BREAKING NEWS

১২ কার্তিক  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৯ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

‘অন্য দেশের সঙ্গে হাত মেলানো রাষ্ট্রদ্রোহিতা’, ফারুক আবদুল্লাকে বিঁধলেন সম্বিত পাত্র

Published by: Biswadip Dey |    Posted: October 12, 2020 8:20 pm|    Updated: October 12, 2020 8:20 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চিনের (China) সমর্থনেই কাশ্মীর তার হারানো মর্যাদা ফিরে পাবে। রবিবার এমনই দাবি করেছিলেন জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লা (Farooq Abdullah)। এবার তাঁকে পালটা জবাব দিল বিজেপি (BJP)। সোমবার তাঁর সেই মন্তব্যের বিরোধিতা করে  বিজেপির তরফে সম্বিত পাত্র বলেন, ‘‘এটা দুঃখজনক। একই সঙ্গে উদ্বেগজনকও বটে। একজন সাংসদ দেশ সম্পর্কে এই ধরনের শব্দপ্রয়োগ করছেন। ’’

রবিবার ফারুক আবদুল্লা সংবাদমাধ্য়মের এক সাক্ষাৎকারে বলেন, “কাশ্মীর নিয়ে কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত ওরা (চিন) কোনওদিন মেনে নেয়নি। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় ওরা যা করছে তার মূলে রয়েছে ৩৭০ ধারার বিলোপ। আশা করি, ওঁদের (চিন) সাহায্যেই কাশ্মীরে ফের ৩৭০ ধারা ফিরবে।” এর পালটা জবাবে বিজেপি মুখপাত্র সম্বিত পাত্রের বক্তব্য,  “উনি মনে করেন, ৩৭০ ধারার বিলোপের সিদ্ধান্তের ফলেই চিন আগ্রাসন দেখাচ্ছে। ওঁর দাবি, সংসদে ৩৭০ ধারা বিলোপ করার সিদ্ধান্ত হওয়ার ফলে চিন অসন্তুষ্ট হয়েছে। এইভাবে তিনি চিনের আগ্রাসনের পক্ষে যুক্তি দেখাচ্ছেন। তিনি চিনের এই সীমান্ত বাড়ানোর প্রবণতাকে ন্যায়সঙ্গত বলে মনে করছেন।’’

[আরও পড়ুন : উৎক্ষেপণের ৮ মিনিট পরেই বাতিল মিশন, প্রশ্নের মুখে ভারতের ‘নির্ভয়’ মিসাইল]

ফারুক আবদুল্লার মন্তব্যকে ‘রাষ্ট্রদ্রোহী’ বলে দাবি করে সম্বিত বলেন, ‘‘যদি গণতান্ত্রিক পদ্ধতি নিয়ে আপনার কোনও আপত্তি থাকে আপনি বলতেই পারেন। কিন্তু কোনও কিছুকে পুনর্বহাল করতে অন্য দেশের সঙ্গে হাত মেলানোটা নিন্দাজনক। এটা রাষ্ট্রদ্রোহিতাও।’’ তিনি আরও বলেন যে এই প্রথম ফারুক জাতীয় স্বার্থের বিরোধিতা করলেন তা নয়। গত ২৪ সেপ্টেম্বর তিনি দাবি করেছিলেন, কাশ্মীর যদি চিনের সঙ্গে হাত মেলায় তাহলেই ঠিক হয়। দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব নিয়ে প্রশ্ন তোলা কোনও সাংসদের কাছে প্রত্যাশিত নয় বলে জানান সম্বিত।

[আরও পড়ুন: ‘আমাদের মেয়েদের স্পর্শ করলেই মৃত্যুদণ্ড’, লাভ জিহাদ নিয়ে বিস্ফোরক অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী]

এদিন ফারুক আবদুল্লা ছাড়াও কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীকেও আক্রমণ করেছেন সম্বিত পাত্র। তাঁর মতে, রাহুল ও ফারুক একই মুদ্রার দুই পিঠ। প্রধানমন্ত্রীর প্রতি বিদ্বেষ প্রকাশ করতে গিয়ে তাঁরা দেশের প্রতিও বিদ্বেষমূলক মন্তব্য করেন বলে দাবি সম্বিতের।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement