BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

রাজনৈতিক দলকে নগদে ২০০০ টাকার বেশি চাঁদা নয়, কড়া নির্দেশ আয়কর দপ্তরের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 23, 2018 12:50 pm|    Updated: January 23, 2018 12:50 pm

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বাজেট ঘোষণার সময় স্পষ্ট জানানো হয়েছিল। এবার একেবারে বিজ্ঞাপন দিয়েই সাধারণ মানুষকে সতর্ক করে দিল আয়কর দপ্তর। কোনওভাবেই কোনও রাজনৈতিক দলকে ২০০০ টাকার বেশি নগদে চাঁদা দেওযা যাবে না। সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ডিরেক্ট ট্যাক্সেস বা সিবিডিটি-র তরফে সমস্ত শীর্ষ সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপন দিয়েই এ ব্যাপারে অবহিত করা হয়েছে।

দেশের সম্পদের ৭৩ শতাংশই কুক্ষিগত করেছে ১ শতাংশ ধনী ]

গতবছর বাজেট পেশের সময়ই এ ঘোষণা করেছিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। বাজেটেই নগদ লেনদেনে রাশ টানা হয়েছিল। ফলে কোনও রাজনৈতিক দলকেই নগদে ২০০০ টাকার বেশি না দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। বাকি আর্থিক অনুদান ব্যাঙ্কের বন্ডের মাধ্যমে দেওয়া যেতে পারে। বিভিন্ন সময় রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলি বন্ড বিক্রি করে। সেই বন্ড কিনে কেউ রাজনৈতিক দলকে দিতেই পারেন। কিন্তু সেক্ষেত্রে এই পুরো আর্থিক লেনদেনের তথ্যই সরকারের কাছে থাকবে, যেহেতু তা ব্যাঙ্ক মারফত হবে। কোনওভাবেই তা আয়কর দপ্তরের নজর এড়িয়ে যেতে পারবে না। রাজনৈতিক দলের অনুদানের ক্ষেত্রে এ অভিযোগ প্রায়শই ওঠে। অভিযোগ, কালো টাকা সাদা করার এ এক পদ্ধতি। অন্যদিকে মোদি সরকারের লক্ষ্যই হল কালো টাকার অর্থনীতি বন্ধ করা। সে কারণেই নোট বাতিলের মতো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। ফলে অনুদান দেওয়ার ক্ষেত্রেও লাগাম টেনে দেওয়া হয়েছিল। তারপর থেকে এই প্রথম প্রকাশ্যে, স্পষ্ট করে বিজ্ঞাপন দিয়ে জনগণকে সতর্ক করা হল।

শিব সেনার হম্বিতম্বিকে আমল দিতে নারাজ ফড়ণবিস ]

মূলত এই বিজ্ঞাপনে নগদ লেনদেন বিষয়েই সতর্ক করা হয়েছে। রাজনৈতিক দলের পাশাপাশি কোনও রেজিস্টার্ড ট্রাস্টে অনুদানের ক্ষেত্রেও নগদের ঊর্ধ্বসীমা এটাই। এছাড়া জনগণকে আরও কিছু নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যেমন স্থাবর সম্পত্তির ক্ষেত্রে ২০,০০০ টাকার বেশি নগদ লেনদেনে না বলা হয়েছে। কোনও একটি বিষয়ে কোনও একজন ব্যক্তির সঙ্গে অপরজনের নগদ লেনদেন যেন ২ লক্ষ টাকার মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকে। সতর্ক করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, এর অন্যথা হলে জরিমানার মুখে পড়তে হতে পারে। নগদহীন অর্থনীতির দিকে যেমন সরকারের ঝোঁক, তেমনই কালো টাকা রোখাও সরকারের প্রধান লক্ষ্য। বাজেটে এই ঘোষণা স্পষ্ট ছিল। তারপরও জনগণের স্বার্থে একেবারে বিজ্ঞাপন দিয়েই আরও একবার সতর্ক করা হল।

কারগিলে লড়েছিলেন বন্দুক হাতে, এবার পাক হ্যাকারদের ত্রাস সেনা অফিসার ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement