাকথিত বড় দলগুলি তাঁকে পাত্তাই দিতে চাননি। ফলপ্রকাশের পর হায়দরাবাদের সাংসদ বলেন,”রাজনীতিতে ভুল থেকেই শিক্ষা নিতে হয়। আমাদের বিহারের রাজ্য সভাপতি সব বড় রাজনৈতিক দলের নেতাদের সঙ্গে ব্যক্তিগত স্তরে যোগাযোগ করেছিলেন। কিন্তু সবাই আমাদের সঙ্গে অস্পৃশ্যের মতো আচরণ করেছে। বহু মুসলিম নেতার সঙ্গেও আমরা কথা বলেছিলাম। কিন্তু কোনও সমীকরণই তৈরি হয়নি। আমি বলতে পারব না কেন।” হায়দরাবাদের সাংসদ বলছেন, “এই দিনটা আমার দলের জন্য খুব জরুরি একটা দিন। বিহারের মানুষ আমাদের আশীর্বাদ করেছেন। জানিনা বিহারবাসীকে কী বলে ধন্যবাদ দেব।”

[আরও পড়ুন: সত্যি হল আশঙ্কাই! তেজস্বীর বাড়া ভাতে ছাই দিল ওয়েইসি-মায়াবতীর জোট, বলছে কংগ্রেস]

এদিকে আরেক ‘ভোট কাটোয়া’ চিরাগ পাসওয়ান বিহারের রাজনীতি থেকে কার্যত নিশ্চিহ্ন। সর্বোচ্চ ১৩৪ আসনে প্রার্থী দিয়ে সাড়ে ৫ শতাংশ ভোট পেলেও তাঁর দল আসন জিতেছে মাত্র একটি। তাও আবার কোনওক্রমে সামান্য ব্যবধানে। ফলাফলের পর চিরাগ বলছেন,”বিহারের মানুষ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উপর আস্থা রেখেছেন। এই জয় প্রধানমন্ত্রীর জয়। রেজাল্ট দেখিয়ে দিয়েছে মোদি আবেগ এখনও বিহারে পুরোদস্তুর বর্তমান।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement