BREAKING NEWS

২৬  শ্রাবণ  ১৪২৯  সোমবার ১৫ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

বুদ্ধগয়ায় ধারাবাহিক বিস্ফোরণ মামলায় ৫ অভিযুক্তর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 1, 2018 1:42 pm|    Updated: June 1, 2018 1:42 pm

Bodh Gaya serial blasts: All convicts sentenced to life

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বুদ্ধগয়া ধারাবাহিক বিস্ফোরণ মামলায় দোষীদের যাবজ্জীবন জেলের সাজা দিল আদালত। ২০১৩ সালের এই মামলায় আগেই রায়দান করেছিল আদালত। শুক্রবার পাটনায় পাঁচ দোষীর সাজা ঘোষণা করে এনআইএ-র বিশেষ আদালত।

দীর্ঘদিন ধরে চলা এই মামলায় প্রায় ৯০ জনের বয়ান নথিভুক্ত করে আদালত। অভিযুক্তদের ভারতীয় দণ্ডবিধির ১২০(বি), ১৫৩ (এ)-সহ ইউএপিএ আইনের একাধিক ধারায় দোষী সাব্যস্ত করা হয়। দোষীদের মধ্যে রয়েছে ওই হামলার মাস্টারমাইন্ড কুখ্যাত জঙ্গি হায়দার আলি। দোষীদের মধ্যে এক নাবালকও রয়েছে। উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ৭ জুলাই একের পর এক বিস্ফোরণে কেঁপে উঠে বুদ্ধগয়া। মহাবোধি মন্দিরের আশেপাশে লুকিয়ে রাখা প্রায় দশটি সিলিন্ডার বোমায় বিস্ফোরণ ঘটে। ধামাকায় গুরুতর আহত হন দুই বৌদ্ধভিক্ষু। বিস্ফোরণে বোধিদ্রুম ও মুখ্য মন্দিরের কোনও ক্ষতি হয়নি। ধারাবাহিক বিস্ফোরণের পরই তদন্তে নামে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনআইএ)। হামলার নেপথ্যে পাক মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন ‘ইন্ডিয়ান মুজাহিদিন’ রয়েছে বলে জানা যায়। তারপরই গ্রেপ্তার করা হয় মূলচক্রী হায়দার আলি-সহ সন্দেহভাজন পাঁচ জঙ্গিকে। তদন্তকারীদের ধৃতরা জানায় মায়ানমারে রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতনের প্রতিবাদে ওই হামলা করা হয়।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের মার্চ মাসেই বানচাল করা হয় বড়সড় নাশকতার ছক। পর্দাফাঁস হয় ইসলামিক স্টেট জঙ্গি গোষ্ঠীর ‘স্লিপার সেল’-এর। মহারাষ্ট্রের পুণে শহর থেকে গ্রেপ্তার করা হয় আইএস-এর পাঁচ জঙ্গিকে। বুদ্ধগয়ায় হামলার ছক কষছিল ধৃতরা। তার আগেই জানুয়ারি মাসে বুদ্ধগয়ায় বিস্ফোরণ ঘটে। সেই সময় সেখানে মজুত ছিলেন তিব্বতি ধর্মগুরু দলাই লামা। তারপরই অভিযান শুরু করে পুলিশ। বিস্ফোরণে জড়িত চারজন জামাত জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করা হয়। জানা যায়,  ঘটনার নেপথ্যে রয়েছে নিও জামাত-উল-মুজাহিদিন (নিও জেএমবি)।

[ঝড়ে ভেঙেছে কমিউনিটি হল, দিদিমণির বাড়িতেই চলছে সর্বশিক্ষা মিশনের স্কুল]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে