BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মেয়ের বিয়ের নিমন্ত্রণপত্রে সরকারি লোগো, বিতর্কে বিজেপি বিধায়ক

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 10, 2018 7:32 am|    Updated: January 10, 2018 7:32 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দিন কয়েক আগেই আধার কার্ডের আদলে মেয়ের বিয়ের নিমন্ত্রণপত্র ছাপিয়ে নজর কেড়েছিলেন মধ্যপ্রদেশের বীরেন্দ্র তিওয়ারি। আর এবার  মেয়ের বিয়ের নিমন্ত্রণপত্রে সরকারি লোগোই ছাপিয়ে দিলেন উত্তরাখণ্ডের বিজেপি বিধায়ক সুরেশ রাঠৌর। ঘটনায় রীতিমতো শোরগোল পড়েছে রাজনৈতিক মহলে। বিধায়কের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি তুলেছে বিরোধী দল কংগ্রেস। যদিও সুরেশ রাঠৌরের সাফাই, শাসকদলের বিধায়ক হওয়ার সুবাদে তিনিও সরকারেরই অংশ। তাই নিমন্ত্রণপত্রে সরকারের লোগো ব্যবহার করে কোনও অন্যায় করেননি।

[জিএসটি-র প্রতিবাদে মোদিকে ১০০০ স্যানিটারি ন্যাপকিন পাঠাবেন ছাত্রীরা]

বস্তুত, বিয়ের মতো পারিবারিক অনুষ্ঠানের নিয়মন্ত্রণপত্রে সরকারি প্রকল্পের প্রচার নতুন কিছু নয়। নিজের মেয়ের বিয়ের নিমন্ত্রণপত্রের থিম হিসেবে আধার কার্ডকেই বেছে নিয়েছিলেন মধ্যপ্রদেশের বীরেন্দ্র তিওয়ারি। সেই নিমন্ত্রণপত্র নিয়ে হইচইও কিছু কম হয়নি। এমনকী, বিয়ের নিমন্ত্রণপত্রে স্বচ্ছ ভারত মিশনের লোগোও দেখা গিয়েছে। স্বপ্নের প্রকল্পের লোগো সম্বলিত বিয়ের নিমন্ত্রণপত্রটির ছবি টুইট করেছিলেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কিন্তু, তা বলে শাসকদলের বিধায়কের মেয়ের বিয়ের নিমন্ত্রণপত্রে সরকারি লোগো! ঘটনায় শোরগোল পড়েছে বিজেপিশাসিত উত্তরাখণ্ডে। হরিদ্বারের জ্বালাপুরের বিজেপি বিধায়ক সুরেশ রাঠৌরের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওযার দাবি তুলেছে কংগ্রেস।

[‘ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ার নয়, মাদ্রাসায় তৈরি হয় সন্ত্রাসবাদী’]

উত্তরাখণ্ডে বিজেপির অন্যতম দলিত নেতা সুরেশ রাঠৌর। গত বছর বিধানসভা হরিদ্বারের জ্বালাপুর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে প্রথমবার বিধায়ক নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। তাঁকে রাজ্যের তফসিলি জাতি ও উপজাতি কমিশনের ডেপুটি চেয়ারম্যান পদে নিয়োগ করেছে উত্তরাখণ্ডের বিজেপি সরকার। জানা গিয়েছে, একটি কন্যাসন্তানকে দত্তক নিয়েছেন সুরেশ রাঠৌর। সেই মেয়ের বিয়ের নিমন্ত্রণপত্রে উত্তরাখণ্ড সরকারে লোগো ব্যবহার করে বিতর্কে জড়ালেন বিধায়ক। দলের বিধায়কের এই কাণ্ডে বেজায় অস্বস্তিতে পড়েছে বিজেপি। সরকারকে নিশানা করেছে বিরোধীরা। যদিও এই ঘটনায় অন্যায় কিছু দেখছেন না বিজেপি বিধায়ক। সুরেশ রাঠৌরের বক্তব্য, ‘আমি সরকারেরই অংশ। তাই নিয়মন্ত্রণপত্রে লোগো ব্যবহার করেছি। এটা কোনও অন্যায় নয়। অনেককেই বিয়ের নিমন্ত্রণপত্রে সরকারি লোগো ব্যবহার করতে দেখেছি।’ বিধায়কের প্রশ্ন, ‘আমি নিজের মেয়ের মতোই একজন গরিব মেয়ের বিয়ে দিচ্ছি। সেটা কারও নজরে পড়ল না?’

 

 

[বরদাস্ত করা হবে না ‘ড্রাগনের’ আস্ফালন, সাফ কথা মোদির]

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement