২২ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ৭ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

বিজেপির ভয়! করোনা আতঙ্ক উপেক্ষা করে গুজরাটের বিধায়কদের হোটেলে সরাল কংগ্রেস

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: June 7, 2020 9:28 am|    Updated: June 7, 2020 9:28 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশজুড়ে করোনা আতঙ্ক (COVID-19)। বিশেষ করে গুজরাটে পরিস্থিতি ভয়াবহ। কিন্তু এসব আতঙ্ক উপেক্ষে করেই প্রধানমন্ত্রীর নিজের রাজ্যে জোরকদমে চলছে রাজনৈতিক দড়ি টানাটানি। রাজ্যসভা নির্বাচনের আগে কোনও এক অজ্ঞাত কারণে কংগ্রেসের একের পর এক বিধায়ক পদত্যাগ করছেন। হাত শিবিরের দাবি, কোটি কোটি টাকার লোভ দেখিয়ে বিধায়কদের ভাঙিয়ে রাজ্যসভার নির্বাচন জিততে চাইছে বিজেপি (BJP)। শেষমেশ নিজেদের ঘর বাঁচাতে মরিয়া কংগ্রেস (Congress) করোনা আতঙ্ক উপেক্ষা করেই নিজেদের দলের বিধায়কদের সরিয়ে ফেলল হোটেলে।

শিয়রে রাজ্যসভা নির্বাচন। তার আগেই কংগ্রেসের রক্তচাপ বাড়িয়ে গুজরাটে এখনও পর্যন্ত আটজন কংগ্রেস বিধায়ক পদত্যাগ করেছেন। এদের মধ্যে ছ’জন মার্চ মাসে এবং দু’জন গত শুক্রবার পদত্যাগ করেছে। কংগ্রেসের অভিযোগ রাজ্যসভা নির্বাচনে জেতার জন্য দলের বিধায়কদের মোটা অঙ্কের টাকার লোভ দেখাচ্ছে বিজেপি। কংগ্রেস নেতা অর্জুন মোতয়াদিয়ার অভিযোগ, যে সব বিধায়ক জীবনে ৫০ লক্ষ টাকা একসঙ্গে দেখেননি, তাঁদের ২০ কোটি টাকার লোভ দেখানো হচ্ছে। বিজেপির এই তথাকথিত প্রলোভনের সামনে অসহায় কংগ্রেস শেষমেশ করোনা আতঙ্ক উপেক্ষা করেই দলেই বিধায়কদের হোটেলে সরিয়ে ফেলেছে। সূত্রের খবর, ভদোদার, রাজকোট এবং রাজস্থানের তিনটি রিসর্টে এই বিধায়কদের সরানো হয়েছে। প্রশ্ন হল, করোনা আবহে এতজন বিধায়ককে রিসর্টে পাঠিয়ে কি কংগ্রেস সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়িয়ে দিল না? যদিও দলীয় সূত্রের দাবি, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতেই বিধায়কদের তিনটি আলাদা আলাদা রিসোর্টে সরানো হয়েছে।

[আরও পড়ুন: লকডাউনে নেই চাকরি, পেটের দায়ে ১০০ দিনের কাজ করছেন উত্তরপ্রদেশের শিক্ষিত বেকাররা]

আসলে সামনেই ১৮২ আসনের গুজরাট বিধানসভায় রাজ্যসভার চার আসনের নির্বাচন। রাজ্যসভার একেকটি আসনের জন্য প্রয়োজন ৩৪ জন বিধায়কের সমর্থন। কংগ্রেসের হাতে প্রথমে ছিল ৭৩ জন বিধায়ক। সেই হিসেবে তাঁরা নিশ্চিন্তে ২ জন প্রার্থীকে জেতাতে পারত। কিন্তু একের পর এক বিধায়কের পদত্যাগে সেই অঙ্ক জটিল হয়ে গিয়েছে। আপাতত তাঁদের হাতে রয়েছে ৬৫ জন বিধায়ক। এদের এবং নির্দলদের সমর্থনে এখনও রাজ্যসভার দু’টি আসনে জেতার স্বপ্ন দেখছে হাত শিবির। সেজন্যই বিধায়কদের সরানো হয়েছে রিসর্টে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement