৪ ফাল্গুন  ১৪২৬  সোমবার ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

Menu Logo দিল্লি ২০২০ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৪ ফাল্গুন  ১৪২৬  সোমবার ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনের আগে জোর ধাক্কা বিজেপির। গেরুয়া শিবিরের সঙ্গ ছেড়ে বেরিয়ে গেল দলের দুই পুরনো জোটসঙ্গী শিরোমণি অকালি দল (Shiromani Akali Dal) এবং জননায়ক জনতা পার্টি (Jannayak Janata Party)। অকালি দলের তরফে জানানো হয়েছে, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং এনআরসি ইস্যুতে মতের মিল না হওয়ায় বিজেপির সঙ্গ ছাড়ছে তাঁরা। অন্যদিকে, জেজেপির তরফে এই জোট ছাড়ার ব্যপারে এখনও কোনও মন্তব্য করা হয়নি। তবে সূত্রের খবর, বিজেপির সঙ্গে আসন সমঝোতায় ঐক্যমত না হওয়ায় বাধ্য হয়ে জোট ছেড়েছে দুষ্মন্ত চৌটালার দল। তবে, শিরোমণি অকালি দল এবং জেজেপির সঙ্গে জোট না হলেও জেডিইউ এবং এলজেপির সঙ্গে জোট পাকা করেছে গেরুয়া শিবির। দিল্লিতে জেডিইউ দুই এবং এলজেপি ১ আসনে লড়বে।

akali-dal
শিরোমণি অকালি দল বিজেপির দীর্ঘদিনের বিশ্বস্ত জোটসঙ্গী। গেরুয়া শিবিরের অত্যন্ত খারাপ সময়েও সঙ্গ ছাড়েনি তাঁরা। কিন্তু, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই বিজেপি বিরোধী কথাবার্তা শোনা যাচ্ছিল অকালি নেতাদের মুখে। সোমবার অকালি দলের নেতা মনজিন্দর সিং শীর্ষা জানিয়ে দিয়েছেন, “আমরা কঠোরভাবে এনআরসি বিরোধী। আমাদের সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে নিজেদের অবস্থান পর্যালোচনা করতে বলা হয়েছিল। কিন্তু, তাতে রাজি হইনি। আমাদের অবস্থান স্পষ্ট, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন থেকে মুসলিমদের বাদ দেওয়া যাবে না।” অকালি নেতারা মুখে বলছেন, সিএএ এবং এনআরসি বিরোধিতায় জোট ছেড়েছেন তাঁরা। কিন্তু সূত্রের খবর বলছে, তাঁদের বিজেপির সঙ্গ ছাড়ার মূল কারণ হল আসন সমঝোতা।

[আরও পড়ুন: ‘ফের প্রমাণ হল বিজেপিতে পরিবারতন্ত্র চলে না’, নাড্ডার অভিষেকের পর দাবি অমিতের]

২০১৫ সালে অকালি দল দিল্লি বিধানসভায় তিন আসনে প্রার্থী দিয়েছিল। তবে, তাঁদের প্রার্থীরা লড়েছিলেন বিজেপির পদ্ম প্রতীক নিয়ে। কিন্তু, এবারে বাদলরা চাইছিলেন নিজেদের প্রতীকে লড়তে। আর তাতেই আপত্তি জানায় বিজেপি। শেষপর্যন্ত ঐক্যমতে পৌঁছানো যায়নি এই প্রতীক-বিভ্রাট নিয়ে। যার জেরে জোট ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অকালি। তবে বিজেপির জন্য স্বস্তির খবর, জোট ছাড়ার পর আলাদাভাবেও লড়ছে না অকালি। তাঁরা পুরোপুরিই দিল্লি নির্বাচন বয়কট করেছে। এদিকে, দুষ্মন্ত চৌটালার (Dushyant Chautala) দলের সঙ্গেও একই সমস্যা বিজেপির। তাঁরা হরিয়ানা সীমান্তে অন্তত ১২টি আসন বিজেপির থেকে দাবি করেছিল। গেরুয়া শিবির তা ছাড়তে রাজি না হওয়ায়, জোট ভেস্তে গেল। এই দুই জোটসঙ্গী সঙ্গ ছাড়ায় বিজেপিকে যে দিল্লি নির্বাচনে আরও চাপে পড়ে যেতে হল, তা বলাই বাহুল্য।

[আরও পড়ুন: সিএএ’র সমর্থনের মিছিল থেকে মহিলা আধিকারিককে মার, কাঠগড়ায় বিজেপি সমর্থকরা]

এদিকে, বিজেপির জোট অস্বস্তির মধ্যে স্বস্তি কংগ্রেসে। রাষ্ট্রীয় জনতা দলের সঙ্গে আসনরফা চূড়ান্ত হয়েছে হাত শিবিরের। আরজেডি সূত্রের খবর, ৭০ আসন বিশিষ্ট দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে তাঁরা ৪টি আসনে লড়বে। বাকি আসনগুলিতে প্রার্থী দেবে কংগ্রেস।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং